নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবীকে লাল গালিচা সংবর্ধনা

নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারি আজ সকালে দু’দিনের সরকারি সফরে ঢাকা পৌঁছেছেন। এ সময় তাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়।
রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বিমানবন্দরে নেপালের প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানান। ছবি: পিআইডি

নেপালের প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারি আজ সকালে দু’দিনের সরকারি সফরে ঢাকা পৌঁছেছেন। এ সময় তাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

ঢাকায় নেপালি প্রেসিডেন্টের এটি প্রথম সফর। বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন অনুষ্ঠানে যে কয়জন বিশ্বনেতা যোগ দিয়েছেন তিনি তাদের মধ্যে তৃতীয়। কোভিড-১৯ মহামারির কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও তার স্ত্রী রাশিদা খানম বিমানবন্দরে নেপালের প্রেসিডেন্টকে স্বাগত জানান।

এর আগে, প্রেসিডেন্ট ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী ভিভিআইপি বিমান সকাল ১০টায় হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

সফররত প্রতিনিধি দলের সদস্যরা অনুষ্ঠানে মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্বসহ সকল স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছেন।

বিমানবন্দরে নেপালের প্রেসিডেন্টের সম্মানে ২১ বার তোপধ্বনিসহ বাংলাদেশের সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করে।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও নেপালের প্রেসিডেন্ট অস্থায়ী ডায়াসে দাঁড়িয়ে রাষ্ট্রীয় সালাম গ্রহণ করেন। এ সময়ে দু’দেশের জাতীয় সংগীত বাজানো হয়।

রাষ্ট্রীয় এ অতিথি গার্ড পরিদর্শন করেন এবং এরপর উভয় প্রেসিডেন্ট তার নিজ নিজ দেশের প্রতিনিধি দলকে একে অপরের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন।

নেপালের প্রেসিডেন্টের সফরসঙ্গীদের মধ্যে রয়েছেন তার কন্যা ঊষা কিরণ ভান্ডারি, পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী প্রদীপ কুমার গাওয়ালি এবং নেপাল সরকারের সংশ্লিষ্ট সচিব ও সিনিয়র কর্মকর্তাগণ।

বিমানবন্দরে এ সময়ে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালিক, রেলওয়ে মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন্নেছা ইন্দিরা।

এছাড়া, কেবিনেট সচিব, তিন বাহিনীর প্রধান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব এবং রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সচিবরাও উপস্থিত ছিলেন।

বিমানবন্দর থেকে নেপালি প্রেসিডেন্ট সাভারে জাতীয় স্মৃতি সৌধে যাবেন এবং সেখানে তিনি বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন।

বিদ্যা দেবী সেখানে পরিদর্শক বইতে স্বাক্ষর এবং গাছের চারা রোপণ করবেন।

এরপর তিনি ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন এবং জাতির পিতা ও সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন।

বিকেলে তেজগাঁওয়ে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারের অনুষ্ঠানে নেপালি প্রেসিডেন্ট সম্মানিত অতিথি হিসেবে অংশ নেবেন। এখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাকে স্বাগত জানাবেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, প্রেসিডেন্ট ভান্ডারি বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে একটি বিবৃতি প্রদান করবেন।

প্রেসিডেন্ট ভান্ডারি বঙ্গভবনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করবেন।

সন্ধ্যায় তিনি সেখানে পরিদর্শক বইতে স্বাক্ষর এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান উপভোগ শেষে নৈশভোজে অংশ নেবেন।

Comments

The Daily Star  | English
Depositors money in merged banks

Depositors’ money in merged banks will remain completely safe: BB

Accountholders of merged banks will be able to maintain their respective accounts as before

4h ago