হাজী সেলিমের সংসদ সদস্যপদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন স্পিকার

হাজী সেলিমের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের আদেশের কপি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সংসদ সচিবালয় ও স্পিকারের কাছে পাঠানোর পর তার সংসদ সদস্যপদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
ছবি: সংগৃহীত

হাজী সেলিমের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের আদেশের কপি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সংসদ সচিবালয় ও স্পিকারের কাছে পাঠানোর পর তার সংসদ সদস্যপদের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব জাফর আহমেদ খান আজ মঙ্গলবার রাতে দ্য ডেইলি স্টারকে এ কথা বলেছেন।

দ্য ডেইলি স্টারের সঙ্গে আলাপকালে তিনি জানান, হাইকোর্টের রায় সম্পর্কে তারা দুদকের কাছ থেকে এখনো কোনো কাগজ পাননি।

সিনিয়র সচিব জাফর আহমেদ খান বলেন, ‘দুদকের কাছ থেকে নথিপত্র পাওয়ার পর সংসদের স্পিকার সংবিধানের আলোকে হাজী সেলিমের সংসদ সদস্যপদের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।’

সংবিধানের ৬৬ অনুচ্ছেদে একজন সংসদ সদস্যকে অযোগ্য ঘোষণা করার কয়েকটি বিধান আছে।

এর একটিতে বলা আছে- কোন ব্যক্তি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার এবং সংসদ সদস্য থাকার যোগ্য হবেন না, যদি তিনি নৈতিক স্খলনজনিত কোনো ফৌজদারী অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়ে অন্যূন দুই বছরের কারাদণ্ডে দণ্ডিত হন এবং তার মুক্তি পাওয়ার পর পাঁচ বছর অতিবাহিত না হয়।

হাজী সেলিমের বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ২০০৭ সালের ২৪ অক্টোবর রাজধানীর লালবাগ থানায় মামলা করে দুদক। শুনানি শেষে ২০০৮ সালের ২৭ এপ্রিল ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৭ এ মামলায় তাকে ১৩ বছরের কারাদণ্ড দেন।

আজ হাজী সেলিমের বিরুদ্ধে নিম্ন আদালতের সাজা তিন বছর কমিয়ে তার ১০ বছরের কারাদণ্ডের আদেশ বহাল রাখেন হাইকোর্ট।

আরও পড়ুন:

দুর্নীতির মামলায় হাজী সেলিমের ১০ বছরের কারাদণ্ড বহাল

Comments