ঢালিউডের পর টালিউডেও সেরা হতে চান অপু বিশ্বাস

ঢালিউডের পর এবার টালিউডেও সেরা হতে চান অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস। বাংলাদেশের ঐতিহ্যকে ধারণ করে কলকাতায় চলচ্চিত্র অঙ্গনে পা রেখেছেন বলেও দাবি করেছেন অপু। তিনি মনে করেন, বর্তমানে যেসব বাংলাদেশি অভিনেত্রীরা কলকাতায় অভিনয় করতে এসে ভারতীয় হয়ে গিয়েছেন তিনি তা হবেন না। তিনি বাংলাদেশি নায়িকা হিসেবেই জনপ্রিয়তা অর্জন করতে চান।
Apu Biswas in Kolkata
ছবির শুটিংয়ে যাওয়ার আগে সহ-অভিনেতা গৌতম সাহা এবং প্রযোজক তরুণ দাসের সঙ্গে অপু বিশ্বাস। ছবি: স্টার

ঢালিউডের পর এবার টালিউডেও সেরা হতে চান অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস। বাংলাদেশের ঐতিহ্যকে ধারণ করে কলকাতায় চলচ্চিত্র অঙ্গনে পা রেখেছেন বলেও দাবি করেছেন অপু। তিনি মনে করেন, বর্তমানে যেসব বাংলাদেশি অভিনেত্রীরা কলকাতায় অভিনয় করতে এসে ভারতীয় হয়ে গিয়েছেন তিনি তা হবেন না। তিনি বাংলাদেশি নায়িকা হিসেবেই জনপ্রিয়তা অর্জন করতে চান।

কলকাতার নিউটাউনে নচিকেতার ‘শর্টকাট’ ছবির শুটিংয়ের ফাঁকে দ্য ডেইলি স্টারকে এ কথা বলেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেত্রী অপু বিশ্বাস।

অপুও বললেন, তার সঙ্গে শাকিব খানেরও কোনও চ্যালেঞ্জ নেই। জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে ঢাকায় যেমন এক থেকে দশ গুণলে শাকিব খান কলকাতাতেও তাই।

দর্শক ও সমালোচকদের অনুরোধ করে অপু বলেন, ব্যক্তিগত জীবনের টানাপড়েনকে পর্দায় মিশিয়ে ফেলা ঠিক হবে না। কারণ পর্দার মানুষগুলো দর্শকদের বিনোদন দিতে আসেন। তাই তাদের কাছ থেকে নিখাদ বিনোদন গ্রহণ করার অনুরোধও করেন এই অভিনেত্রী।

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তীর লেখা ‘শর্টকাট’ গল্প নিয়ে সুবীর মণ্ডলের নির্দেশনায় তৈরি হতে যাওয়া এই ছায়াছাবিতে নার্গিস নামে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করছেন অপু বিশ্বাস। এর আগে চরিত্রটির নাম নূরজাহান রাখা হয়েছিল। যাহোক, অপুর সহশিল্পী হিসেবে রয়েছেন গৌরব, সন্দীপ। রয়েছেন অভিনেতা পরমব্রত এবং বাংলাদেশি অভিনেত্রী অরিন। রয়েছেন বাংলাদেশের আরেক অভিনেতা গৌতম সাহাও।

অপু বিশ্বাস চলচ্চিত্রটির দৃশ্যায়নের কাজ আজ (১৪ জুন) শেষ হচ্ছে। তবে ঈদের পর ডাবিংয়ের কাজ করতে আবারও কলকাতায় আসছেন এই অভিনেত্রী।

দ্য ডেইলি স্টারের প্রতিবেদকের সঙ্গে গতকাল নিউটাউনের শুটিংস্পটে দাঁড়িয়ে বেশ কিছু সময় কথা হয় অপুর সঙ্গে।

তিনি জানালেন, গত ৪ জুন কলকাতায় এই ছবির শুটিংয়ের কাজ শুরু করেন। গত ১১ দিনে প্রায় প্রতিদিনই তাকে ব্যস্ত থাকতে হয়েছে দৃশ্যায়নের কাজে। ঈদের কারণেই দিন-রাত কাজ করেছেন তিনি।

