খাগড়াছড়িতে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতাসহ ৭ জনকে গুলি করে হত্যা

খাগড়াছড়ির সদর উপজেলায় অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের গুলিতে সাত জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের এক নেতা রয়েছেন।
gunfight logo

খাগড়াছড়ির সদর উপজেলায় বন্দুকধারীদের গুলিতে সাত জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের মধ্যে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের এক নেতা রয়েছেন।

আজ সকালে এই হামলায় আরও তিন জন আহত হয়েছেন বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। 

নিহতদের মধ্যে তপন চাকমা ইউনাইটেট পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সমর্থিত পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি।

সদর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল আউয়ালকে উদ্ধৃত করে দ্য ডেইলি স্টারের খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি এই তথ্য জানিয়েছেন। তবে হতাহত অন্যান্যদের পরিচয় তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ওই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, আজ সকাল সাড়ে ৮টার দিকে খাগড়াছড়ি সদরের স্বনির্ভর এলাকায় হামলার ঘটনাটি ঘটে। আহতদের খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

ইউএনবির খবরে জানানো হয়, নিহতদের মধ্যে আরও রয়েছেন- পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতা এলটন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের নেতা পলাশ চাকমা।

সদর থানার ওসি শাহাদাত হোসেন বলেন, এলাকায় উত্তেজনা বাড়তে থাকায় অতিরিক্ত পুলিশ ও সেনা সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

এর আগে গত ৩ মে রাঙ্গামাটির নানিয়ারচর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শক্তিমান চাকমাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল। এর পর দিনই শক্তিমান চাকমার শেষকৃত্যে যাওয়ার পথে মাইক্রোবাসে ব্রাশফায়ারে নিহত হন ইউপিডিএফ (গণতান্ত্রিক) প্রধান তপনজ্যোতি চাকমাসহ পাঁচজন।

Comments