সুপার ওভারের রোমাঞ্চ জিতে সুপার লিগে মোহামেডান

এই জয়ে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির সুপার লিগ নিশ্চিত করল সাকিব আল হাসানকে ছাড়া না খেলতে নামা মোহামেডান।

ম্যাচ জিততে শেষ ওভারে ৬ রান দরকার ছিল খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির। আবু জায়েদ রাহির ওই ওভারে তারা নিতে পারল ৫ রান। ম্যাচ গড়াল সুপার ওভারে। তাতে গিয়ে ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি পেয়েছে রোমাঞ্চকর জয়।

সুপার ওভারে ১৩ রান করেছিল খেলাঘর। আব্দুল মজিদ, ইরফান শুক্কুর মিলে ১ বল আগেই তুলে নেন ১৪ রান। এই জয়ে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ টি-টোয়েন্টির সুপার লিগ নিশ্চিত করল সাকিব আল হাসানকে ছাড়া না খেলতে নামা মোহামেডান। 

বিকেএসপিতে এদিন বৃষ্টিতে খেলা শুরু হতে দেরি হলো। শুরু হওয়ার পরও বাধা পেল। ম্যাচ নেমে এলো ১০ ওভারে। তাতে আব্দুল মজিদের একার লড়াইয়ে ৯ উইকেটে ৮৮ রানের পুঁজি পেয়েছিল মোহামেডান। জবাবে ৫ উইকেটে ৮৮ রানে থামে খেলাঘরও।

অথচ রান তাড়ায় জহুরুল ইসলামের ১৫ বলে ২৮, মাসুম খান টুটুলের ১৭ বলে অপরাজিত ৩৩ রানে জয়ের  একদম কাছে চলে গিয়েছিল খেলাঘর। ম্যাচ জিততে শেষ দুই ওভার থেকে তাদের দরকার ছিল কেবল ১৩ রান।

শুভাগত হোমের নবম ওভারে তারা নিতে পারে ৭ রান। শেষ ওভারে ৬ রানের সহজ সমীকরণ আর মেলানো হয়নি।

বুধবার বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে আগে ব্যাটিং নিয়ে বিপাকে পড়েছিল মোহামেডান। এক মজিদ ছাড়া রান পাননি আর কেউই। ৩০ বলে ৪ ছক্কা, ৫ চারে এই ডানহাতির ব্যাট থেকে আসে ৫৭ রান। দলের আর কেউ যেতে পারেননি দুই অঙ্কেও। ৪ বলে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৮ রান করেন শামসুর রহমান শুভ। ইনিংসের শেষ ১২ বল থেকে তারা আনতে পারে কেবল ৫ রান, ওই সময় হারায় ৬ উইকেট!

১০ ওভারে ৮৯ রানের লক্ষ্যে ইমতিয়াজ হোসেন তান্না প্রথম বলেই ফিরে গিয়েছিলেন। দলের ২৬ রানে আউট হন সাদিকুর রহমান। কিন্তু এক পাশে রান বাড়াতে থাকেন জহুরুল। তবে বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি তিনি। দলের ৩৯ রানে নিজে একা ২৮ করে বিদায় নেন অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

মেহেদী হাসান মিরাজ থিতু হলেও চাহিদা মেটাতে পারেননি। তবু জয়ের কাছেই যাচ্ছিল তারা। কিন্তু সেখানে গিয়ে তালগোল পাকিয়ে ফেলে খেলাঘর। ১৬ বলে ১৪ করা মিরাজকে ফেরান তাসকিন। মাসুম খান নেমে মোহামেডানকে কাঁপন ধরিয়ে দিয়েছিলেন। শেষ ওভারে এই ব্যাটসম্যান খুব বেশি স্ট্রাইক রাখতে পারেননি। যার মাশুল দেয় তার দল।

বিকেএসপিতে দিনের আরেক ম্যাচে ওল্ড ডিওএইচএসকে ১৬ রানে হারিয়ে সুপার লিগে আশা বাঁচিয়ে রেখেছে শেখ জামাল ধানমন্ডি। বৃষ্টিতে ১৩ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে শেখ জামাল করেছিল ১২০ রান। জবাবে ১০৪ রানে থামে ডিওএইচএস। 

Comments