খেলা

ধাওয়ানের ব্যাটে পাঞ্জাবকে হারালো দিল্লি

মায়াঙ্ক আগারওয়ালের তাণ্ডবে দিল্লি ক্যাপিটালসকে বড় লক্ষ্যই ছুঁড়ে দিয়েছিল পাঞ্জাব কিংস। কিন্তু ঝড়ো ব্যাটিংয়ে সে লক্ষ্যকে মামুলী বানিয়ে দিলেন শেখর ধাওয়ান। সেঞ্চুরি না পেলেও দলের জয়ের পথটা গড়ে দিয়েছেন এ ওপেনারই। তাতে এর ম্যাচ পর ফের জয়ের ধারায় ফিরেছে দিল্লি।
ছবি: সংগৃহীত

মায়াঙ্ক আগারওয়ালের তাণ্ডবে দিল্লি ক্যাপিটালসকে বড় লক্ষ্যই ছুঁড়ে দিয়েছিল পাঞ্জাব কিংস। কিন্তু ঝড়ো ব্যাটিংয়ে সে লক্ষ্যকে মামুলী বানিয়ে দিলেন শেখর ধাওয়ান। সেঞ্চুরি না পেলেও দলের জয়ের পথটা গড়ে দিয়েছেন এ ওপেনারই। তাতে এর ম্যাচ পর ফের জয়ের ধারায় ফিরেছে দিল্লি।

রোববার মুম্বাইয়ে পাঞ্জাব কিংসকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৯৫ রান সংগ্রহ করে পাঞ্জাব। জবাবে ১০ বল বাকী থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছায় ভারতের রাজধানীর দলটি। তিন ম্যাচে এটা তাদের দ্বিতীয় জয়। অপর দিকে তিন ম্যাচে দুটি হার দেখল পাঞ্জাব।

রান তাড়ায় এদিন দারুণ সূচনা পায় দিল্লি। অসাধারণ ব্যাটিংয়ে ওপেনিং জুটিতেই ৫৯ রান করেন দুই ওপেনার পৃথ্বী শ ও শেখর ধাওয়ান। এরপর পৃথ্বী বিদায় নিলেও এক প্রান্ত ধরে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন ধাওয়ান। পাশাপাশি আগ্রাসী ব্যাটিংয়ে রানের গতিও সচল রাখেন।

দ্বিতীয় উইকেটে স্টিভ স্মিথের সঙ্গে ৪৮ রানের জুটি গড়েন ধাওয়ান। তাতে সিংহভাগ রান আসে এ ওপেনারের ব্যাট থেকেই। মাত্র ৯ রান করেন স্মিথ। এরপর রিশাভ পান্তের সঙ্গে জুটি বাঁধেন ধাওয়ান। ৪৫ রান আসে তৃতীয় উইকেটে। তাতে পান্তের অবদান মাত্র ১১ রান।

তবে কিছুটা আক্ষেপ নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় ধাওয়ানকে। সেঞ্চুরি থেকে ৮ রান দূরে থাকতে অজি পেসার জয় রিচার্ডসনের বলে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি। তবে এর আগেই কাজের কাজটি করে যান। ৪৯ বলে ১৩টি চার ও ২টি ছক্কায় ৯২ রান করেন তিনি। এরপর পান্ত ও ললিত যাদবের সঙ্গে দুটি ছোট ছোট জুটিতে বাকী কাজ শেষ করেন অজি অলরাউন্ডার মার্কাস স্টয়নিস।

এর আগে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা দুর্দান্ত করে পাঞ্জাব। লোকেশ রাহুল ও মায়াঙ্ক আগারওয়ালের ব্যাটে পাওয়ার প্লেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে করে ৫৯ রান। শেষ পর্যন্ত ওপেনিং জুটিতেই আসে ১২২ রান। তাতেই বড় স্কোরের ভিত পেয়ে যায় দলটি। এরপর বাকী ব্যাটসম্যানদের ছোট ছোট ইনিংসে ১৯৬ রানের চ্যালেঞ্জিং লক্ষ্যই ছুঁড়ে দেয় পাঞ্জাব।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৯ রানের ইনিংস খেলেন আগারওয়াল। ৩৬ বলের ইনিংসটি ৭টি চার ও ৪টি ছক্কায় সাজান এ ওপেনার। আরেক ওপেনার রাহুলের ব্যাট থেকে আসে ৬১ রান। যদিও আগারওয়ালের মতো এতোটা ধ্বংসাত্মক ছিলেন না তিনি। ৫১ বলে ৭টি চার ও ২টি ছক্কায় এ রান করেন এ ওপেনার। শেষ দিকে ৫ বলে ২টি চার ও ১টি ছক্কায় ১৫ রানের কার্যকরী ইনিংস খেলেন শাহরুখ খান।

Comments

The Daily Star  | English

Dos and Don’ts during a heatwave

As people are struggling, the Met office issued a heatwave warning for the country for the next five days

4h ago