কৃষক বিদ্রোহ: ‘আমাদের বার্তা পৌঁছে দিয়েছি’

ভারতের বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারীদের প্রতিবাদী ট্রাক্টর র‌্যালি দিল্লিতে শান্তিপূর্ণভাবে করার প্রতিশ্রুতি থাকলেও তা সংঘাতে পরিণত হয়েছে।
ছবি: সংগৃহীত

ভারতের বিতর্কিত কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে আন্দোলনকারীদের প্রতিবাদী ট্রাক্টর র‌্যালি দিল্লিতে শান্তিপূর্ণভাবে করার প্রতিশ্রুতি থাকলেও তা সংঘাতে পরিণত হয়েছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, আজ মঙ্গলবার দেশটির প্রজাতন্ত্র দিবসে পূর্ব-নির্ধারিত সময়ের আগে তথা সকাল বেলায় কৃষকরা দিল্লির সীমানায় পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে রাজধানী শহরে প্রবেশ করলে এই সংঘর্ষ বাঁধে।

আমাদের নয়াদিল্লি সংবাদদাতা জানিয়েছেন, সেসময় পুলিশ আন্দোলনকারীদের ওপর লাঠিচার্জ করে ও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে।

ইন্ডিয়া টুডে’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কৃষকদের বিক্ষোভ সহিংস হয়ে ওঠায় দিল্লির ডিডিইউ মার্গে ট্রাক্টর উল্টে একজন নিহত হয়েছেন।

এনডিটিভি জানিয়েছে, নগরীর ঐতিহাসিক লাল কেল্লায় এক বিক্ষোভকারী সংবাদমাধ্যমটিকে বলেছেন, ‘আমরা এখানে এসেছি মোদি সরকারকে একটি বার্তা দিতে। আমাদের বার্তা পৌঁছে দিয়েছি। এখন আমরা ফিরে যাব।’

অপর এক বিক্ষোভকারী বলেছেন, ‘আমাদেরকে প্রতিরোধের চেষ্ঠা করা হয়েছিল। সেসব প্রতিরোধ ভেঙে আমরা লাল কেল্লায় এসেছি। লক্ষ্য অর্জিত না হওয়া পর্যন্ত আমরা থামব না। আমাদের লক্ষ্য হলো তিনটি কৃষি আইন বাতিল করা।’

ছবি: সংগৃহীত

আজ সকালে সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছিল, পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে পায়ে হেঁটে হাজারো কৃষক দিল্লিতে প্রবেশ করেছেন। তাদেরকে প্রজাতন্ত্র দিবসের কুজকাওয়াজ শেষে ট্রাক্টর র‌্যালি করার অনুমতি দেওয়া হলেও নির্ধারিত সময়ের আগে তারা শহরে প্রবেশ করেছেন। সেসময় তারা নির্ধারিত সড়কের পরিবর্তে অন্য সড়ক ব্যবহার করেছেন।

আমাদের সংবাদদাতা জানিয়েছেন, এক সরকারি কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেছেন, দিল্লি সীমান্তবর্তী সিঙ্ঘু থেকে আসা কৃষকরা দিল্লির আওটার রিং রোডে নির্ধারিত সময়ের আগে সমবেত হলে পুলিশ তাদের সেখান থেকে সরিয়ে দিতে কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করেছে।

আন্দোলনকারী কৃষকরা পুলিশের বাধা অতিক্রম করে তাদের পূর্ব-নির্ধারিত রুট এড়িয়ে দিল্লিতে প্রবেশ করেছেন ও একটি বাসে ভাঙচুর করেছে বলেও বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে।

ভারতীয় বার্তা সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, দিল্লিতে আন্দোলনকারী কৃষকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হওয়ায় সেখানকার কয়েকটি এলাকায় ও এর আশাপাশের কয়েকটি স্থানে ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি এক টুইটার বার্তায় বলেছেন, সংঘাত কোনো সমাধান নয়। তিনি উভয়পক্ষকে শান্ত থাকার ও সংঘর্ষে না জড়ানোর অনুরোধ করেছেন।

