জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ করার কোনো অধিকার নেই: মিয়ানমারের সেনাপ্রধান

মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং লাইং বলেছেন, তার দেশের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপ করার কোনো অধিকার জাতিসংঘের নেই। রোহিঙ্গা নির্যাতনকে সরাসরি ‘গণহত্যা’ আখ্যা দিয়ে মিয়ানমারের সেনা প্রধানসহ ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাদের আন্তর্জাতিক বিচারের মুখোমুখি করার জন্য জাতিসংঘের আহ্বান জানানোর পর বেশ কিছুদিন নীরব থেকে এমন মন্তব্য বক্তব্য দিলেন জেনারেল মিন।
মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন আং লাইং। ছবি: এএফপি

মিয়ানমারের সেনাপ্রধান মিন অং লাইং বলেছেন, তার দেশের সার্বভৌমত্বে হস্তক্ষেপ করার কোনো অধিকার জাতিসংঘের নেই। রোহিঙ্গা নির্যাতনকে সরাসরি ‘গণহত্যা’ আখ্যা দিয়ে মিয়ানমারের সেনা প্রধানসহ ঊর্ধ্বতন সামরিক কর্মকর্তাদের আন্তর্জাতিক বিচারের মুখোমুখি করার জন্য জাতিসংঘের আহ্বান জানানোর পর বেশ কিছুদিন নীরব থেকে এমন মন্তব্য বক্তব্য দিলেন জেনারেল মিন।

রোববার মিয়ানমারের সেনাপ্রধানের বক্তব্য দিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে সেনাবাহিনী পরিচালিত দৈনিক মিয়াওডি। খবরে বলা হয়, মিয়ানমারের সেনাপ্রধান বলেছেন, ‘একটি সার্বভৌম দেশে হস্তক্ষেপ করে সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়ার অধিকার কোনো দেশ, সংস্থা বা জোটের নেই।’

গত ২৭ আগস্ট জাতিসংঘের তথ্যানুসন্ধানী মিশন তার প্রতিবেদনে জানায়, মিয়ানমারে ব্যাপক মাত্রায় গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটিত হওয়ার প্রমাণ পেয়েছে তারা। এর পরদিনই নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি সদস্যরাষ্ট্র মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের আন্তর্জাতিক বিচারের মুখোমুখি করার আহ্বান জানিয়েছিল।

এর প্রতিক্রিয়ায় দুদিন পর মিয়ানমার সরকার বলেছিল, গণহত্যার ব্যাপারে জাতিসংঘ যে প্রতিবেদন দিয়েছে তাকে প্রত্যাখ্যান করছেন তারা।

জাতিসংঘসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলছে উল্লেখ করে সরকারি মুখপাত্র বলেছিলেন, রাখাইনের ঘটনা নিয়ে মিয়ানমার স্বাধীন তদন্ত কমিশন নিয়ে কাজ করছে। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ তোলা হচ্ছে এই কমিশন সেগুলো খণ্ডন করবে।

Comments

The Daily Star  | English

Quota protest: Students break barricade at Gulistan, march towards Bangabhaban

Thousands of students demanding reform of the quota system in government jobs are marching to the Bangabhaban after breaking the police barricade at Gulistan Zero Point in the capital

35m ago