কুমিল্লার দাউদকান্দিতে বাসে আগুন

‘বাবাকে তো বাঁচাতে পারলাম না, এখন মাকে বাঁচাতে হবে’

‘বাসটির পেছন দিকে যখন আগুন ধরে যায়, সামনে যাত্রীদের হুড়োহুড়ি লেগে যায়। বের হতে না পেরে প্রথমে কনুই দিয়ে বাসের জানালা ভাঙার চেষ্টা করলাম। জানালা দিয়ে আমার মা, মেয়েসহ চার জনকে বের করলাম। মার পরনের বোরকায় আগুন লাগে। তা নেভাতে নেভাতে আর বাবাকে বের করা হলো না।’
গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাসে আগুন লাগে। ছবি: সংগৃহীত

‘বাসটির পেছন দিকে যখন আগুন ধরে যায়, সামনে যাত্রীদের হুড়োহুড়ি লেগে যায়। বের হতে না পেরে প্রথমে কনুই দিয়ে বাসের জানালা ভাঙার চেষ্টা করলাম। জানালা দিয়ে আমার মা, মেয়েসহ চার জনকে বের করলাম। মার পরনের বোরকায় আগুন লাগে। তা নেভাতে নেভাতে আর বাবাকে বের করা হলো না।’

বলছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক মো. উজ্জ্বল মিয়া। গতকাল তিনি বাবা-মা-স্ত্রী-সন্তানসহ ঢাকা থেকে মতলব এক্সপ্রেস বাসে করে গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার দাউদকান্দি যাচ্ছিলেন। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টার দিকে বাসটি দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুরে পৌঁছালে বাসটিতে আগুন ধরে যায়।

উজ্জ্বলের বাবা ৭০ বছর বয়সী রকিবুল বাসের আগুনে দগ্ধ হয়ে নিহত হন। তার মা সামসুন্নাহার বেগম (৫৫) অগ্নিদগ্ধ হয়ে এখন শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে আছেন।

সামসুন্নাহারের শ্বাসনালী এবং শরীরের ১০ শতাংশ পুড়ে গেছে বলে শেখ হাসিনা বার্ন ইনস্টিটিউটের প্রধান সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন দ্য ডেইলি স্টারকে জানিয়েছেন।

তিনি জানান, গতকাল ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাসে আগুনের ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ ১৮ জনকে বার্ন ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়। তাদের মধ্যে এখন দুজন আইসিইউতে ও একজন এইচডিইউতে ভর্তি আছেন। বাকিদের চিকিৎসা দিয়ে সকালে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

আইসিইউতে থাকা অপর বৃদ্ধ গোলাম হোসেনের (৭৫) শরীরের ৩১ শতাংশ পুড়ে গেছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও জানান, এইচডিইউতে ভর্তি রওশন আরার মুখমণ্ডলসহ শরীরের ১২ শতাংশ পুড়ে গেছে।

গোলাম হোসেনের ভাতিজা শরীফ সরকার দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, তার চাচা চিকিৎসার জন্য ঢাকায় এসেছিলেন। গতকাল তিনি মেয়ে শাহিনুর ও নাতি সানজিদাকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। বাসে আগুন লেগে গেলে মেয়ে আর নাতি বাস থেকে নেমে গেলেও গোলাম হোসেনের নামতে দেরি হয়। ততক্ষণে তিনিসহ বাসের আগুনে পুড়ে গেছে তার চিকিৎসার কাগজপত্র, কাপড়-চোপড়।

যোগাযোগ করা হলে দাউদকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘বাসে আগুনের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মাসের মালিক, চালক ও হেল্পারের বিরুদ্ধে মামলা করেছে। এখনো কাউকে আটক করা যায়নি।’

তিনি জানান, গ্যাস সিলিন্ডার লিক হয়ে বাসে আগুন ধরেছে বলে ফায়ার সার্ভিস প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে। তবে, সিআইডি ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করেছে। তদন্তের পর অগ্নিকাণ্ডের কারণ নিশ্চিত করে বলা যাবে।

Comments

The Daily Star  | English

Ready to counter any militant attack targeting Pahela Baishakh, says Rab DG

Rab DG M Khurshid Hossain reassured public of comprehensive security arrangements for Pahela Baishakh celebrations

42m ago