লাল কেল্লায় আন্দোলনকারীদের পতাকা

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডে’র এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পুলিশের ব্যারিকেড ভেঙে দিল্লি প্রবেশের পর আন্দোলনকারী কৃষকরা ঐতিহাসিক লাল কেল্লায় নিজেদের প্রতিবাদের পতাকা টাঙিয়ে দিয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিভিন্ন ছবি ও ভিডিওতে দেখা গেছে দিল্লি পুলিশের অনুরোধ সত্ত্বেও আন্দোলনকারীদের একটি দল লাল কেল্লায় প্রবেশ করছেন এবং তাদের প্রতিবাদী পতাকা টাঙিয়ে দিচ্ছেন।

সেখানে ভারতের জাতীয় পতাকার পাশে এই পতাকা টাঙাতে দেখা গিয়েছে।

এতে আরও বলা হয়েছে, আন্দোলনকারী কৃষকরা দিল্লির কেন্দ্রস্থল আইটিও এলাকায় সংঘর্ষের পর লাল কেল্লায় প্রবেশ করেন।

আরও পড়ুন:

কৃষক বিদ্রোহ: দিল্লির কয়েকটি এলাকায় ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন

কৃষক বিদ্রোহ: দিল্লিতে সহিংস বিক্ষোভ, ট্রাক্টর উল্টে নিহত ১

কৃষক বিদ্রোহ: পুলিশ পেটাল, ছুঁড়ল কাঁদানে গ্যাস

কৃষক বিদ্রোহ: ব্যারিকেড ভেঙে দিল্লিতে

কৃষক বিদ্রোহ: ৩৬ শর্তে ট্রাক্টর র‌্যালির অনুমতি

কৃষক বিদ্রোহ: প্রজাতন্ত্র দিবসে দিল্লিতে ঢুকতে পারবেন আন্দোলনকারীরা

কৃষক বিদ্রোহ: বিতর্কিত আইন স্থগিতের সিদ্ধান্ত

কৃষক বিদ্রোহ: প্রজাতন্ত্র দিবসে ‘ট্রাক্টর নিয়ে দিল্লিতে ঢুকবো’

ভারতে কৃষক বিদ্রোহ

বিতর্কিত কৃষি আইন স্থগিত করল সুপ্রিম কোর্ট, ৪ সদস্যের কমিটি গঠন

কৃষক বিদ্রোহ: দাবি পূরণ না হলে রেলপথেও বিক্ষোভ

কৃষক বিদ্রোহ নিয়ে ট্রুডোর মন্তব্য, ভারত তলব করল কানাডার রাষ্ট্রদূতকে

কৃষক বিদ্রোহ: পাঞ্জাব-হরিয়ানার ক্রীড়াবিদদের ‘সমর্থন’ ও কৃষিবিজ্ঞানীর পুরস্কার প্রত্যাখ্যান

কৃষক বিদ্রোহ: দাবি না মানলে অনশনে যাবেন আন্না হাজারে

কৃষক বিদ্রোহ: ‘এমএসপির লিখিত আশ্বাস দিতে প্রস্তুত কেন্দ্র’

ভারতে কৃষক বিদ্রোহ: ‘আমরা খাবার এনেছি’ সরকারি খাবার ফিরিয়ে দিলেন

কৃষক বিদ্রোহ: দিল্লি বিধানসভায় বিতর্কিত ৩ কৃষি আইন প্রত্যাখ্যান

Comments

The Daily Star  | English

Create right conditions for Rohingya repatriation: G7

Foreign ministers from the Group of Seven (G7) countries have stressed the need to create conditions for the voluntary, safe, dignified, and sustainable return of all Rohingya refugees and displaced persons to Myanmar

3h ago