রনির ফিফটি, শরিফুলের ৩ শিকারে শীর্ষেই প্রাইম ব্যাংক

বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির ম্যাচে প্রাইম ব্যাংক জিতেছে ২২ রানে
Rony Talukder & Tamim Iqbal
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

তামিম ইকবাল, মোহাম্মদ মিঠুনদের অনুজ্জ্বল দিনে প্রাইম ব্যাংকের ত্রাণকর্তা হলেন রনি তালুকদার। তার ফিফটিতে দেড়শোর কাছাকাছি পুঁজি পেল তারা। পরে ওই রান নিয়ে শরিফুল ইসলাম, অলক কাপালিদের দারুণ বোলিংয়ে গুঁড়িয়ে দিল ওল্ড ডিওএইচএসকে।

বিকেএসপির ৩ নম্বর মাঠে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির ম্যাচে প্রাইম ব্যাংক জিতেছে ২২ রানে। আগে ব্যাট করে  রনির ৩৯ বলে ৫৪ রানে ১৪৭ করেছিল তারা। জবাবে ১২২ রানেই থেমেছে ডিওএইচএসের ইনিংস। দলকে জেতাতে ২৩ রানে ৩ উইকেট নেন পেসার শরিফুল। লেগ স্পিন দিয়ে অলক ১৯ রানে তুলেন ২ উইকেট। বাঁহাতি স্পিনে মনির হোসেন ১৭ রানে পেয়েছেন ২ উইকেট।

এই জয়ে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে থেকে গেল শিরোপা প্রত্যাশী প্রাইম।

সোমবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ভাল শুরু পেয়েছিল প্রাইম। যদিও তামিম একটু মন্থর খেলায় রানের গতি ছিল না প্রত্যাশিত। ৮ম ওভারে দলের ৫১ রানে প্রথম উইকেট হারায় তারা। ২৮ বলে ২৫ রান করে মোহাইমিনুল হকের বলে স্টাম্পিং হয়ে ফেরেন তামিম।

এরপর এনামুল হক বিজয়কে নিয়ে দ্রুত রান আনতে থাকেন রনি। দলের ৯৮ রানে পড়ে দ্বিতীয় উইকেট। ৩৯ বলে ৫ চার, ৩ ছক্কায় ৫৪ করে রনি থামেন রাকিবুল হাসানের স্পিনে। ১৭ বলে ১৫ করে অধিনায়ক বিজয়ও ফেরেন পরের বলেই।

পর পর দুই উইকেট পড়লে দায়িত্ব আসে মিঠুনের কাঁধে। কিন্তু অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি। তিনি আউট হন ১২ বলে ১৬ রান করে।

এরপর নাহিদুল ইসলাম ৭ বলে ৯, অলক ৭ বলে ১২ রান করলে দেড়শো কাছে যেতে পারে তাদের ইনিংস।

১৪৮ রান তাড়ায় নেমে প্রাইমের বোলারদের সামনে কখনই ম্যাচে ছিল না ডিওএইচএস। ২৬ রানেই ২ ওপেনারকে হারিয়ে ফেলে তারা। রান তোলাতেও মন্থর হয়ে পড়ে তাদের পথচলা।

ছন্দে থাকা মাহমুদুল হাসান জয় ২৬ রান করলেও লাগিয়েছেন ২৭ বল। রায়ান রাফসান ২১ করেন ২১ বলে। কিপার ব্যাটসম্যান প্রিতম কুমার নেমে কিছুটা ইতিবাচক অ্যাপ্রোচ দেখিয়েছিলেন। তার ইনিংসও ছোট্ট। ১২ বলে ১৯ করে তিনি শিকার শরিফুলের।

একশোতে যাওয়ার আগেই ৭ উইকেট হারিয়ে বসা ডিওএইচএস খেলা শেষের অনেক আগেই নিশ্চিত হারের দিকে চলে গেলে ম্যাচে ছিল না কোন উত্তাপ।

লো স্কোরিং ম্যাচে দোলেশ্বরের জয়

বিকেএসপির আরেক মাঠে সকালের ম্যাচ ছিল লো স্কোরিং। টস হেরে আগে ব্যাট করতে গিয়ে প্রাইম দোলেশ্বর করতে পারে মাত্র ১১৮ রান।  পরিস্থিতির দাবিতে বিপদে পড়া দলকে বাঁচান ফজলে মাহমুদ। এই বাঁহাতি ৩৮ বলে ২৯ করলে তিন অঙ্ক পেরোয় তারা। ১২ বলে ১৭ করে অবশ্য তাতে অবদান শামীম হোসেন পাটোয়ারিরও।

সহজ রান তাড়ায় ২০ ওভার খেলেও মাত্র ১০৮ রান করতে পেরেছে লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ। মন্থর উইকেটে তাদের হয়ে ওপেনার আজমির আহমেদ ১৯ বলে ২৩ আর আল-আমিন জুনিয়র করেন ৩৩ বলে ৩০ রান।

দোলেশ্বরের হয়ে কামরুল ইসলাম রাব্বি ১৫ রানেই পেয়েছেন ৩ উইকেট। এই জয়ে আবাহনীকে টপকে আপাতত পয়েন্ট টেবিলের দুইয়ে উঠল প্রাইম দোলেশ্বর।

 

 

 

Comments

The Daily Star  | English

Int’l bodies fail to deliver when needed: PM

Though there are many international bodies, they often fail to deliver in the time of crisis, said Prime Minister Sheikh Hasina

1h ago