মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিট

এমবিবিএস ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার প্রকাশিত মেধাতালিকা ‘ত্রুটিপূর্ণ’ উল্লেখ করে ভর্তি প্রক্রিয়া বন্ধে হাইকোর্টের আদেশ চেয়ে রিট করা হয়েছে।
MBBS_Doctor
ছবি: সংগৃহীত

এমবিবিএস ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার প্রকাশিত মেধাতালিকা ‘ত্রুটিপূর্ণ’ উল্লেখ করে ভর্তি প্রক্রিয়া বন্ধে হাইকোর্টের আদেশ চেয়ে রিট করা হয়েছে।

২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ‘অকৃতকার্য’ হওয়া ৩২৪ জন শিক্ষার্থীর পক্ষে আজ সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হুমায়ুন কবীর পল্লব রিট আবেদন করেন।

প্রকাশিত মেধাতালিকা ‘ত্রুটিপূর্ণ’ উল্লেখ করে তা বাতিল এবং উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষার মাধ্যমে নতুন করে মেধাতালিকা তৈরি করার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে।

আবেদনে বলা হয়েছে, মেধাতালিকা তৈরির সময় কর্তৃপক্ষ যথাযথ নিয়ম অনুসরণ করেনি। যারা ইতিমধ্যে এমবিবিএস শিক্ষার্থী হিসেবে কোথাও ভর্তি হয়ে আছেন, তারা আবার ভর্তি পরীক্ষা দিলে মেধা তালিকা তৈরির সময় তাদের মোট নাম্বার থেকে সাড়ে সাত নাম্বার কেটে নেওয়ার কথা। আগের বছর যারা এইচএসসি পাশ করেছেন (দ্বিতীয়বারের পরীক্ষার্থী) তাদের মোট নাম্বার থেকে পাঁচ নাম্বার কেটে নেওয়ার বিধান থাকলেও মেধা তালিকা তৈরির সময় এই দুই বিধানের কোনোটাই মানা হয়নি।

গত ৪ এপ্রিল মেডিকেল শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিজিএমই) এমবিবিএস ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করে। প্রকাশিত ফল অনুযায়ী, দেশের ৪৭টি সরকারি ও ৭০টি বেসরকারি মেডিকেল কলেজের মোট ১২ হাজার ৬৯০টি আসনের বিপরীতে ৪৮ হাজার ৯৭৫ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হন।

সবগুলো সরকারি মেডিকেল কলেজে আসন রয়েছে ৪ হাজার ৩৫০টি এবং বেসরকারি মেডিকেল কলেজগুলোর আসন সংখ্যা ৮ হাজার ৩৪০। ২ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এই পরীক্ষায় মোট ১ লাখ ১৬ হাজার ৭৯২ জন অংশ নেন।

এর আগে গত ১১ মে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিল চেয়ে ২৪৮ জন পরীক্ষার্থীর পক্ষে সরকারকে আইনি নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির পল্লব ও মোহাম্মদ কাওছার। স্বাস্থ্য সচিব, শিক্ষা সচিব এবং স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিদপ্তর ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর ই-মেইল ও কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়।

Comments