সংখ্যায় সংখ্যায় ফ্রান্স-বেলজিয়াম ম্যাচ

এক দলের সামনে প্রথমবারের মতো ফাইনালে ওঠার হাতছানি, আরেক দল আছে এক যুগ পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওঠার অপেক্ষায়। এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম আকর্ষণীয় দুই দল ফ্রান্স ও বেলজিয়ামের লড়াইটা আকর্ষণীয়ই হওয়ার কথা। তার আগে দুই দলের পরিসংখ্যানগুলোর দিকে চোখ বুলিয়ে নেয়া যাক।
France Training
অনুশীলনে ফ্রান্স দল। ছবি: রয়টার্স

এক দলের সামনে প্রথমবারের মতো ফাইনালে ওঠার হাতছানি, আরেক দল আছে এক যুগ পর বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওঠার অপেক্ষায়। এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম আকর্ষণীয় দুই দল ফ্রান্স ও বেলজিয়ামের লড়াইটা আকর্ষণীয়ই হওয়ার কথা। তার আগে দুই দলের পরিসংখ্যানগুলোর দিকে চোখ বুলিয়ে নেয়া যাক।

হেড টু হেড:

১) বিশ্বকাপে এর আগে দুইবার মুখোমুখি হয়েছে দুই দল, দুইবারই জয়ী দলের নামটি ছিল ফ্রান্স।

২) বিশ্বকাপে দুই দলের প্রথম মোকাবেলা ১৯৩৮ বিশ্বকাপে। প্রথম রাউন্ডের সেই ম্যাচে ফ্রান্স জিতেছিল ৩-১ গোলে। এরপর দ্বিতীয়বারের মতো দুই দলের দেখা হয় ১৯৮৬ বিশ্বকাপে। সেমিফাইনালে হারা দুই দল মুখোমুখি হয় তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে, সেটিতে বেলজিয়ামকে অতিরিক্ত সময়ে ৪-২ গোলে হারিয়ে তৃতীয় হয় ফ্রান্স।

৩) এছাড়া ১৯৮৪ ইউরোর গ্রুপ পর্বেও দেখা হয়েছিল দুই দলের, তাতে বেলজিয়ামকে ৫-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল ফ্রান্স।

৪) তবে দুই দলের মধ্যে শেষ তিনটি প্রীতি ম্যাচে বেলজিয়ামকে হারাতে পারেনি ফ্রান্স। দুটি ম্যাচ হয়েছে ড্র, আর একটি জিতেছে বেলজিয়াম।

৫) দুই দলের সর্বশেষ মোকাবেলা ২০১৫ সালের জুনে এক প্রীতি ম্যাচে। মারুয়ান ফেলাইনির জোড়া গোলে ফ্রান্সকে ৪-৩ গোলে হারিয়েছিল রেড ডেভিলরা।

৬) বিশ্বকাপে জিততে না পারলেও মোট মোকাবেলার দিক থেকে ফ্রান্সের চেয়ে এগিয়েই আছে বেলজিয়াম। এই নিয়ে ৭৪ তম বারের মতো মুখোমুখি হতে চলেছে দুই দল। আগের ৭৩ ম্যাচের মধ্যে বেলজিয়াম জিতেছে ৩০ বার, ফ্রান্স জিতেছে ২৪ বার আর ড্র হয়েছে ১৯ বার।

ফ্রান্স:

১) এই নিয়ে ষষ্ঠবারের মতো বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল খেলতে নামছে ফ্রান্স। আগের পাঁচবারের মধ্যে হেরেছে প্রথম তিনটিতেই (১৯৫৮, ১৯৮২, ১৯৮৬), তবে শেষ দুটি সেমিফাইনাল জিতে ঠিকই ফাইনালে পা রেখেছে তারা (১৯৯৮ ও ২০০৬)।

২) বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ১৩ টি নকআউট ম্যাচে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মাত্র একটি ম্যাচ হেরেছে ফ্রান্স। জিতেছে ১০ টিই, আর ড্র হয়েছে দুইটি ম্যাচ (ওই দুই ম্যাচের নিষ্পত্তি হয়েছে টাইব্রেকারে)। একমাত্র ওই পরাজয়টি এসেছিল গত বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে জার্মানির কাছে।

৩) বিশ্বকাপ ও ইউরো মিলিয়ে নিজের শেষ ছয়টি নকআউট ম্যাচে সাত গোল করেছেন আতোঁয়ান গ্রিজম্যান।

৪) গ্রিজম্যান গোল করেছেন, এমন কোন ম্যাচে হারেনি ফ্রান্স।

Belgium Training
অনুশীলনে বেলজিয়াম দল

বেলজিয়াম:

১) এর আগে মাত্র একবারই বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে খেলেছে বেলজিয়াম। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে ডিয়েগো ম্যারাডোনার নৈপুণ্যের কাছে ২-০ গোলে হারতে হয়েছিল তাদের। 

২) নিজেদের শেষ ২৪ ম্যাচে অপরাজিত বেলজিয়াম, জিতেছে ১৯ ম্যাচে, আর ড্র করেছে ৫ টিতে।

৩) সব ধরনের ম্যাচ মিলিয়ে নিজেদের সাত ম্যাচের প্রতিটিই জিতেছে বেলজিয়াম।

৪) এবার নিজেদের প্রথম পাঁচ ম্যাচে ১৪ গোল করেছে বেলজিয়াম, যা সেমিফাইনালের আগে পর্যন্ত বিশ্বকাপ ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ। এর আগে ২০০২ বিশ্বকাপে সেমিফাইনালের আগে ১৫ গোল করেছিল ব্রাজিল।

৫) এই বিশ্বকাপে বেলজিয়ামের হয়ে ৯ জন ভিন্ন ভিন্ন খেলোয়াড় গোল করেছেন। এক বিশ্বকাপে কোন দলের হয়ে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক খেলোয়াড়ের গোল করার রেকর্ডের দিক থেকে এটি দ্বিতীয়। এর আগে ১৯৮২ বিশ্বকাপে ফ্রান্স ও ২০০৬ বিশ্বকাপে ইতালির ১০ জন করে খেলোয়াড় গোল পেয়েছিলেন।

Comments