ঈদে ছেলের সঙ্গ মিস করতে রাজি নন অপু বিশ্বাস। তার একমাত্র ‘বন্ধু’ এখন ছেলে আব্রাহাম। তাকে নিয়েই ঈদ আনন্দ উপভোগ করবেন ঢাকায়। আর সে জন্যই দ্রুত কাজ শেষ করে ঢাকায় ফিরছেন তিনি।

আব্রাহামকে আদর করে ‘বাবু’ বলে ডাকেন অপু। জানালেন, বাবুর জন্য কলকাতা থেকে অনেক টিশার্ট কিনেছেন। ঈদে মা-ছেলে একই রঙের পোশাক পড়বেন। কলকাতা থেকে ব্যাগ ভর্তি করে ঈদের কেনাকাটাও সেরেছেন বলে জানালেন অপু বিশ্বাস। বললেন, “আমার আর কেউ স্পেশাল নন। আমার স্পেশাল একমাত্র আমার ছেলে, ওই হচ্ছে আমার বন্ধু।”

ঈদের পরিকল্পনার কথাও জানালেন এই অভিনেত্রী। বললেন, “দুই বছর আগে অর্থাৎ ২০১৬ সালে আমার ছেলে যখন গর্ভে ছিলো সেই সময় ‘পাঙ্কু জামাই’ সিনেমার গানের দৃশ্যায়ন হয়। এবার ঈদে আব্রাহামকে নিয়ে আমি ওই ছবিটি দেখবো আর ছেলেকে বলবো যে, ওই গানের দৃশ্যের সময় সে আমার পেটে ছিলো। এবারের ঈদের স্পেশাল মোমেন্ট এটাই আমার কাছে। আমার বিশ্বাস, বাবুও খুব মজা পাবে এই কথা শুনে।”

শাকিব খান ইতিমধ্যেই কলকাতায় অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়েছেন। তবে কলকাতায় অপুর তেমন পরিচিতি নেই। জয়া আহসান, নুসরাত ফারিয়ারা টালিপাড়া দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন। আর সেখানে অপু মাত্র পা রাখলেন- শুভশ্রী, মীম, শ্রাবন্তি নুশরাতদের শহরে। মুখে স্বীকার না করলেও অপুর সামনে এটা বড় চ্যালেঞ্জ।

যদিও অপু এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে মানতে রাজি নন। বললেন, “আমি এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিচ্ছি না। আমি আমার নিজস্বতা দিয়ে কলকাতার দর্শকদের মনজয় করতে চাই।”

তবে এক্ষেত্রে অপু অন্য বাংলাদেশি অভিনেত্রী যারা কলকাতায় এখন কাজ করছেন, তাদের কিছুটা খোঁচাও দিয়েছেন। অপুর মতে, তিনি পুরোপুরি বাংলাদেশি ঐতিহ্যকে বাঁচিয়ে রেখেই জনপ্রিয়তা পেতে চান। ভারতীয় সংস্কৃতির চেয়ে বাংলাদেশি সংস্কৃতিকেই চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে ভারতীয় দর্শকদের সামনে তুলে ধরতে চান তিনি।

এদিকে ব্যক্তিগত জীবনে শাকিব খানের সঙ্গে সম্পর্কের টানাপোড়ন থাকলেও শিল্পী হিসেবে কোনও টানাপড়েন নেই বলে মন্তব্য করেন অপু বিশ্বাস।

ডেইলি স্টারকে তিনি বলেন, “বাংলাদেশেও শাকিব খান জনপ্রিয়। এখানেও জনপ্রিয়। যে যার জায়গা ধরে রাখবে। তবে ওর সঙ্গে আমার কোনও চ্যালেঞ্জ নেই।”

“আমি বাংলাদেশে যেভাবে আমার দর্শকদের মাথায় নিয়ে এগিয়ে গিয়েছি, কলকাতার ক্ষেত্রেও ঠিক তাই হবে। আমার বিশ্বাস, আমি এখানেও সেরাই হবো,” যোগ করেন ‘কোটি টাকার কাবিন’-খ্যাত এই অভিনেত্রী।

Comments