এডিস মশার প্রজননে ভূমিকা রাখলে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা: স্থানীয় সরকারমন্ত্রী

নগরবাসীকে বারবার বলার পরেও ইচ্ছাকৃতভাবে বাসা-বাড়ি এবং আশপাশে পানি জমিয়ে রেখে এডিস মশার প্রজননে ভূমিকা রাখলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সতর্ক করেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।
Tajul_Islam_22May21.jpg
স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম | ছবি: সংগৃহীত

নগরবাসীকে বারবার বলার পরেও ইচ্ছাকৃতভাবে বাসা-বাড়ি এবং আশপাশে পানি জমিয়ে রেখে এডিস মশার প্রজননে ভূমিকা রাখলে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে সতর্ক করেছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

আজ শনিবার সকালে রাজধানীর মিরপুরে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) আয়োজিত ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগ প্রতিরোধে সচেতনতা অভিযান কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, সিটি করপোরেশনের পক্ষে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে মশা নিধন করা কঠিন। তাই মাঠে-ময়দানে প্রচারণা চালিয়ে মানুষকে সচেতন করা হচ্ছে। একজন মানুষের গাফলতির কারণে পুরো সমাজ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে না। আর এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তাই মশার প্রজননস্থল ধ্বংস না করলে দুই সিটি করপোরেশন থেকে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তাজুল ইসলাম বলেন, মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় দুই সিটি করপোরেশনে ইতোমধ্যে ১০ জন করে ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগে দেওয়া হয়েছে। সব মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করলে এই এডিস মশা নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হবে না। বৃষ্টি হলে ছাদে পানি জমে। ফুলের টবে, টায়ার ও টিউবে পানি জমে। তাই বাড়ির আঙিনাসহ আশেপাশে আসবাবপত্রের মধ্যে যাতে পানি জমে না থাকে সে জন্য সতর্ক থাকতে হবে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও সিটি করপোরেশনের সমন্বয়ে নগরবাসীকে সঙ্গে নিয়ে সব ধরনের মশা নিয়ন্ত্রণে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সমবায়মন্ত্রী সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ এবং বেশ কয়েকটি বাসা-বাড়ি পরিদর্শন করেন। এডিস মশার প্রজননস্থল থাকায় স্টিকার লাগিয়ে দেন এবং মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ প্রদান দেন।

এ সময় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ ও নাট্য অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

Comments

The Daily Star  | English

Create right conditions for Rohingya repatriation: G7

Foreign ministers from the Group of Seven (G7) countries have stressed the need to create conditions for the voluntary, safe, dignified, and sustainable return of all Rohingya refugees and displaced persons to Myanmar

7h ago