দুই বছর পর সাকিব, তামিমদের নাও পাওয়া যেতে পারে!

বয়স, ছন্দ, ফিটনেস নানান বাস্তবতায় এদের সবার ক্যারিয়ারই আছে সমাপ্তির দিকে। আগামীর চিন্তা তাই পেয়ে বসেছে বাংলাদেশের কোচকে।
Russell Domingo & Shakib Al Hasan
অভিজ্ঞ সাকিব আল হাসানের সঙ্গে আলাপ করছেন কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বাংলাদেশের ওয়ানডে দলকে অভিজ্ঞতায় ঋদ্ধ করেছেন চার সিনিয়র তারকা। সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম, তামিম ইকবাল ও মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ মিলেই খেলে ফেলেছেন ৮৪০ ওয়ানডে। তবে ৩৪ পেরিয়ে যাওয়া এই তারকাদের আর দুই বছর পর পাওয়া যাবে, এমন নিশ্চয়তা দেখছেন না বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো।

অফিসিয়াল বয়েসে ৩৫ পেরিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ। সাকিব, মুশফিক দুজনেই পেরিয়েছেন ৩৪। তামিম আছেন ৩৩-এর ঘরে।

বয়স, ছন্দ, ফিটনেস নানান বাস্তবতায়  এদের সবার ক্যারিয়ারই আছে সমাপ্তির দিকে।  আগামীর চিন্তা তাই পেয়ে বসেছে বাংলাদেশের কোচকে। শনিবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বললেন, এই সিরিজে তরুণদের আলোয় আসতে দেখতে চান তিনি, ‘মুশফিক, রিয়াদ, তামিম, সাকিবের মতো অভিজ্ঞ কয়েকজন খেলোয়াড় আছে আমাদের। কিন্তু তরুণদের সুযোগ দেওয়াটা সব সময় গুরুত্বপূর্ণ। কারণ অভিজ্ঞরা আজীবন থাকবে না।  আশা করি আফিফের মতো তরুণ এই সিরিজে একটা প্রভাব ফেলতে পারবে।’

তরুণদের সুযোগ দেওয়ার কথা মুখে বললেও বাস্তবতা হাঁটে ভিন্ন পথে। ঘরের মাঠে সর্বশেষ সিরিজে প্রথম দুই ওয়ানডে জিতে সিরিজ নিশ্চিত করার পরও শেষ ম্যাচে মূল দলই খেলিয়েছিল বাংলাদেশ। নিউজিল্যান্ডেও শরিফুল ইসলামদের মতো তরুণ পেসাররা সুযোগের অপেক্ষায় থেকেছেন কেবল। দুই বছর ধরেই বিভিন্ন সংস্করণে দলে থেকেও সুযোগ মেলেনি ইয়াসির আলি রাব্বির।

ওয়ানডে সুপার লিগের খেলা বলেই সিরিজ জিতে গেলেও এখন ঝুঁকি নিতে চায় না বাংলাদেশ। তবে ডমিঙ্গো এবার বললেন জেতাটা গুরুত্বপূর্ণ হলেও একইসঙ্গে আগামীর কথা ভাবতে হচ্ছে তাদের,  ‘জেতাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু আমাদের সামনের দিকেও তাকাতে হবে। মাঝে মাঝে আমাদের এটা ভাবতে হবে, খালি পেছনে দেখলে হবে না। আমাদের সামনের দিকে তাকাতে হবে। এটা গুরুত্বপূর্ণ সিরিজ, পয়েন্ট নেওয়াটাও জরুরি। আবার দলকে গড়ে তোলাটাও সমানভাবে গুরুত্বপূর্ণ। হয়ত দুই বছর পর সাকিব,তামিম, রিয়াদ ও মুশফিককে পাওয়া নাও যেতে পারে। কিছু খেলোয়াড় তাই এরমধ্যে তৈরি করে রাখা লাগবে।’

Comments

The Daily Star  | English
illegal footpath occupation in Dhaka

Dhaka footpaths, a money-spinner for extortionists

On the footpath next to the General Post Office in the capital, Sohel Howlader sells children’s clothes from a small table.

11h ago