উইম্বলডন থেকেও নাম প্রত্যাহার ওসাকার

মাঠে দারুণ ছন্দে থাকলেও সময়টা ভালো যাচ্ছে না জাপানী টেনিস তারকা নাওমি ওসাকার। মানসিক অবসাদে কিছু দিন ফ্রেঞ্চ ওপেন থেকে বাধ্য হয়ে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন তিনি। প্রত্যাশা ছিল ফিরবেন উইম্বলডন দিয়ে। শেষ পর্যন্ত এ আসরেও দেখা যাবে না তাকে। তবে ঘরের মাঠে আগামী অলিম্পিকে খেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন ২৩ বছর বয়সী এ জাপানী তারকা।
ছবি: সংগৃহীত

মাঠে দারুণ ছন্দে থাকলেও সময়টা ভালো যাচ্ছে না জাপানী টেনিস তারকা নাওমি ওসাকার। মানসিক অবসাদে কিছু দিন ফ্রেঞ্চ ওপেন থেকে বাধ্য হয়ে নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন তিনি। প্রত্যাশা ছিল ফিরবেন উইম্বলডন দিয়ে। শেষ পর্যন্ত এ আসরেও দেখা যাবে না তাকে। তবে ঘরের মাঠে আগামী অলিম্পিকে খেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন ২৩ বছর বয়সী এ জাপানী তারকা। 

আপাতত পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে কাটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিশ্বের দুই নম্বর বাছাই ওসাকা। এছাড়া নিজের শরীরকে বাড়তি বিশ্রাম দেওয়ার কথাও ভেবেছেন। ফ্রেঞ্চ ওপেন শেষ হওয়ার পর উইম্বলডন শুরুর মধ্যে ব্যবধান মাত্র দুই সপ্তাহের। যে কারণে এরমধ্যেই নিজের নাম প্রত্যাহার করেছেন ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী রাফায়েল নাদালও।

এক বিবৃতিতে রয়টার্সকে নাওমির এজেন্ট জানিয়েছেন, 'নাওমি এই বছর উইম্বলডনে খেলবে না। সে আপাতত পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটাতে চাইছে। তবে নাওমি অলিম্পিকে খেলবে। দেশের মাটিতে স্বদেশী দর্শকদের সামনে খেলতে অধীর অপেক্ষায় সে।'

এর আগে ফ্রেঞ্চ ওপেনে নানা কাণ্ডের পর নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন ওসাকা। মানসিক অবসাদের কথা আগেই টুর্নামেন্ট কমিটিকে জানিয়েছিলেন তিনি। সংবাদ সম্মেলনে অংশ নিতে চাচ্ছিলেন না তিনি। পরে সংবাদ সম্মেলনে বর্জন করে জরিমানা গুনতে হয়। পরবর্তীতে এমন করলে হুমকি দেওয়া হয় তাকে বহিষ্কার করার। কিন্তু এর আগেই নিজেকে সরিয়ে নেন তিনি।

একই কারণে এবার উইম্বলডন কর্তৃপক্ষের সঙ্গেও এ নিয়ে আলোচনা করছিল নাওমির এজেন্ট। আগের দিন এ নিয়ে ইতিবাচক সাড়াও দিয়েছিল উইম্বলডন কর্তৃপক্ষ। কিন্তু কোনো ফলাফল আসার আগেই নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ওসাকা।

আর ওসাকার সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েছে অল ইংল্যান্ড লন টেনিস ও ক্রোয়েট ক্লাব। এক বিবৃতিতে তারা বলেছে, 'আমরা তার সিদ্ধান্তের কারণ সম্পূর্ণ বুঝতে পেরেছি। পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে তার সুন্দর সময় কাটানোর প্রত্যাশা করছি। আশা করছি আগামী বছরের উইম্বলডনে সে অংশ নিবে।'

Comments

The Daily Star  | English

Govt bars Matiur from Sonali Bank’s board meeting

The disclosure comes a couple of hours after the finance ministry transferred Matiur to the Internal Resources Division from tthe NBR

51m ago