মাদার তেরেসা রত্ন সম্মাননা দেওয়া হবে বঙ্গবন্ধুকে

বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে মাদার তেরেসার নামাঙ্কিত মাদার তেরেসা রত্ন সম্মাননা প্রদান করা হবে। কলকাতার ইন্টারন্যাশনাল মাদার তেরেসা অ্যাওয়ার্ড কমিটির সবোর্চ্চ এই সম্মননা দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও জানিয়েছেন।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে মাদার তেরেসার নামাঙ্কিত মাদার তেরেসা রত্ন সম্মাননা প্রদান করা হবে। কলকাতার ইন্টারন্যাশনাল মাদার তেরেসা অ্যাওয়ার্ড কমিটির সবোর্চ্চ এই সম্মননা দেওয়ার সিদ্ধান্তের কথা বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকেও জানিয়েছেন।

শেখ হাসিনা এই সম্মাননা ঢাকায় অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন। সেখানে তার বোন শেখ রেহানাও উপস্থিত থাকবেন।

মাদার তেরেসা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড কমিটির চেয়ারম্যান রোববার (২৬ আগস্ট) কলকাতায় বাংলাদেশের গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের কাছে এই তথ্য প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, ১৮ বছর ধরে এই সম্মাননা দেওয়া হচ্ছে। মাদারের কর্মজীবন ও তার মানবতাবাদকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দিতেই এমন প্রয়াস।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে মাদারের নামাঙ্কিত সবোর্চ্চ সম্মাননা মাদার তেরেসা রত্ন দেওয়ার কথা জানান তিনি। বলেন, এর আগে বর্তমান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে মাদারের নামাঙ্কিত সম্মাননা আমি নিজের হাতে তুলে দিয়েছি। সম্মাননা নিয়েছেন সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মণিও। আমরা মাদারের নামে সবচেয়ে বড় সম্মাননা মাদার তেরেসা রত্ন তুলে দিচ্ছি বাংলাদেশের জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ইতিমধ্যে বিষয়টি নিয়ে আমার সঙ্গে শেখ হাসিনার কথা হয়েছে। তিনি আমাকে বলেছেন, সম্মাননা ঢাকায় অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে গ্রহণ করবেন তিনি। সেখানে তার বোন শেখ রেহানাও থাকবেন। তবে কবে এই সম্মাননা তুলে দেওয়া সম্ভব হবে সেটা পরিষ্কার বলতে পারেননি প্রবীণ এই মাদার ঘনিষ্ঠ সমাজসেবী।

রোববার ছিল মহীয়সী মানবতাবাদী এই নারীর ১০৮তম জন্মদিবস। তার স্মরণে এদিন কলকাতার ইন্ডিয়ান কাউন্সিল ফর কালচারাল রিলেশন (আইসিসিআর) ভবনের সত্যজিৎ রায় গ্যালারিতে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

সেখানে বাংলাদেশের একটি সংগীত নির্ভর বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের দুজন কর্ণধারকে যৌথভাবে মাদার তেরেসা সম্মাননা দেওয়া হয়। তারা হলেন, কৌশিক হোসেন তাপস, ফারজানা মুন্নি।

এছাড়াও কলকাতার চারজন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে এই সম্মাননা তুলে দেওয়া হয়।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন রাজ্য সরকারের ক্রেতা ও সুরক্ষা বিষয়কমন্ত্রী সাধন পান্ডে। ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মাদার তেরেসা ইন্টারন্যাশাল অ্যাওয়ার্ড কমিটি চেয়ারম্যান অ্যন্থনি অরুণ বিশ্বাস।

মাদার তেরেসার মানবতাবাদ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে রোহিঙ্গা সংকট প্রসঙ্গে কথা বলেন পশ্চিমবঙ্গের মন্ত্রী সাধন পান্ডে। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যায় শুধু নয় সব ধরণের সমস্যায় বাংলাদেশের পাশে আছে ভারত।

মন্ত্রী আরও বলেন, সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় বাংলাদেশ যখন দৃঢ়ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে, তখন ভারত সরকার আসাম ইস্যু নিয়ে বাংলাদেশের ওপর চাপ প্রয়োগ করছে। সেটা কাম্য নয়।

Comments