আমার পায়ে আঘাত করেছে, কিন্তু আমার কণ্ঠস্বর রুখতে পারবে না: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বিজেপি আমাকে ঘরবন্দী করে রাখতে চেয়েছিল যাতে আমি নির্বাচনের সময় বাইরে বের হতে না পারি। তারা (বিজেপি) আমার পায়ে আঘাত করেছে। কিন্তু, তারা আমার কণ্ঠস্বর রুখতে পারবে না, আমরা বিজেপিকে পরাজিত করব।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি: ফাইল ফটো/ সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, বিজেপি আমাকে ঘরবন্দী করে রাখতে চেয়েছিল যাতে আমি নির্বাচনের সময় বাইরে বের হতে না পারি। তারা (বিজেপি) আমার পায়ে আঘাত করেছে। কিন্তু, তারা আমার কণ্ঠস্বর রুখতে পারবে না, আমরা বিজেপিকে পরাজিত করব।

আজ বুধবার ঝাড়গ্রামে এক নির্বাচনী সমাবেশে অংশ নিয়ে এ কথা বলেন তিনি।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুরে ওই সমাবেশে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও অভিযোগ করেন, আগে সিপিএম তাকে আক্রমণ করত।

তিনি বলেন, ‘আমাকে অনেকবার মারধর করা হয়েছে। আগে সিপিএম আমাকে মারধর করত, আর এখন বিজেপিও একই কাজ শুরু করেছে। যাইহোক, সিপিএমের মানুষরাই এখন বিজেপি হয়েছে। কিছু বিশ্বাসঘাতক, লোভী মানুষও বিজেপিতে যোগ দিয়েছে।’

গত ১০ মার্চ নন্দীগ্রামে নির্বাচনী প্রচারণায় গিয়ে বাঁ পায়ে ও কাঁধে আঘাত পান তিনি। এ ঘটনাকে ‘গভীর ষড়যন্ত্র’ বলে দাবি করেছে। কিন্তু, ভারতীয় নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর ওপর হামলার কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি। এটা একটি দুর্ঘটনা ছিল।

ওই ঘটনার পর মমতা এসএসকেএম হাসপাতাল ভর্তি হন। পরে, গত শুক্রবার হুইলচেয়ারে হাসপাতাল ছাড়েন তিনি। হাসপাতাল ছাড়ার দুদিন পরে আবারও প্রচারণা অংশ নেন এবং বলেন, ‘আহত বাঘ আরও বিপজ্জনক।’

Comments

The Daily Star  | English