রাজনীতির ইনিংস শুরু করছেন না, বিজেপিকে জানালেন সৌরভ

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকা ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) তাদের দলে চাইছিল সৌরভকে।
sourav ganguly

উপমহাদেশে ক্রিকেটারদের রাজনীতিতে আসা নতুন কিছু নয়। ইমরান খান, অর্জুনা রানাতুঙ্গা, মাশরাফি মর্তুজারা সেটা করে দেখিয়েছেন। গুঞ্জন থাকলেও সেই পথে হাঁটছেন না ভারতের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলি। এমন খবরই দিয়েছে পশ্চিমবঙ্গের দৈনিক আনন্দবাজার।

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকা ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) তাদের দলে চাইছিল সৌরভকে। বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা অমিত শাহ’র পুত্র জয় শাহ সৌরভের ঘনিষ্ঠ। সৌরভ ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি আর জয় সেক্রেটারি। এই সূত্র কাজে লাগিয়ে গুঞ্জন চড়াও হয়েছিল।

এক সাক্ষাতকারে সৌরভ পত্নী ডোনা গাঙ্গুলির মন্তব্যও এমন গুঞ্জনে শক্তি যোগায়। ডোনা বলেছিলেন, ক্রিকেট মাঠ , ক্রিকেট প্রশাসনের মতো রাজনীতিতে এলেও সৌরভ সফল হবেন। তার এমন কথা সৌরভের রাজনীতি নামার আভাস হিসেবেই দেখা হচ্ছিল।

এরপরের কিছু ঘটনা অবশ্য বদলে দেয় প্রেক্ষাপট।  সৌরভের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়া তার রাজনীতিতে আসার সম্ভাবনাকে কিছুটা হালকা করে দেয়। এবার জানা গেল, বিজেপি হাইকমান্ডকে রাজনীতিতে নামার ব্যাপারে নিজের অনাগ্রহের কথা জানিয়ে দিয়েছেন ভারতের অনেক সাফল্যের নায়ক। তবে সৌরভ নিজে গণমাধ্যমে এই ব্যাপারে কিছুই বলেননি। 

৭ মার্চ নির্বাচনী জনসভায় যোগ দিতে কলকাতায় আসবেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। খবর রটেছিল এই সভাতেই উপস্থিত হয়ে বিজেপিতে যোগ দেবেন সৌরভ। তবে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর খবর এই সম্ভাবনা আপাতত ফিকে হয়ে গেছে। রাজনীতিতে আর আসছেন না সৌরভ।  

পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে ক্ষমতায় আছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস। মুখ্যমন্ত্রী মমতার সঙ্গে সৌরভের সম্পর্ক বেশ ভালো।

মমতার দলকে হটিয়ে ক্ষমতায় যেতে শক্ত অবস্থায় আছে কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকা বিজেপি। নির্বাচনের লড়াইয়ে আছে তৃনমূলের আগে ৩৫ বছর রাজ্যের ক্ষমতায় থাকা বামফ্রন্টও। সৌরভকে বামফ্রন্ট নেতদের সঙ্গেও বেশ হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক রাখতে দেখা গেছে।

Comments

The Daily Star  | English
Shipping cost hike for Red Sea Crisis

Shipping cost keeps upward trend as Red Sea Crisis lingers

Shafiur Rahman, regional operations manager of G-Star in Bangladesh, needs to send 6,146 pieces of denim trousers weighing 4,404 kilogrammes from a Gazipur-based garment factory to Amsterdam of the Netherlands.

2h ago