সেরাম ও ভারত বায়োটেকের আইটি সিস্টেম হ্যাকের চেষ্টা চীনা হ্যাকারদের

চীনের একটি রাষ্ট্র-সমর্থিত হ্যাকিং গ্রুপ সম্প্রতি ভারতের দুই ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সেরাম ও ভারত বায়োটেকের আইটি সিস্টেম হ্যাক করার চেষ্টা করেছে বলে সাইবার গোয়েন্দা সংস্থা সাইফারমা দাবি করেছে।
ভারত বায়োটেকের কোভ্যাকসিন। জানুয়ারি ১৬, ২০২১। ছবি: রয়টার্স

চীনের একটি রাষ্ট্র-সমর্থিত হ্যাকিং গ্রুপ সম্প্রতি ভারতের দুই ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সেরাম ও ভারত বায়োটেকের আইটি সিস্টেম হ্যাক করার চেষ্টা করেছে বলে সাইবার গোয়েন্দা সংস্থা সাইফারমা দাবি করেছে।

সিঙ্গাপুর ও টোকিওভিত্তিক সংস্থা সাইফারমা রয়টার্সকে জানায়, স্টোন পান্ডা নামে পরিচিত চীনা হ্যাকিং গ্রুপ এপিটি-১০ ভারত বায়োটেক ও সেরাম ইনস্টিটিউটের আইটি সিস্টেম ও সাপ্লাই চেইন সফটওয়্যারের ফাঁক ও দুর্বলতা চিহ্নিত করেছে।

সাইফারমার প্রধান নির্বাহী ও ব্রিটিশ ফরেন ইনটেলিজেন্স এজেন্সি এমআই-৬-এর সাবেক শীর্ষ সাইবার কর্মকর্তা কুমার রিতেশ বলেন, ‘এর প্রকৃত উদ্দেশ্য হচ্ছে ইন্টেলেকচুয়াল প্রপার্টি বা বুদ্ধিবৃত্তিক সম্পদ মুছে ফেলা এবং ভারতীয় ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থাগুলোর তুলনায় প্রতিযোগিতায় এগিয়ে যাওয়া।’

তিনি বলেন, এপিটি-১০ সক্রিয়ভাবে সেরামকে টার্গেট করেছে। সেরাম অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন উৎপাদন করছে এবং শিগগির নোভাভ্যাক্স উৎপাদন শুরু করতে যাচ্ছে।

রিতেশ হ্যাকিংয়ের বিষয়ে বলেন, ‘সেরামের ক্ষেত্রে তারা বেশ কিছু পাবলিক সার্ভার পেয়েছে যেগুলো দুর্বল ওয়েব সার্ভার চালায়। তারা দুর্বল ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনের কথা বলেছে, দুর্বল কন্টেন্ট-ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সম্পর্কেও বলেছেন। এটি বেশ উদ্বেগজনক।’

চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাত্ক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্যে করেনি।

সেরাম ইনস্টিটিউট ও ভারত বায়োটেকও কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি।

এপিটি-১০ চীনের স্টেট সিকিউরিটি মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় কাজ করে বলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ ২০১৮ সালে জানিয়েছিল।

রিতেশের প্রতিষ্ঠান সাইফারমা প্রায় ৭৫০টি সাইবার অপরাধীদের কার্যক্রম অনুসরণ করে এবং ডাইসিফার ব্যবহার করে প্রায় দুই হাজার হ্যাকিং কার্যক্রম পর্যবেক্ষণ করে। তবে তিনি জানান, এপিটি-১০ ভারতের ওই দুই প্রতিষ্ঠান থেকে ভ্যাকসিন সম্পর্কিত কী ধরণের তথ্যের ভেতরে প্রবেশ করতে পেরেছে, তা এখনো পরিষ্কার নয়।

Comments