হেরেও নেইমারের প্রশংসায় তিতে

বেলজিয়ামের কাছে হেরে বিশ্বকাপ অভিযান শেষ হয়ে গেছে ঠিকই, কিন্তু গতকালের ম্যাচে নিজের জাতটা ঠিকই চিনিয়েছেন নেইমার। দ্বিতীয়ার্ধে এক কথায় অসাধারণ ছিলেন, বারবার গতি আর ড্রিবলিং দিয়ে পরাস্ত করেছেন বেলজিয়ান ডিফেন্ডারদের। ব্রাজিল কোচ তিতে তাই পরাজয়ের হতাশা এক পাশে সরিয়ে রেখে নেইমারের প্রসংশাই করেছেন।
নেইমার

বেলজিয়ামের কাছে হেরে বিশ্বকাপ অভিযান শেষ হয়ে গেছে ঠিকই, কিন্তু গতকালের ম্যাচে নিজের জাতটা ঠিকই চিনিয়েছেন নেইমার। দ্বিতীয়ার্ধে এক কথায় অসাধারণ ছিলেন, বারবার গতি আর ড্রিবলিং দিয়ে পরাস্ত করেছেন বেলজিয়ান ডিফেন্ডারদের। ব্রাজিল কোচ তিতে তাই পরাজয়ের হতাশা এক পাশে সরিয়ে রেখে নেইমারের প্রসংশাই করেছেন।

সাড়ে তিন মাসের ইনজুরি কাটিয়ে ফিরে পাঁচ ম্যাচে দুই গোল ও এক অ্যাসিস্ট করেছেন। প্রতিটি ম্যাচেই ছাপিয়ে গেছেন আগের ম্যাচের পারফরম্যান্সকে। বেলজিয়ামের বিপক্ষে গোল না পেলেও তাই কোচের বাহবাই পাচ্ছেন তিনি। ইনজুরি থেকে ফিরে এসে পুরো টুর্নামেন্টে যেভাবে পারফর্ম করেছেন, তাতে খানিকটা অবাকই হয়েছেন তিতে, ‘প্রতি ম্যাচেই যে নেইমার নিজের পারফরম্যান্সের গ্রাফটাকে এক ধাপ করে উপরে নিয়ে গিয়েছে সেটা আমরা সবাই দেখেছি। আগের ম্যাচে যখন ম্যান অফ দ্য ম্যাচ নির্বাচিত হলো, তখন আমরা সবাই মিলে ওকে বলেছিলাম, তুমি শতভাগ ফিট হয়ে গেছো নেইমার। ওর ড্রিবলিং, ওর গতি সবই যেন বলে দিচ্ছিল ও সেরা ফর্মে চলে এসেছে। আমি যা আশা করেছিলাম, ইনজুরি কাটিয়ে তার থেকেও অনেক ভালোভাবে ফিরে এসেছে ও। শারীরিকভাবেও নিজের গতি ধরে রাখতে পেরেছে।’

২৬ বছর বয়সী নেইমারের এটি ছিল দ্বিতীয় বিশ্বকাপ। দুর্ভাগ্যজনকভাবে দুইবারই কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই বিদায় নিতে হলো তাঁকে। চার বছর আগে ঘরের মাঠে ব্রাজিল সেমিফাইনাল খেললেও কোয়ার্টার ফাইনালে কলম্বিয়ার বিপক্ষে ভয়াবহ ইনজুরিতে পড়ায় সেমিফাইনালে মাঠে নামা হয়নি তাঁর।

 

 

Comments