'কান্তেই বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার'

বর্তমান বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার কে? এমন প্রশ্নে কেভিন ডি ব্রুইন, টনি ক্রুস, লুকা মদ্রিচ, ব্রুনো ফার্নান্দেজদের নাম উঠে আসে। তবে অসাধারণ পারফরম্যান্স করে বরাবরই কিছুটা আড়ালে থেকে যান চেলসির ফরাসি মিডফিল্ডার এনগোলো কান্তে। তবে এ ফরাসি তারকা যে দলের জন্য কতোটা কার্যকরী তা খুব ভালো করেই জানেন চেলসি অধিনায়ক সিজার আজপিলিকুয়েতা। তার কাছে কান্তেই বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার।
ছবি: সংগৃহীত

বর্তমান বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার কে? এমন প্রশ্নে কেভিন ডি ব্রুইন, টনি ক্রুস, লুকা মদ্রিচ, ব্রুনো ফার্নান্দেজদের নাম উঠে আসে। তবে অসাধারণ পারফরম্যান্স করে বরাবরই কিছুটা আড়ালে থেকে যান চেলসির ফরাসি মিডফিল্ডার এনগোলো কান্তে। তবে এ ফরাসি তারকা যে দলের জন্য কতোটা কার্যকরী তা খুব ভালো করেই জানেন চেলসি অধিনায়ক সিজার আজপিলিকুয়েতা। তার কাছে কান্তেই বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার।

পোর্তোয় আগের দিন ইংলিশ চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটিকে ১-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা উঁচিয়ে ধরেছে চেলসি। দলের জয়ের মূল কৃতিত্বই ছিল কান্তের। বল যেখানে ছিল যেন সেখানেই ছিলেন তিনি। প্রতিপক্ষের পা থেকে বল কেড়ে নিয়েছেন অসংখ্য বার। সবমিলিয়ে তাই পেয়েছেন ম্যাচ সেরার পুরষ্কারও।

আর কান্তের এমন পারফরম্যান্স দেখে মুগ্ধ আজপিলিকুয়েতা 'হ্যাঁ, কান্তেই বিশ্বের সেরা মিডফিল্ডার। সে সব কিছু করেছে। যে শক্তি নিয়ে সে আসে, আমি জানি না আজ সে কতবার বল পুনরুদ্ধার করেছে। সে যেভাবে বলে ড্রাইভ করে সে পুরো মাঠ কভার করে দেয়। তাকে দলে পাওয়া সত্যিই বিশেষ কিছু। অবশ্যই, যখন আমরা তাকে না পাই তখন আমরা তাকে মিস করি। বিশ্বকাপ জয়ের পর এখন সে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের স্বাদও পেল, এবং এখনও সে একজন ব্যক্তি হিসেবে অনেক নম্র।'

কান্তের সতীর্থ হতে পেরে তাই দারুণ উল্লসিত অধিনায়ক। এছাড়া দলের তরুণদের এগিয়ে আসায়ও সন্তুষ্ট তিনি, 'আমি ওর জন্য অনেক খুশি, ও এই দলের বিশাল একটি অংশ এবং আমি আগামী কয়েক বছরের জন্য তাকে আমার পাশে পেয়ে খুব খুশি। আমার জন্য, এটা আজ রাতের সবচেয়ে সন্তোষজনক বিষয়। টিমো, ম্যাসন, কাই, ক্রিস্টিয়ানদের মতো তরুণরা এগিয়ে এসেছে এবং দলের জন্য তারা যে কাজ করেছে তা অবিশ্বাস্য। তারা একটি গ্রুপ ও দল হিসাবে পদক্ষেপ নিয়েছে। আমরা এটিকে তৈরি করে বিশেষ কিছুতে পরিণত করতে চাই।'

কান্তের খেলা দেখে মুগ্ধ দলটির সাবেক তারকা জো কোলও, 'আমি ক্লদ ম্যাকেলেলের সঙ্গে খেলেছি। এই ছেলেকে (কান্তে) দেখার আগ পর্যন্ত আমি ম্যাকেলেলেকেই মনে করতাম চেলসির সেরা মিডফিল্ডার। কিন্তু সে ম্যাকেলেলেকেও ছাড়িয়ে গেছে। গোলের সামনে স্ট্রাইকারের যেমন গোল করার বাসনাটা থাকে, মাঝমাঠে কান্তে সে রকমই। গুন্দোগান, সিলভা ও ফোডেন ম্যাচের ছন্দটা ধরতেই পারেনি, যেটি কান্তে পেরেছে।'

এ ফরাসিকে সেরা মানছেন চেলসির আরেক সাবেক তারকা রামিরেসও। এমনকি কান্তের হাতে ব্যালন ডি'অর দেখছেন তিনি, 'সে খুব ঠাণ্ডা মাথার খেলোয়াড়। রক্ষণ, মাঝমাঠ, আক্রমণভাগ—মাঠের সব জায়গায় থাকে সে। সে বিশ্বসেরাদের একজন। একজন ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডারের পক্ষে ব্যালন ডি'অর জেতা কঠিন। তবে ব্যালন ডি'অর তারই প্রাপ্য। সে যদি ২০২০ ইউরো জেতে তাহলে আমি বলব ব্যালন ডি'অর সেই পাবে।'

Comments

The Daily Star  | English

How Lucky got so lucky!

Laila Kaniz Lucky is the upazila parishad chairman of Narsingdi’s Raipura and a retired teacher of a government college.

4h ago