খেলা

আইপিএলে ছেড়ে যাওয়া খেলোয়াড়দের তালিকা দীর্ঘ হচ্ছে

ভারতে করোনাভাইরাসের ভয়াবহ ঊর্ধ্বগতির মাঝে আইপিএল ছেড়ে যাচ্ছেন একের পর এক ক্রিকেটার।
(বাঁ থেকে) কেন রিচার্ডসন ও অ্যাডাম জ্যাম্পা। ছবি: টুইটার

ভারতে করোনাভাইরাসের ভয়াবহ ঊর্ধ্বগতির মাঝে আইপিএল ছেড়ে যাচ্ছেন একের পর এক ক্রিকেটার। সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় চার জন সরে দাঁড়িয়েছেন বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এই টি-টোয়েন্টি আসর থেকে। তারা হলেন ভারতের রবীচন্দ্রন অশ্বিন এবং অস্ট্রেলিয়ার তিন খেলোয়াড় অ্যান্ড্রু টাই, অ্যাডাম জ্যাম্পা ও কেন রিচার্ডসন।

অস্ট্রেলিয়ার স্পিনার জ্যাম্পা ও পেসার রিচার্ডসন ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। দুজনই রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর স্কোয়াডের সদস্য। তাদের সিদ্ধান্তের বিষয়টি সোমবার নিশ্চিত করেছে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। এক বিবৃতিতে বেঙ্গালুরু জানিয়েছে, ‘অ্যাডাম জ্যাম্পা ও কেন রিচার্ডসন ব্যক্তিগত কারণে অস্ট্রেলিয়াতে ফিরে যাচ্ছেন। আইপিএলের বাকি অংশে তাদেরকে পাওয়া যাবে না। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু সব ধরনের উপায়ে তাদের প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছে।’

এর আগে রবিবার রাতে আইপিএল ছাড়ার কথা জানিয়েছেন ভারতের স্পিন অলরাউন্ডার অশ্বিন। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইরত পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দিল্লি ক্যাপিটালসের এই তারকা। পরিস্থিতির উন্নতি হলে ফিরবেন বলেও আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে অশ্বিন লিখেছেন, ‘কাল (সোমবার) থেকে এ বছরের আইপিএল থেকে আমি বিরতি নিচ্ছি। কোভিড-১৯ ভাইরাসের বিপক্ষে লড়ছে আমার পরিবার ও আত্মীয়-স্বজনরা। এই কঠিন সময়ে আমি তাদের পাশে দাঁড়াতে চাই। পরিস্থিতি সঠিক দিকে এগোলে আমি খেলায় ফিরব বলে প্রত্যাশা করি। দিল্লি ক্যাপিটালসকে ধন্যবাদ।’

রাজস্থান রয়্যালসের অজি পেসার টাই রবিবারই দেশের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন। ফ্র্যাঞ্চাইজিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, ব্যক্তিগত কারণে আইপিএল ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তবে নিজ দেশের রেডিও স্টেশন এসইএনকে টাই বলেছেন ভিন্ন কথা। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সীমান্ত বন্ধ হয়ে গেলে অস্ট্রেলিয়াতে ফেরা নিয়ে শঙ্কার কথা উল্লেখ করেছেন তিনি। জ্যাম্পা আর রিচার্ডসনও যে করোনার কারণে সরে দাঁড়িয়েছেন, তা আলাদা করে না বললেও চলে।

আইপিএলে অংশ নেওয়া ক্রিকেটারদের অনেকের মধ্যেই বিরাজ করছে শঙ্কা। সেটা বোঝা গেছে মুম্বাই থেকে দোহা হয়ে সিডনিগামী বিমানে চড়া টাইয়ের মন্তব্যে, ‘অবশ্যই উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা রয়েছে। আমার ফেরার কথা শুনে অনেকে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। আমি কোন পথে ও কীভাবে বাড়িতে ফিরছি, তা জানতে অনেকে ভীষণ আগ্রহী ছিল।’

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে টাইয়ের রাজস্থান সতীর্থ লিয়াম লিভিংস্টোন ফিরে যান ইংল্যান্ডে। জৈব-সুরক্ষা বলয়ে দীর্ঘদিন থাকার মানসিক ধকল নিতে না পারার কথা জানিয়েছিলেন এই ব্যাটসম্যান।

Comments

The Daily Star  | English

All animal waste cleared in Dhaka south in 10 hrs: DSCC

Dhaka South City Corporation (DSCC) has claimed that 100 percent sacrificial animal waste has been disposed of within approximately 10 hours

1h ago