মেজর সিনহা হত্যা মামলা: সাবেক ওসি প্রদীপের জামিন শুনানি ২৭ জুন

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার অন্যতম আসামি টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাবেক উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দ দুলাল রক্ষিত আদালতে জামিন চেয়ে আবেদন করেছেন।
টেকনাফ থানার বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপ কুমার দাশ। ছবি: সংগৃহীত

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলার অন্যতম আসামি টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাবেক উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দ দুলাল রক্ষিত আদালতে জামিন চেয়ে আবেদন করেছেন।

আদালত তাদের আবেদন আমলে নিয়ে জামিন শুনানির জন্য আগামী ২৭ জুন রোববার দিন ধার্য করেছেন।

কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) ফরিদুল আলম দ্য ডেইলি স্টারকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আজ রোববার দুপুর সোয়া ১২টায় কক্সবাজার জেলা দায়রা জজ মো. ইসমাঈল হোসেন জামিন শুনানির জন্য এ দিন ধার্য করেন।’

অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যা মামলার এজাহারে সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ২ নম্বর এবং সাবেক এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিত ৩ নম্বর আসামি।

পিপি ফরিদুল আলম বলেন, ‘অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত অন্যতম আসামি টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ও বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাবেক উপপরিদর্শক (এসআই) নন্দ দুলাল রক্ষিত আজ তাদের আইনজীবীর মাধ্যমে জামিন চেয়ে আদালতে আবেদন করেন। আদালত আবেদনটি আমলে নিয়ে আগামী ২৭ জুন জামিন শুনানির দিন নির্ধারণ করেছেন।’

আসামিপক্ষের আইনজীবী রানা দাশগুপ্ত বলেন, ‘আসামি সাবেক ওসি প্রদীপ ও সাবেক এসআই নন্দ দুলালের জামিন চেয়ে প্রথমে গত ১০ জুন আদালতে আবেদন জানানো হয়েছিল। কিন্তু, ওইদিন আদালতে নথি উপস্থাপন না হওয়ায় শুনানির দিন ধার্য করা হয়নি। আজ রোববার এ নিয়ে পুনরায় আদালতে আবেদন করা হয়। এতে আদালত আবেদনটি আমলে নিয়ে শুনানির জন্য আগামী ২৭ জুন দিন ধার্য করেছেন। মামলার এজাহারে ও চার্জশিটে আসামি প্রদীপের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে তাতে তথ্যের পরস্পর বিরোধিতা আছে। এতে প্রদীপ নির্দোষ প্রমাণিত হবে। এ নিয়ে আদালতে যুক্তি-তর্ক জোরালোভাবে উপস্থাপন করে জামিন মঞ্জুরের আবেদন জানানো হবে।’

গতবছর ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এপিবিএন চেকপোস্টে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

এ ঘটনায় ৫ আগস্ট তার বোন শারমিন শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে বাহারছড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের সাবেক ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক লিয়াকত আলী এবং টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ পুলিশের ৯ সদস্যকে আসামি করে মামলা করেন। আদালত মামলাটির তদন্তভার দেন র‌্যাবকে।

পরদিন ৬ আগস্ট ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ৭ পুলিশ সদস্য আদালতে আত্মসমর্পণ করেন এবং আদালতে তাদের জেল-হাজতে পাঠান। পরে শামলাপুর চেকপোস্টে দায়িত্ব পালনকারী আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) তিন সদস্য এবং সিনহা হত্যার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা টেকনাফ থানার মামলার সাক্ষী স্থানীয় তিন জন বাসিন্দাকে আসামি দেখিয়ে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার আসামিদের মধ্যে সাবেক ওসি প্রদীপ ও কনস্টেবল রুবেল শর্মা ছাড়া অপর ১২ জন আসামি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

এ হত্যা মামলায় গত ১৩ ডিসেম্বর তদন্তকারী কর্মকর্তা র‍্যাবের জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম ওসি প্রদীপসহ ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট জমা দেন। এতে টেকনাফ থানার সাবেক দুই পুলিশ কনস্টেবলকে নতুন করে আসামি করা হয়। তারা হচ্ছেন- কনস্টেবল সাগর দেব ও কনস্টেবল রুবেল শর্মা।

পরে র‌্যাব কনস্টেবল রুবেল শর্মাকে গ্রেপ্তার করলেও কনস্টেবল সাগর দেব পলাতক আছেন।

প্রায় নয় মাস আগে দুদকের একটি মামলায় হাজিরা দিতে গত ১২ সেপ্টেম্বর ওসি প্রদীপকে কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম কারাগারে নেওয়া হয়েছিল। এরপর গত ১০ জুন তাকে চট্টগ্রাম থেকে পুনরায় কক্সবাজার জেলা কারাগারে নেওয়া হয়।

আরও পড়ুন:

Comments

The Daily Star  | English

Nuke war risks ‘real’: Putin

The Russian president warns of 'destruction of civilisation' if the West escalates the conflict in Ukraine

22m ago