শেষ হচ্ছে নিষেধাজ্ঞা, ভোররাত থেকে ইলিশ ধরা শুরু

মা ইলিশের নিরাপদ বিচরণ নিশ্চিত করতে সাগরের মোহনা এবং ইলিশ চলাচলকারী নদ-নদীতে মাছ ধরায় দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে। আজ শুক্রবার দিবাগত রাত থেকে মাছ ধরতে নদীতে নামবেন জেলেরা।
চাঁদপুর সদরের বহরিয়া এলাকার জেলেরা মাছ ধরতে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ছবি: আলম পলাশ/স্টার

মা ইলিশের নিরাপদ বিচরণ নিশ্চিত করতে সাগরের মোহনা এবং ইলিশ চলাচলকারী নদ-নদীতে মাছ ধরায় দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে। আজ শুক্রবার দিবাগত রাত থেকে মাছ ধরতে নদীতে নামবেন জেলেরা।

চাঁদপুরের সদর উপজেলার বহরিয়া এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, নৌকা আর জাল মেরামত করে নদীতে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছেন জেলেরা।

জাতীয় মাছ ইলিশ রক্ষায় জাটকা নিধন প্রতিরোধ কর্মসূচির আওতায় মার্চ ও এপ্রিলজুড়ে চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনা নদীর ৭০ কিলোমিটার এলাকায় সব ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছিল সরকার। এই সময়ে মাছ ধরা, পরিবহন, বিক্রি ও মজুদ সম্পূর্ণভাবে নিষিদ্ধ ছিল।

জেলা মৎস্য অফিস সূত্র জানায়, এ সময় জেলার চাঁদপুর সদর, হাইমচর, মতলব উত্তর ও মতলব দক্ষিণ উপজেলার  ৪০ হাজার পাঁচ জন জেলের পরিবারকে ৪০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়।

চাঁদপুর জেলা মৎস্য কর্মকর্তা আসাদুল বাকি দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, দুমাসের নিষেধাজ্ঞার পর আজ রাত থেকে নদীতে নামবেন জেলেরা। তবে আগেও কিছু অসাধু জেলে জাটকা ধরেছেন। এরপরও আমরা আশাবাদী, নদীতে প্রচুর ইলিশ রয়েছে।

চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, জাটকা রক্ষায় টাক্সফোর্স, নৌ-পুলিশ, কোস্টগার্ড ও মৎস্য বিভাগের যৌথ এবং পৃথক দল দুই মাসে ৫৫৮টি অভিযান চালিয়েছে। এ সময় তিন শ জেলেকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া, সাড়ে চার শ শিশু-কিশোর জেলেকে জরিমানা এবং দুই কোটি মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করে ধ্বংস করা হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English
battery-run rickshaws in Dhaka

Banning rickshaws may not be the big traffic solution

Dhaka’s traffic is a complicated problem that needs multifaceted efforts to combat it.

1h ago