'বিদ্রোহী লিগে' বার্সা-রিয়ালসহ ১২ ক্লাব, উয়েফার হুমকি

গুঞ্জনটা অনেক দিন থেকেই ছিল। শেষ পর্যন্ত সে গুঞ্জনই সত্যি প্রমাণিত হলো। আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হলো ইউরোপিয়ান সুপার লিগের। ইউরোপের শীর্ষ ১২টি দল এ লিগে যোগ দিতে যাচ্ছে। ফিফা ও উয়েফার সঙ্গে এ নিয়ে কাজ করবে বিবৃতিতে আলাদা আলাদাভাবে জানিয়েছে ক্লাবগুলো।
ছবি: সংগৃহীত

গুঞ্জনটা অনেক দিন থেকেই ছিল। শেষ পর্যন্ত সে গুঞ্জনই সত্যি প্রমাণিত হলো। আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হলো ইউরোপিয়ান সুপার লিগের। ইউরোপের শীর্ষ ১২টি দল এ লিগে যোগ দিতে যাচ্ছে। ফিফা ও উয়েফার সঙ্গে এ নিয়ে কাজ করবে বিবৃতিতে আলাদা আলাদাভাবে জানিয়েছে ক্লাবগুলো।

তবে এর মধ্যেই উয়েফাসহ ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, লা লিগা, সিরি আ কর্তৃপক্ষ বলেছে এমন কিছু হলে এ দলগুলোকে ঘরোয়া লিগ ও উয়েফার সব ধরনের প্রতিযোগিতা থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হবে। পাশাপাশি লিগে অংশ নেওয়া কোনো ফুটবলার খেলতে পারবেন না জাতীয় দলের হয়েও।

তবে উয়েফার হুমকির তোয়াক্কা করছে না ক্লাবগুলো। অনেকেই এ লিগকে 'বিদ্রোহী লিগ' বলে ডাকছেন। এ লিগে স্পেন থেকে যোগ দিয়েছে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ ও অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ। ইংল্যান্ড থেকে লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, আর্সেনাল ও টটেনহ্যাম হটস্পার্স। ইতালি থেকে রয়েছে জুভেন্টাস, ইন্টার মিলান ও এসি মিলান।

মূলত ২০টি দল নিয়ে আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। ফরাসি ক্লাব পিএসজি, জার্মান ক্লাব বায়ার্ন মিউনিখ ও বরুসিয়া ডর্টমুন্ড তাদের সিদ্ধান্তে রাজী হয়নি। খুব শীগগিরই বাকী ক্লাবগুলোর নাম জানিয়ে দিবে তারা। দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে হোম অ্যান্ড অ্যাওয়ে ভিত্তিতে খেলা হবে। প্রতি গ্রুপের শীর্ষ তিন দল খেলবে কোয়ার্টার ফাইনালে। শেষ আটের বাকি দুইটি জায়গা নিতে প্লে অফ ম্যাচে লড়াই করবে গ্রুপের চতুর্থ ও পঞ্চম হওয়া দল দুটি। তবে ফাইনাল হবে এক লেগে। তবে এ লিগে শীর্ষ ১৫টি ক্লাব খেলবে স্থায়ীভাবে। বদল হবে পাঁচটি দল।

পিএসজির মালিক নেসার আল খেলাইফি উয়েফার বিভিন্ন দায়িত্বে থাকার কারণেই মূলত এই লিগের বিরোধিতা করেছেন। অন্যদিকে জার্মান ক্লাবগুলোর সিংহভাগ শেয়ার তাদের ফ্যানদের কাছে। তাই চাইলেই হুট করে কোনো লিগে নাম লেখাতে পারবে না তারা। সেজন্য বায়ার্ন ও ডর্টমুন্ড এখনো কিছু বলেনি। তবে গুঞ্জন রয়েছে এ দুটো ক্লাবও যোগ দিতে পারে।

তবে ইউরোপের শীর্ষ ক্লাবগুলো মিলে আলাদা একটা লিগ গঠন করার চিন্তা-ভাবনা আজকের নয়। সেই ২০০০ সালেরও আগে থেকেই এ নিয়ে ভাবছে ক্লাবগুলো। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে যথেষ্ট ম্যাচ না থাকায় টিভি স্বত্ব ও অন্যান্য খাত থেকে যথেষ্ট আয় না হওয়ায় এমন ভাবনা আসে তাদের। সুপার লিগে নিজেরা যথেষ্ট পরিমাণ ম্যাচ খেলতে পারবে এবং টিভি স্বত্ব থেকে পুরো টাকাটাই যাবে ক্লাবগুলোর পকেটে।

এই লিগের মূল কারিগর হিসেবে ধরা হচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজকে। তিনিই এই লিগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। সহ সভাপতি হিসেবে জুভেন্টাসের সভাপতি আন্দ্রেয়া আগ্নেলির সঙ্গে আরও আছেন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সভাপতি জোয়েল গ্লেজার, লিভারপুলের জন ডব্লিউ হেনরি, আর্সেনালের স্ট্যান ক্রোয়েংকে। এই প্রজেক্টে ১০ বিলিয়ন ইউরো বিনিয়োগ করা হবে বলে জানিয়েছে ক্লাবগুলো। জানা গেছে, আমেরিকান ব্যাঙ্ক জেপি মরগ্যান ক্লাবগুলোকে কাজ করার জন্য ৩.৫ বিলিয়ন ইউরো দিচ্ছে।

Comments

The Daily Star  | English

Sajek accident: Death toll rises to 9

The death toll in the truck accident in Rangamati's Sajek increased to nine tonight

1h ago