মামুনুলকে নিয়ে শাল্লার যুবকের ফেসবুক পোস্ট: হেফাজত নয়, পুলিশই মামলা দিলো ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হকের সমালোচনায় করা যে ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁওয়ে সাম্প্রদায়িক হামলা চালায় হেফাজত সমর্থকরা, সেই পোস্টদাতার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।
সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁও গ্রামের হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িঘরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। ছবি: সংগৃহীত

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হকের সমালোচনায় করা যে ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁওয়ে সাম্প্রদায়িক হামলা চালায় হেফাজত সমর্থকরা, সেই পোস্টদাতার বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।

সোমবার শাল্লা থানার উপ-পরিদর্শক মো. আব্দুল করিম বাদী হয়ে ঝুমন দাশ আপনের (২৮) বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করেন বলে আজ বৃহস্পতিবার দ্য ডেইলি স্টারকে জানান শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজমুল হক।

তিনি বলেন, ‘সোমবার মামলা দায়েরের পর এ মামলায় ঝুমন দাশকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে বুধবার আদালতকে অবগত করা হয়েছে। ঝুমন দাশ এখন কারাগারে আছেন।’

গত ১৫ মার্চ সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব জুনায়েদ বাবুনগরী ও যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হকের উপস্থিতিতে একটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। 

পরদিন (১৬ মার্চ) মামুনুল হকের সমালোচনা করে ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন পার্শ্ববর্তী শাল্লা উপজেলার নোয়াগাঁওয়ের বাসিন্দা ঝুমন দাশ আপন (২৮)। সে রাতেই গ্রামের পার্শ্ববর্তী ধারাইন বাজারে সমবেত হন কয়েক শ হেফাজতে ইসলাম সমর্থক এবং তারা ঝুমনের গ্রেপ্তার দাবি করেন।

গ্রামে সম্ভাব্য হামলা এড়াতে সেই রাতেই ঝুমনকে উপজেলার শাঁসখাই গ্রাম থেকে আটক করেন গ্রামবাসী এবং পুলিশে সোপর্দ করেন। কিন্তু, পরদিন সকালে আবারও ধারাইন বাজারে কয়েক হাজার হেফাজত সমর্থক সমবেত হন এবং এর কিছুক্ষণ পর হামলা চালানো হয় নোয়াগাঁওয়ের হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের ৯০টি বাড়িঘরে, চালানো হয় ব্যাপক লুটপাট।

ঝুমন দাশকে আটকের পর হেফাজতে ইসলাম নেতারা মামলা দিবেন বলে জানায় পুলিশ। কিন্তু, পরে ১৭ মার্চ তাকে ক্রিমিনাল প্রসিডিউর কোডের (সিআরপিসি) ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে চালান দিলে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। কিন্তু, আজ পর্যন্ত হেফাজতে ইসলাম কোনো মামলা দায়ের করেনি ঝুমনের বিরুদ্ধে।

এ ঘটনায় হেফাজতে ইসলাম মামলা না দিলেও পুলিশ কেনো মামলা দিলো, জানতে চাইলে শাল্লা থানার ওসি নাজমুল হক ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘হেফাজত নেতারা মামলা দেওয়ার কথা বললেও তারা দেননি। আমরা অপেক্ষা করেছি। কিন্তু, সিআরপিসি ৫৪ ধারায় তাকে গ্রেপ্তার করার কারণে আইনগতভাবে একটি সাধারণ মামলা দায়েরের প্রয়োজন থাকায় আমরা এ মামলা দায়ের করেছি।’

‘বুধবার আদালতকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। এখন আদালত আইননুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন’, বলেন তিনি।

আরও পড়ুন:

সরেজমিন শাল্লা: প্রধান আসামি স্বাধীন যুবলীগ না হেফাজত

সরেজমিন: শাল্লায় যা ঘটেছিল

শাল্লায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িতে হামলার প্রধান আসামি ইউপি সদস্য শহীদুল গ্রেপ্তার

শাল্লায় হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িতে হামলা: গ্রেপ্তার ২২

হেফাজত নেতা মামুনুলকে গ্রেপ্তারের দাবি

সুনামগঞ্জে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের বাড়িতে হেফাজত সমর্থকদের হামলা

শাল্লায় হিন্দুদের বাড়িতে হামলার ঘটনায় মামলা

‘আওয়ামী লীগে কি সাম্প্রদায়িক লোকজন ঢুকে গেছে?’, প্রশ্ন ঢাবি ছাত্রলীগ সভাপতির

Comments

The Daily Star  | English

Cyclone Remal makes landfall

The eye of the cyclonic storm is scheduled to cross Bangladesh between 12:00-1:00am after which the cyclone is expected to weaken

40m ago