শীর্ষ খবর

ফরিদপুরে বিলুপ্তপ্রায় শকুন উদ্ধার

ফরিদপুরে বিলুপ্তপ্রায় একটি শকুন উদ্ধার করে বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেল থেকে ফরিদপুর সদরের শোভারামপুর এলাকায় অবস্থান করছিল আহত শকুনটি।
ফরিদপুর সদরের শোভারামপুর এলাকা থেকে শকুনটিকে উদ্ধার করা হয়। ছবি: সংগৃহীত

ফরিদপুরে বিলুপ্তপ্রায় একটি শকুন উদ্ধার করে বনবিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেল থেকে ফরিদপুর সদরের শোভারামপুর এলাকায় অবস্থান করছিল আহত শকুনটি।

এলাকার তরুণদের সহায়তায় শকুনটিকে উদ্ধার করে জেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বনবিভাগের কাছে তুলে দেওয়া হয়েছে।

শকুনটির দুটি পাখাসহ দৈর্ঘ্য আনুমানিক ১০ ফুট এবং ওজন ১৬ কেজি। গায়ের রঙ ধূসর।

জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা নূরুল্লাহ মো. আহসান বলেন, শকুনটির মাথার নিচে ঘাড়সহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শকুনটি অসুস্থ ছিল। তিনি বলেন, এটি দেশীয় জাতের একটি শকুন। খাবার সংকটে লোকালয়ে চলে আসায় সে হয়ত মানুষের আক্রমণের শিকার হয়ে আহত হয়েছে।

তিনি বলেন, শকুনটিকে অ্যান্টিবায়োটিকসহ প্রয়োজনীয় প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। দু-তিন দিন চিকিৎসা পেলে সুস্থ হয়ে উঠবে শকুনটি।

শকুনটি উদ্ধার ও হস্তান্তর কাজে মূখ্য ভূমিকা পালন করে দুটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম- গ্রুপ ফরিদপুর সিটি পেইজ ও ফরিদপুর লাইভ গ্রুপ।

ফরিদপুর সিটি পেইজের মো. এমদাদুল হাসান  জানান, বৃহস্পতিবার ফরিদপুর সদরের শোভারামপুর এলাকার তরুণ পারভেজ আহমেদের  মাধ্যমে আহত, অসুস্থ ও দুর্বল ওই শকুনটির সংবাদ তিনি জানতে পারেন। দুপুর ১টার দিকে তিনি ও ফরিদপুর সাইক্লিস্ট কমিউনিটির এডমিন বায়োজিদ হোসেন দক্ষিণ শোভারামপুর এলাকায় গিয়ে রেল সড়কের সামনে থেকে শকুনটিকে উদ্ধার করেন।

জেলা বন বিভাগের রেঞ্জ কর্মকর্তা সাইদুর রহমান  জানান, শকুনটিকে আপাতত একটি ঘরে রাখা হয়েছে। এর প্রয়োজনীয় খাদ্য এবং পাশাপাশি চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি বলেন, শকুনটি মুক্তভাবে ছেড়ে দেওয়ার জন্য খুলনায় অবস্থিত বন বিভাগের বন্য প্রাণি ও প্রকৃতি সংরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ে যোগাযোগ করা হয়েছে। আগামী রবিবার ওই কার্যালয়ের প্রতিনিধি শকুনটি নিতে ফরিদপুর আসবেন।

Comments

The Daily Star  | English

Old, unfit vehicles taking lives

The bus involved in yesterday’s crash that left 14 dead in Faridpur would not have been on the road had the government not given into transport associations’ demand for keeping buses over 20 years old on the road.

2h ago