ভারতে শিক্ষাসফরে বাংলাদেশের শিক্ষার্থী

মুক্তিযুদ্ধ ও ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্কের ইতিহাস তুলে ধরলেন পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর সৈনিকদের শিক্ষার্থী সন্তানদের একটি প্রতিনিধি দল ভারতে শিক্ষাসফর শুরু করেছে। গতকাল (২৭ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশের শিক্ষার্থী প্রতিনিধি দলের সদস্যরা কলকাতার রাজভবনে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হয়।
BGB students
কলকাতার রাজভবনে সামনে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর সৈনিকদের শিক্ষার্থী সন্তানদের একটি প্রতিনিধি দল। ছবি: স্টার

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর সৈনিকদের শিক্ষার্থী সন্তানদের একটি প্রতিনিধি দল ভারতে শিক্ষাসফর শুরু করেছে। গতকাল (২৭ ফেব্রুয়ারি) বাংলাদেশের শিক্ষার্থী প্রতিনিধি দলের সদস্যরা কলকাতার রাজভবনে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হয়।

শিক্ষার্থীদের কাছে রাজভবনের ঐতিহাসিক গুরুত্ব তুলে ধরে ভারত-বাংলাদেশ দুই দেশের সুসম্পর্ক এবং আগামী দিনে এই সুসম্পর্ক বজায় রাখতে শিক্ষার্থীদের কী ধরনের ভূমিকা নিতে হবে- এরও একটি দিক নির্দেশনামূলক ব্যাখা দেন রাজ্যপাল ত্রিপাঠী।

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা রাজ্যপালের বক্তব্য শোনে এবং শেষ অংশে রাজ্যপালের হাতে সম্মিলিতভাবে সুদৃশ্য একটি স্মারক তুলে দেয়। রাজ্যপালও প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে স্মৃতি-স্মারক উপহার দেন।

BGB students in India
কলকাতায় রাজভবনে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর সৈনিকদের শিক্ষার্থী সন্তানদের একটি প্রতিনিধি দল। ছবি: স্টার

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি বিজিবির পঞ্চম ব্যাটেলিয়নের কমান্ডিং অফিসার লেফটেনেন্ট কর্নেল সইদুর রহমান পিবিজিএম, পিবিজিএমএস-এর নেতৃত্বে দুই বিজেপি কর্মকর্তা দুজন স্কুল শিক্ষকসহ ৩৬ জন শিক্ষার্থীর প্রতিনিধি দল নিয়ে ভারতের প্রবেশ করেন।

গত বছর অক্টোবরে দিল্লিতে অনুষ্ঠিত ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তরক্ষীদের ডিজি পর্যায়ের বৈঠকে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর সন্তান শিক্ষার্থীদের পরস্পরের দেশে শিক্ষাভ্রমণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। মূলত স্কুল শিক্ষার্থীদের ভ্রমণের মধ্যে দিয়ে দুই দেশের পারস্পরিক সহযোগিতা ও দুই সীমান্তরক্ষী বাহিনীর মধ্যে আরো সমন্বয় বাড়ানোর লক্ষ্যেই সংশ্লিষ্ট সীমান্তরক্ষীদের এই কর্মসূচী বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

চলতি বছরের ৮ থেকে ১১ জানুয়ারি বিএসএফ স্কুলের শিক্ষার্থীরাও একইভাবে বাংলাদেশ ভ্রমণ করে।

আজ (২৮ ফেব্রুয়ারি) এই শিক্ষা ভ্রমণে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা কলকাতার সায়েন্স সিটি, ভারতীয় যাদুঘর, ঐতিহাসিক স্থানসহ কলকাতা শহরের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখছে। আগামী ১ মার্চ প্রতিনিধি দলটি পেট্টাপোল স্থলবন্দর দিয়ে নিজেদের দেশে ফিরে যাবে।

Comments

The Daily Star  | English

Dhaka getting hotter

Dhaka is now one of the fastest-warming cities in the world, as it has seen a staggering 97 percent rise in the number of days with temperature above 35 degrees Celsius over the last three decades.

9h ago