পাহাড়ি সীমান্ত এলাকায় নজরদারিতে সহযোগিতার আশ্বাস ভারতের

পাহাড়ি সীমান্ত এলাকায় নিরাপত্তা চৌকি স্থাপন, সড়ক নির্মণ ও নজরদারির জন্য আধুনিক সেন্সর স্থাপনে ভারত বাংলাদেশকে সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছেন দেশটির সফররত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং।
বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এর উপস্থিতিতে গতকাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে দু দেশের মধ্যে ভ্রমণ ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ছবি: পিআইডি

পাহাড়ি সীমান্ত এলাকায় নিরাপত্তা চৌকি স্থাপন, সড়ক নির্মণ ও নজরদারির জন্য আধুনিক সেন্সর স্থাপনে ভারত বাংলাদেশকে সহযোগিতা করবে বলে জানিয়েছেন দেশটির সফররত স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং।

গতকাল বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের সঙ্গে বৈঠকে এরকম আশ্বাস দেন রাজনাথ সিং।

বৈঠক শেষে আসাদুজ্জামান খাঁন বলেন, তাদের বৈঠকে সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, সীমান্ত অপরাধ এবং অবৈধ কর্মকাণ্ডসহ নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে। তিনি বলেন, ভারতের সঙ্গে বেশ কিছু এলাকায় সীমান্ত অরক্ষিত অবস্থায় রয়ে গেছে। এসব এলাকা দিয়ে যে কেউ যেকোনো সময় ঢুকে পড়তে পারে। অনুপ্রবেশ বন্ধে বাংলাদেশ ও ভারত কাজ করছে।

ব্রিফিংকালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, প্রত্যন্ত সীমান্ত এলাকা নজরদারির আওয়াতায় আনতে চৌকি (বিওপি) স্থাপন ও চলাচল সহজ করার জন্য সড়ক নির্মাণে বাংলাদেশের ইচ্ছার কথা ভারতকে জানানো হয়েছে। মানব ও মাদক পাচার রোধে নজরদারি করার যন্ত্রপাতি ও সেন্সর বসানোর ইচ্ছার কথাও জানিয়েছে বাংলাদেশ। এ ব্যপারে ভারত সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) এক কর্মকর্তা বলেন, পাহাড়ি সীমান্ত এলাকায় বিওপি স্থাপন ও সড়ক নির্মাণ সামগ্রী পরিবহনের জন্য ভারতের সড়ক ব্যবহার করতে দেওয়ার জন্য তিন বছর আগে তারা দেশটির সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছিলেন। সেই সঙ্গে কিছু জায়গায় ভারতের কাছ থেকে নির্মাণ সামগ্রী ক্রয়ের অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। এসব ব্যাপারে ভারতের সহযোগিতার আশ্বাস পাওয়া গেছে বলে তিনি জানান।

ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের ৪,১৫৬ কিলোমিটার সীমান্ত রয়েছে। পূর্বাঞ্চলে বেশ কয়েকটি জেলায় পাহাড়ি এলাকা দিয়ে গেছে এই সীমান্ত। এরকম বেশ কিছু এলাকা এখনও নজরদারির বাইরে রয়েছে।

দুই মন্ত্রীর যৌথ সভাপতিত্বে গতকালের বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বাংলাদেশের ১৩ সদস্যের প্রতিনিধি দলের এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং ভারতের ৯ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। বৈঠকের শুরুতে রাজনাথ সিংকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।

ভারতীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এর আগে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘর পরিদর্শন করেন এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। পরে তিনি পুরাতন ঢাকায় ঢাকেশ্বরী মন্দির পরিদর্শন করেন এবং সেখানে প্রার্থনা করেন।

ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সিং তিন দিনের সরকারি সফরে ১৩ জুলাই ঢাকা আসেন। এর আগে তিনি ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত নয়াদিল্লিতে দু’দেশের মধ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে যোগ দিয়েছিলেন। ঢাকায় তিন দিনের সফর শেষে রোববার বিকেলে তিনি দেশের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।

Comments

The Daily Star  | English

2 MRT lines may miss deadline

The metro rail authorities are likely to miss the 2030 deadline for completing two of the six planned metro lines in Dhaka as they have not yet started carrying out feasibility studies for the two lines.

2h ago