ব্রাদার্সকে সহজেই হারাল তামিম, মিঠুনদের দল

মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ৬ উইকেটে জিতেছে প্রাইম। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা দলটি ১৬ পয়েন্ট নিয়ে নিজেদের অবস্থান আরও সংহত করল।
Tamim Iqbal
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বৃষ্টিবিঘ্নিত ম্যাচ নেমে এসেছিল ১২ ওভারে। তাতে খুব একটা চ্যালেঞ্জ দাঁড় করাতে পারল না ব্রাদার্স ইউনিয়ন। সহজ সমীকরণ মেলাতে গিয়েও অবশ্য শেষ ওভার পর্যন্ত ব্যাট করতে হয়েছে প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবকে।

মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ৬ উইকেটে জিতেছে প্রাইম। পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা দলটি ১৬ পয়েন্ট নিয়ে নিজেদের অবস্থান আরও সংহত করল।

আগে ব্যাট করে ১২ ওভারে ব্রাদার্স ৩ উইকেটে করে ৭৪ রান। ডি/এল মেথডে ১২ ওভারে প্রাইমের লক্ষ্য ছিল ৮৪ রানের। মোহাম্মদ মিঠুনের ২২ বলে ২৮ ও তামিম ইকবালের ২৬ বলে ২৯ রানে জয় ভর করে তীরে ভিড়ে তারা।

৮৪ রান করতে নেমে প্রথম ওভারেই কোন রান না করে ফেরেন রনি তালুকদার। তাকে ফেরানো আলাউদ্দিন বাবু পরে শিকার করেন এনামুল হক বিজয়কেও। তবে  তিনে নেমে এনামুল ঝড় তোলার আভাস দিয়েছিলেন। কিন্তু বড় করতে পারেননি ইনিংস। প্রাইম অধিনায়ক ৮ বলে ১৫ করলেও ম্যাচের প্রেক্ষিতে সেটা বেশ কার্যকর।

তামিম খেলছিলেন বরাবরই মতই কিছুটা ঢিমেতালে। অন্যদিকে মিঠুনের ব্যাটে ছিল দ্যুতি। দ্রুত রান আনতে থাকেন তিনিই। ২৬ বলে ২৯ রান করে তামিম পুল করতে গিয়ে ধরা পড়েন আলাউদ্দিন বাবুর বলে।

ম্যাচের অন্তিম অবস্থায় গিয়ে রাহাতুল ফেরদৌস মিঠুনকে ফেরালেও তখন অনেকটা দেরি হয়ে গেছে।

এর আগে অধিনায়ক মিজানুর রহমান ১৩ রান করে ফেরার পর মন্থর হয়ে যায় ব্রাদার্সের ইনিংস। জুনায়েদ সিদ্দিকী (২৮ বলে ২৪ রান) আনতে পারেননি কার্যকর ঝড়। শেষ দিকে মাইশুকুর রহমান ১২ বলে ১৫, আর  ৫ বলে ১৪ করে দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন আলাউদ্দিন। পরে বোলিংয়েও ১৯ রানে ৩ উইকেট নিয়ে রাখেন অবদান।

তবে ব্রাদার্সের ইনিংস বেশি বাড়তে না দিয়ে ২৪ রানে ২ উইকেট নিয়ে প্রাইম ব্যাংকের সেরা ছিলেন শরিফুল ইসলাম। রান আটকে দেওয়ার কাজটা দারুণভাবে করেছেন নাহিদুল ইসলাম, নাঈম হাসানরা। 

Comments

The Daily Star  | English

Baily Road Fire: At least 65 rescued

10 hurt after jumping out of the building

2h ago