শ্রাবন্তীর সঙ্গে তাহসান

মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ‘যদি একদিন’ ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। তাঁকে দেখা যাবে অরিত্রী চরিত্রে। সম্প্রতি ছবিটির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি।
Srabanti and Tahsan
অভিনয়শিল্পী শ্রাবন্তী ও তাহসান।

মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ পরিচালিত ‘যদি একদিন’ ছবিতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তী। তাঁকে দেখা যাবে অরিত্রী চরিত্রে। সম্প্রতি ছবিটির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন তিনি।

দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনের সঙ্গে আলাপকালে ৪ জানুয়ারি সন্ধ্যায় এ তথ্য জানান ছবিটির নির্মাতা।

এ সিনেমাটিতে তাহসানের বিপরীতে অভিনয় করতে যাচ্ছেন শ্রাবন্তী। কথা প্রসঙ্গে নির্মাতা জানান, “ছবির শুটিং হবে বাংলাদেশে। ওয়ার্ক পারমিট নিয়েই ঢাকায় আসবেন শ্রাবন্তী। এরইমধ্যে তাঁর ওয়ার্ক পারমিটের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে।”

এ ছবিটিতে অভিনয় প্রসঙ্গে শ্রাবন্তী দ্য ডেইলি স্টার অনলাইনকে বলেন, “আমার পূর্বপুরুষদের বাড়ি বরিশাল। তাই বাংলাদেশের প্রতি আমার আলাদা টান কাজ করে। ওখানে আবার যাওয়ার সুযোগ পাওয়ার অনুভূতি দারুণ।”

“ছবিটির কাজ শুরু করতে মুখিয়ে আছি,” যোগ করেন ‘চ্যাম্পিয়ন’-খ্যাত এই অভিনেত্রী।

এর আগে দুই বাংলার যৌথ প্রযোজনায় ‘শিকারী’ ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করেন শ্রাবন্তী। এবার শুধুই বাংলাদেশের প্রযোজিত ছবিতে কাজ করতে আসছেন তিনি।

তাঁর কথায়, “পরিচালক রাজের সঙ্গে কথা বলে খুব ভালো লেগেছে। তিনি আমাকে চমৎকারভাবে গল্পটি শুনিয়েছেন। আশা করছি, দারুণ একটি কাজ হতে যাচ্ছে আমাদের।”

পরিচালক রাজ বলেন, “অরিত্রী চরিত্রে যেমন অভিনেত্রী দরকার ছিল শ্রাবন্তীর মধ্যে এর সব গুণই রয়েছে। অনেক ভেবে চিত্রনাট্য অনুযায়ী তাঁকে নির্বাচন করেছি। ছবিটি পর্দায় এলেই বোঝা যাবে শ্রাবন্তীই এ চরিত্রের জন্য মানানসই।”

বেঙ্গল মাল্টিমিডিয়া লিমিটেডের চ্যানেল আরটিভি প্রযোজিত ‘যদি একদিন’ ছবিতে এর আগে চুক্তিবদ্ধ হন ‘ঢাকা অ্যাটাক’ খ্যাত তাসকিন রহমান ও গায়ক তাহসান। শ্রাবন্তীকে কার বিপরীতে দেখা যাবে? এমন প্রশ্নে রাজের রহস্যময় উত্তর, “হয়তো দুজনেরই। আবার হয়তো না।”

রাজের সঙ্গে ‘যদি একদিন’ এর চিত্রনাট্য লিখছেন আসাদ জামান। এটি রাজের পঞ্চম চলচ্চিত্র।

আরো পড়ুন:

তাহসানের নায়িকার জন্য অপেক্ষা!

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka stares down the barrel of water

Once widely abundant, the freshwater for Dhaka dwellers continues to deplete at a dramatic rate and may disappear far below the ground.

6h ago