খেলা

টাইব্রেকারে ফ্রান্সকে হারিয়ে কোয়ার্টারে উঠে সুইজারল্যান্ডের চমক

পেনাল্টি শ্যুটআউটে ৫-৪ গোলে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে সুইজারল্যান্ড।
sommer
ছবি: টুইটার

গোল উৎসবের ম্যাচে নায়ক বনে গেলেন সুইজারল্যান্ডের গোলরক্ষক ইয়ান্নিক সোমার। টাইব্রেকারে ফ্রান্সের তারকা স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপের শট রুখে দিলেন তিনি। তার কল্যাণে চমক দেখিয়ে ২০২০ ইউরোর শেষ আটের টিকিট পেল সুইসরা।

সোমবার রাতে ইউরোপের সর্বোচ্চ ফুটবল আসরের শেষ ষোলো থেকে বিদায় নিয়েছে ফেভারিট ফরাসিরা। নির্ধারিত সময়ে ম্যাচটির স্কোরলাইন ছিল ৩-৩। এরপর পেনাল্টি শ্যুটআউটে ৫-৪ গোলে জিতে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠেছে সুইজারল্যান্ড।

টাইব্রেকারে সুইসদের হয়ে সফল স্পট-কিক নেন মারিও গাভরানোভিচ, ফাবিয়ান শার, মানুয়েল আকাঞ্জি, রুবেন ভার্গাস ও আদমির মেহমেদি। তবে ফ্রান্সের পল পগবা, অলিভিয়ের জিরু, মার্কাস থুরাম ও প্রেসনেল কিম্পেম্বে নিশানা ভেদ করলেও মিস করেন এমবাপে।

১৫তম মিনিটে স্টিভেন জুবেরের ক্রসে লাফিয়ে উঠে হেড করে সুইসদের এগিয়ে নেন হারিস সেফেরোভিচ। ২৭তম মিনিটে আদ্রিয়ান র‍্যাবিওর দূরপাল্লার শট পোস্ট ঘেঁষে চলে গেলে সমতায় ফেরা হয়নি ফরাসিদের।

৫২তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিল সুইজারল্যান্ড। জুবের ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। কিন্তু রিকার্দো রদ্রিগেজের স্পট-কিক দারুণ দক্ষতায় রুখে দেন গোলরক্ষক হুগো লরিস।

এরপর উজ্জীবিত হয়ে উঠে সুইসদের নাড়িয়ে দেয় বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স। ৫৭তম মিনিটে কিলিয়ান এমবাপের পাস প্রথম ছোঁয়ায় নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ডি-বক্সের ভেতর থেকে জাল খুঁজে নেন করিম বেনজেমা। দুই মিনিটের ব্যবধানে দলকে এগিয়ে নেন তিনি। আঁতোয়ান গ্রিজমানের শট সোমার ঠেকিয়ে দেওয়ার পর গোলমুখ থেকে অনায়াসে হেড করে লক্ষ্যভেদ করেন বেনজেমা।

৭৫তম মিনিটে চোখ ধাঁধানো গোলে স্কোরলাইন ৩-১ করেন পল পগবা। ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাঁকানো শটে দূরের পোস্টে বল পাঠান তিনি। ফ্রান্সের জয় যখন মনে হচ্ছিল সময়ের ব্যাপার, তখন ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয় সুইজারল্যান্ড।

৮১তম মিনিটে কেভিন এমবাবুর ক্রসে মাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন সেফেরোভিচ। নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে গ্রানিত জাকার রক্ষণচেরা পাসে ডি-বক্সের ভেতর থেকে লরিসকে পরাস্ত করে ম্যাচে সমতা টানেন গাভরানোভিচ।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে নাটকীয় জয় পেতে পারত ফরাসিরা। কিন্তু বদলি কিংসলে কোমানের বাঁকানো শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। তাতে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে।

বাড়তি ৩০ মিনিটে বেশ কয়েকটি সুযোগ পায় ফরাসিরা। কিন্তু ম্যাচজুড়ে নিজের ছায়া হয়ে থাকা এমবাপে ও বদলি জিরু সেগুলো কাজে লাগাতে ব্যর্থ হন। অন্যদিকে, সুইসরা পাল্টা-আক্রমণে ভীতি ছড়ানোর পাশাপাশি রক্ষণ জমাট রাখলে খেলা গড়ায় টাইব্রেকারে, যেখানে বীরত্ব দেখান সোমার।

কোয়ার্টার ফাইনালে স্পেনকে মোকাবিলা করবে সুইজারল্যান্ড। শেষ চারে জায়গা করে নেওয়ার লড়াইটি অনুষ্ঠিত হবে সেইন্ট পিটার্সবার্গে আগামী শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায়।

Comments

The Daily Star  | English
Inflation in Bangladesh

Economy in for a double whammy

With inflation edging towards double digits and quarterly GDP growth nearly halving year on year, pressure on consumers is mounting and experts are pointing at even darker clouds.

9h ago