রিট খারিজ, ২ এপ্রিল মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় বাধা নেই

চলমান কোভিড-১৯ মহামারিতে সংক্রমণ হার বেড়ে যাওয়ায় আগামী ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য সরকারি ও বেসরকারি কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে করা রিট খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।
দেশটাকে তো জাহান্নাম বানিয়ে ফেলেছেন
স্টার ফাইল ফটো

চলমান কোভিড-১৯ মহামারিতে সংক্রমণ হার বেড়ে যাওয়ায় আগামী ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য সরকারি ও বেসরকারি কলেজে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা স্থগিত চেয়ে করা রিট খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

আজ বুধবার বিচারপতি মো. খসরুজ্জামান ও বিচারপতি মো. মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বিত বেঞ্চ রিটটি খারিজ করে দেন।

শুনানিতে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার বলেন, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আগামী ২ এপ্রিল মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার জন্য সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

রিটের পক্ষের আইনজীবী মুনতাসীর মাহমুদ রহমান দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, হাইকোর্টের আদেশের পর মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে আর কোনও আইনি বাধা নেই।

গত ২১ মার্চ ঝালকাঠির মো. তৈমুর খান বাপ্পি করোনাভাইরাস সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার কারণে ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিতব্য মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার তারিখ স্থগিতের জন্য কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন।

মহামারি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসার পর যেন অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা দিতে আদালতে এই আবেদন করেন তিনি।

তৈমুর খান বাপ্পির পক্ষে রিটটি করেন আইনজীবী মুনতাসীর মাহমুদ রহমান।

দ্য ডেইলি স্টারকে মুনতাসীর মাহমুদ রহমান জানান, করোনা সংক্রমণ বাড়ছে। এ সময়ে মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার মতো সিদ্ধান্তের ফলে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়বে।

এছাড়াও, অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষার তুলনায় মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা অনেক আগে নেওয়া হলে বিপুল স্বাস্থ্য ঝুঁকির পাশাপাশি এটি একটি বড় ব্যবধান তৈরি করতে পারে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘মেডিকেল কলেজগুলোতে ভর্তি প্রক্রিয়া খুব অল্প সময়ের মধ্যেই শেষ হয়। যদি কোনও শিক্ষার্থী অনেক টাকা খরচ করে বেসরকারি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়ে যান তাহলে অন্য কোনও বিশ্ববিদ্যালয়ে সুযোগ পেলেও আর ভর্তি হওয়ার সামর্থ্য নাও থাকতে পারে।’

Comments

The Daily Star  | English

A look back on 2018 quota protests and Toriqul’s tale

Students from Comilla University were attacked by police during a quota reform demonstration yesterday. At least 10 students, including two journalists, were injured

31m ago