করোনাকালে ব্রাজিলে ৪ বার স্বাস্থ্যমন্ত্রী পরিবর্তন

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর থেকে চতুর্থবারের মতো স্বাস্থ্যমন্ত্রী পরিবর্তন করছে ব্রাজিল।
Marcelo Queiroga.jpg
আগামী এক বা দুই সপ্তাহের মধ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে মার্সেলো কোয়েরোগার নিয়োগ চূড়ান্ত হবে। ছবি: সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর থেকে চতুর্থবারের মতো স্বাস্থ্যমন্ত্রী পরিবর্তন করছে ব্রাজিল।

আজ মঙ্গলবার বিবিসি জানায়, নতুন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ মার্সেলো কোয়েরোগাকে নিয়োগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারো।

গত এক বছরের মধ্যে দেশটিতে নিয়োগ পাওয়া চতুর্থ স্বাস্থ্যমন্ত্রী হবেন মার্সেলো কোয়েরোগা।

তার আগে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন এদুয়ার্দো পাজুয়েলো। তিনি ছিলেন একজন সামরিক কর্মকর্তা। তার কোনো মেডিকেল প্রশিক্ষণ ছিল না।

গতকাল সোমবার এক বক্তব্যে বলসোনারো বলেন, ‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ মারসেলো কোয়েরোগাকে নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’

তিনি জানান, আগামী এক বা দুই সপ্তাহের মধ্যে তার নিয়োগ চূড়ান্ত হবে।

এর কয়েক ঘণ্টা আগে, জেনারেল এদুয়ার্দো পাজুয়েলো সাংবাদিকদের জানান, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় পুনর্গঠনের জন্য প্রেসিডেন্ট বলসোনারো তাকে পরিবর্তন করছেন।

গত বছরের মে মাসের মাঝামাঝি ব্রাজিলে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন নেলসন টেইক। এর আগে, লুইজ হেনরিক মেন্ডেটাও প্রেসিডেন্ট জেইর বলসোনারোর সঙ্গে মতানৈক্যের জেরে পদত্যাগ করেছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও সংক্রমণ দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে। দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন এক কোটি ১৫ লাখ ১৯ হাজার ৬০৯ জন, মারা গেছেন দুই লাখ ৭৯ হাজার ২৮৬ জন।

মহামারি নিয়ন্ত্রণে সরকারি অব্যবস্থাপনা নিয়ে বলসোনারো সরকার ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, বর্তমানে ব্রাজিলের ১৫টি রাজ্যে চিকিৎসা ব্যবস্থা ভঙ্গুর হয়ে পড়েছে। দেশটিতে প্রায় সবগুলো আইসিইউ বেডেই এখন জরুরি রোগী ভর্তি। হাসপাতালগুলো চিকিৎসা দিতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে।

Comments

The Daily Star  | English

Create right conditions for Rohingya repatriation: G7

Foreign ministers from the Group of Seven (G7) countries have stressed the need to create conditions for the voluntary, safe, dignified, and sustainable return of all Rohingya refugees and displaced persons to Myanmar

1h ago