ইরফান খানের প্রথম প্রয়াণদিন

চলচ্চিত্র দুনিয়ার সবচেয়ে বড় পুরস্কারের আসর অস্কার। সেই আসরে বিশ্বখ্যাত প্রয়াত শিল্পীদের সম্মান দেওয়া হয় একাডেমি অব মোশন পিকচার্স অ্যান্ড সায়েন্সেসের ‘ইন মেমোরিয়াম’ বিভাগে। ৯৩তম আসরে সেখানে দুজন ভারতীয়কে স্মরণ করা হয়েছে। তাদের একজন ইরফান খান।
ইরফান খান। ছবি: স্টার

চলচ্চিত্র দুনিয়ার সবচেয়ে বড় পুরস্কারের আসর অস্কার। সেই আসরে বিশ্বখ্যাত প্রয়াত শিল্পীদের সম্মান দেওয়া হয় একাডেমি অব মোশন পিকচার্স অ্যান্ড সায়েন্সেসের ‘ইন মেমোরিয়াম’ বিভাগে। ৯৩তম আসরে সেখানে দুজন ভারতীয়কে স্মরণ করা হয়েছে। তাদের একজন ইরফান খান।

২০২০ সালের ২৯ এপ্রিল ক্যান্সারে আক্রান্ত ইরফান খান শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মাত্র ৫৩ বছর বেঁচে ছিলেন এই অভিনেতা। মা সাঈদা বেগম মারা যাওয়ার ঠিক তিন দিন পর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন। আজ এই অভিনেতার প্রথম প্রয়াণদিন।

সম্প্রতি ভারতের একটি গণমাধ্যমের সঙ্গে আলাপকালে ইরফান খানের স্ত্রী সুতপা স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন, ‘চট করে ছবির কোনো অনুষ্ঠান, কোনো পার্টিতে যোগ দিতেন না তিনি। কারণ, প্রথাগত কথা, এমনিই প্রশংসা করা- এগুলো তিনি পারতেন না। কোথাও গেলেও একেবারে চুপচাপ থাকতেন। কারণ, তিনি জানতেন, সবাই যেভাবে কথা বলেন তিনি সেটা পারবেন না। এতে হয়তো অনেকেই আঘাত পাবেন। কাউকে কষ্ট দিতে চাইতেন না। কম কথা বলতেন বলে সবাই তাকে প্রচণ্ড অহংকারী ভাবতেন! যদিও বিষয়টি একেবারেই তা নয়।’

প্রথমে অভিনয়ের চেয়ে ইরফান খানের ক্রিকেটের প্রতি মুগ্ধতা বেশি ছিল। তবে জাতীয় দলে খেলার সুযোগ হয়নি তার। ১৯৮৪ সালে তিনি যখন মাস্টার্সের ছাত্র, তখনই ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা দিল্লিতে ভর্তির সুযোগ পেয়ে যান। সেখানে পড়া শেষে মুম্বাইয়ে এসে অভিনয় জীবন শুরু করেন।

প্রথমদিকে অনেক টেলিভিশন ধারাবাহিকে কাজ করেন। এর মধ্যে ‘চাণক্য’, ‘ভারত এক খোঁজ’, ‘সারা জাহান হামারা’, ‘বনেগি আপনি বাত’, ‘চন্দ্রকান্ত’, ‘শ্রীকান্ত’ ও ‘স্পর্শ’ ছিল অন্যতম।

১৯৮৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ইরফান খান অভিনীত প্রথম সিনেমা মীরা নায়ার পরিচালিত ‘সালাম বোম্বে’। ১৯৯০ সালে ‘এক ডক্টর কি মৌত’ সিনেমায় তার অভিনয় দারুণ প্রশংসিত হয়। আসিফ কাপাড়িয়ার ‘দ্য ওয়ারিয়র’ (২০০১) সিনেমার প্রধান চরিত্রে অভিনয়ের পর পশ্চিমা বিশ্বে পরিচিত মুখ হয়ে ওঠেন।

বলিউডে ইরফান খানের গ্রহণযোগ্যতা আরও বাড়িয়ে দেয় ‘হাসিল’ (২০০৩) ও ‘মকবুল’ (২০০৪) সিনেমা দুটি। ‘হাসিল’ ছবিতে সেরা খলনায়ক হিসেবে প্রথম ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জয় করেন। ‘লাইফ ইন আ মেট্রো’ (২০০৭) সিনেমার জন্য ফিল্মফেয়ার সেরা পার্শ্ব অভিনেতার পুরস্কার পান। ‘পান সিং তোমার’ (২০১১) সিনেমায় অভিনয়ের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন।

ফিল্মফেয়ারেও সেরা অভিনেতা (সমালোচক) পুরস্কার পেয়েছিলেন ‘হিন্দি মিডিয়াম’ (২০১৭) সিনেমার জন্য।

বলিউডে ইরফান খানের প্রশংসিত অন্য সিনেমাগুলোর মধ্য রয়েছে ‘রগ’ (২০০৫), ‘দ্য লাঞ্চবক্স’ (২০১৩), ‘গুন্ডে’ (২০১৪), ‘পিকু’ (২০১৫), ‘তালওয়ার’ (২০১৫), ‘হায়দার’ (২০১৪), ‘ব্ল্যাকমেইল’ (২০১৮), ‘অ্যাংরেজি মিডিয়াম’ (২০২০)।

বলিউডের পাশাপাশি হলিউডের সিনেমায় অভিনয় করেছেন ইরফান খান। ‘দ্য নেমসেক’ (২০০৬), ‘দ্য দার্জিলিং লিমিটেড’ (২০০৭), অস্কারজয়ী সিনেমা ‘স্লামডগ মিলিয়নিয়ার’ (২০০৮), ‘নিউইয়র্ক, আই লাভ ইউ’ (২০০৯), ‘দ্য অ্যামেজিং স্পাইডারম্যান’ (২০১২), ‘লাইফ অব পাই’ (২০১২), ‘জুরাসিক ওয়ার্ল্ড’ (২০১৫) এবং ‘ইনফারনো’ (২০১৬)।

বাংলাদেশের মোস্তফা সরয়ার ফারুকী পরিচালিত ‘ডুব’ সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি। সিনেমাটি ২০১৭ সালে মুক্তি পায়। মুক্তির সাড়ে তিন বছর পর ফেব্রুয়ারি থেকে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্সে দেখা যাচ্ছে সিনেমাটি।

১৯৬৭ সালের ৭ জানুয়ারি ভারতের জয়পুরে জন্ম নিয়েছিলেন ইরফান খান।

Comments

The Daily Star  | English
Will the Buet protesters’ campaign see success?

Ban on student politics: Will Buet protesters’ campaign see success?

One cannot help but note the irony of a united campaign protesting against student politics when it is obvious that student politics is very much alive on the Buet campus

8h ago