পশ্চিমবঙ্গ থেকে বামেরা হারিয়েই গেল!

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের চতুর্থ রাউন্ডের গণনা চলছে। বামেদের অভাবনীয় বিপর্যয়ের সম্ভাবনা ক্রমেই প্রবল হচ্ছে।
ছবি: সংগৃহীত

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের চতুর্থ রাউন্ডের গণনা চলছে। বামেদের অভাবনীয় বিপর্যয়ের সম্ভাবনা ক্রমেই প্রবল হচ্ছে।

মহাম্মদ সেলিম, সুজন চক্রবর্তী, অশোক ভট্টাচার্য, আভাস রায়চৌধুরী, সুশান্ত ঘোষের মতো হেভিওয়েট বাম প্রার্থীরা গণনা যত এগোচ্ছে, তত পিছিয়ে পড়ছেন।

ঐশী ঘোষ, সৃজন ভট্টাচার্য, দীপ্সিতা ধর, সায়নদীপ মিত্র প্রমুখ নবীন প্রজন্মের বাম কর্মীরাও এবারের ভোটে কোনরকম আলোচনাতেই উঠে আসছেন না, সেই ছবিটা ক্রমশই পরিষ্কার হচ্ছে।

প্রচার পর্বে বামেরা অনেকটা দাগ কাটতে পারলেও বাম কর্মী-সমর্থকদের ভোট তারা নিজেদের পক্ষে ধরে রাখতে পেরেছেন কি না, এই প্রশ্ন ক্রমেই তীব্র হচ্ছে। এই প্রশ্নও রয়েছে যে, ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটে একটা বড় অংশের বামপন্থি কর্মী-সমর্থকেরা বিজেপির প্রতি সমর্থন দেখিয়েছিল, সেই অংশের একটা বড় অংশের মানুষ কি বিধানসভাতে তৃণমূলকে ভোট দিয়েছে?

কংগ্রেসের সঙ্গে বামেদের সমঝোতার নিরিখে এই প্রশ্নটা তীব্র হচ্ছে যে, উভয় দলই কি আন্তরিকভাবে ভোট শেয়ারিং করেছে?

ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টকে (আইএসএফ) ঘিরে ভোটের প্রচারপর্বে যে ধরনের আবেগ তৈরি হয়েছিল, ভোটবাক্সে সেটি যে রূপান্তরিত হয়নি— তা এখনই স্পষ্ট করে বলা যায়।

একটা বড় অংশের বামপন্থি, যাদের ভেতরে গত ১০ বছরে সাম্প্রদায়িক মেরুকরণ হয়েছিল, ২০২০ সালের লকডাউন ঘিরে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘ (আরএসএস) ও বিজেপির মুসলমান বিদ্বেষের প্রভাব অনেকটাই পড়েছিল, তারা মুখে ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বললেও আব্বাস সিদ্দিকির সঙ্গে বামেদের জোটকে কতোটা মন থেকে মেনে সেই অনুযায়ী ভোট দিয়েছিল— সেই প্রশ্নটাও ক্রমশঃ তীব্র হতে শুরু করেছে।

এই জোট তৈরির ক্ষেত্রে যেহেতু মহাম্মদ সেলিমের একটা বিশেষ ভূমিকা ছিল, তাই একটা বড় অংশের বাম কর্মী-সমর্থকদের ভেতর থেকেও সেলিমের বিরুদ্ধে অরাজনৈতিক অভিযোগ ওঠার সম্ভাবনা প্রবল হচ্ছে।

মীনাক্ষী, সৃজন, ঐশী, দীপ্সিতা প্রমুখ নয়া প্রজন্মের রাজনৈতিক কর্মী ও শতরূপ ঘোষের মতো হারার হাটট্রিক করা লোকেরা বাম আন্দোলনে নেতৃত্ব দেওয়ার প্রশ্নে কতখানি পরিপূর্ণতা অর্জন করতে পেরেছে— এই প্রশ্নটি ভোটের সময়েই ওঠতে শুরু করেছিল। ভোটের পর এই প্রশ্ন আরও তীব্র হবে।

বিমান বসুর মতো বর্ষীয়ান নেতা মীনাক্ষী মুখার্জীর জনপ্রিয়তার তুলনা করেছিলেন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের সঙ্গে। এই ধরনের তুলনা কতটা আত্মতৃপ্তির পরিবেশ সৃষ্টি করেছিল সেই প্রশ্নটিও তীব্র হতে শুরু করেছে।

আরও পড়ুন:

পশ্চিমবঙ্গ: তারকা প্রার্থীদের কে এগিয়ে কে পিছিয়ে

পশ্চিমবঙ্গ: ভোটের প্রবণতা তৃণমুলের পক্ষে

পশ্চিমবঙ্গ: হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের ইঙ্গিত

পশ্চিমবঙ্গ: তৃণমূল-বিজেপি লড়াই সমানে সমান

Comments

The Daily Star  | English
bangladesh budget 2024-25 plan

Fixed expenses to eat up 40pc of next budget

The government has to spend about 40 percent of the next budget on subsidies, interest payments, and salaries and allowances of government employees, which will limit its ability to spend on social safety net, health and education.

11h ago