কলকাতা আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের ৩টি ছবি

শুরু হয়েছে কলকাতা আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসব। বাংলাদেশ, জাপান, ফ্রান্স, ইরান, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রসহ ৩২টি দেশের প্রায় ২২৫টি শিশুতোষ চলচ্চিত্র উৎসবে জায়গা পেয়েছে।
Akhi o taar bondhura
পরিচালক মোরশেদুল ইসলামের ‘আঁখি ও তার বন্ধুরা’ চলচ্চিত্রের একটি দৃশ্য। ছবি: সংগৃহীত

শুরু হয়েছে কলকাতা আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসব। বাংলাদেশ, জাপান, ফ্রান্স, ইরান, অস্ট্রেলিয়া, জার্মানি, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রসহ ৩২টি দেশের প্রায় ২২৫টি শিশুতোষ চলচ্চিত্র উৎসবে জায়গা পেয়েছে।

বাংলাদেশের প্রখ্যাত চলচ্চিত্র নির্মাতা মোরশেদুল ইসলাম এবং অভিনেতা-পরিচালক আফজাল হোসেনের মোট তিনটি ছবি এবারের উৎসবে দেখানো হবে।

গত ১৯ জানুয়ারি সন্ধ্যায় প্রদীপ জ্বালিয়ে উৎসবের উদ্বোধন করে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত খুদে অভিনেতা খুশমিত গিলসহ পশ্চিমবঙ্গের দুই শিশুশিল্পী নুর ইসলাম ও সামিউল আলম। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়, তথ্য প্রতিমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন, শিশু-কিশোর একাডেমির চেয়ারপার্সন অর্পিতা ঘোষ, সচিব গৌতম গঙ্গোপাধ্যায় প্রমুখ।

উৎসবের উদ্বোধনী ছবি হিসেবে দেখানো হয় ‘স্নিফ’ ছবিটি। এটি দেখতে নন্দন প্রেক্ষাগৃহের সামনে অভিভাবকদের নিয়ে ভিড় জমায় শিশু-কিশোর দর্শকরা। অনেকেই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন বাংলাদেশি চলচ্চিত্র দেখার জন্য। আয়োজকদেরও আশা, বাংলাদেশি ছবি প্রদর্শনীর দিন অনেক বেশি দর্শকের সমাগম ঘটবে।

অনুষ্ঠানে শিশু-কিশোর একাডেমির সচিব গৌতম গঙ্গোপাধ্যায় জানান, মোরশেদুল ইসলামের ‘আঁখি ও তার বন্ধুরা’ উৎসবের তিনদিন প্রদর্শন করা হবে। আগামী ২২ জানুয়ারি নন্দনে, ২৫ জানুয়ারি রবিতীর্থে এবং শেষ দিন ২৭ জানুয়ারি অহিন্দ্রমঞ্চে। একইভাবে অভিনেতা-পরিচালক আফজাল হোসেনের ছোটকাকু সিরিজের ‘বকা খেয়ে বগুড়ায়’ এবং ‘রাজশাহীর রসগোল্লা’ প্রদর্শন করা হবে ২৪ জানুয়ারি অহিন্দ্র ও শিশির মঞ্চে।

‘দীপু নাম্বার টু’-খ্যাত পরিচালক মোরশেদুল ইসলামের ‘আঁখি ও তার বন্ধুরা’ এই চলচ্চিত্র উৎসবে জায়গা পাওয়ায় খুশি কলকাতার শিশুতোষ লেখক-সাহিত্যিক ও দর্শকরাও। প্রখ্যাত শিশুসাহিত্যিক দীপ মুখোপাধ্যায় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বলেন, “বাংলাদেশের নির্মাতারা কত সূক্ষ্মভাবে শিশুতোষ চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে পারেন সেটি এর আগে ‘দীপু নাম্বার টু’-তে দেখে আমরা বুঝতে পারি। বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে অভিনয়, শব্দ এবং উপস্থাপনা অনেক ক্ষেত্রেই আমাদের এপারের নির্মাতাদের কাছে দৃষ্টান্ত হতে পারে।”

শুক্রবার উৎসবের আনুষ্ঠানিক সূচনা হলেও শনিবার থেকেই নন্দন-১, নন্দন-২, নন্দন-৩, রবীন্দ্রসদন, শিশির মঞ্চ, রবিতীর্থ, স্টার থিয়েটার এবং আহিন্দ্রমঞ্চে উৎসবে মনোনীত হওয়া চলচ্চিত্রগুলো প্রদর্শন করা হবে। একইভাবে বৃহস্পতিবার থেকে গগনেন্দ্র সংগ্রহশালায় শুরু হয়েছে ফেলুদা সরগরম শীর্ষক একটি চিত্র প্রদর্শনীও।

আরো পড়ুন:

কলকাতা আন্তর্জাতিক শিশু চলচ্চিত্র উৎসবে ‘আঁখি ও তার বন্ধুরা’

Comments

The Daily Star  | English

Economy with deep scars limps along

Business and industrial activities resumed yesterday amid a semblance of normalcy after a spasm of violence, internet outage and a curfew that left deep wounds in almost all corners of the economy.

6h ago