ফিলিপাইনের কাছে হেরে গ্রুপে দ্বিতীয় বাংলাদেশ

সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছিল আগেই। এই ম্যাচ জিতলে গ্রুপ সেরা হয়ে এড়ানো যেত অপর গ্রুপের শক্তিশালী দলকে। কিন্তু প্রথমার্ধের একমাত্র গোলে ফিলিপাইনের কাছে হেরে গ্রুপে দ্বিতীয়ই হয়েছে বাংলাদেশ।

সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছিল আগেই। এই ম্যাচ জিতলে গ্রুপ সেরা হয়ে এড়ানো যেত অপর গ্রুপের শক্তিশালী দলকে। কিন্তু প্রথমার্ধের একমাত্র গোলে ফিলিপাইনের কাছে হেরে গ্রুপে দ্বিতীয়ই হয়েছে বাংলাদেশ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ম্যাচে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে বাংলাদেশকে হারিয়ে পুরো ৬ পয়েন্ট নিয়ে সেমিতে উঠল ফিলিপাইন। আর একটি করে জয়-হারে ‘বি’ গ্রুপে রানার্সআপ হয়েছে জেমি ডের শিষ্যরা।

সেমিফাইনাল নিশ্চিত হওয়ায় এদিন দুদলই প্রথম একাদশে এনেছিল কয়েকটি বদল। সাইড বেঞ্চ পরখ করতে অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া সহ পাঁচ ফুটবলারকে বিশ্রাম দেন জেমি ডে।

খেলার শুরু থেকেই বল দখলের লড়াইয়ে এগিয়ে ছিল ফিলিপাইন। প্রেসিং ফুটবলের বাংলাদেশের রক্ষণে চাপ তৈরি করে তারা গোল আদায় করে ম্যাচের ২৪ মিনিটে। ডানদিকের কোনা দিয়ে বক্সে ঢুকে আড়াআড়ি শট নেন  মাইকেল ডেনিয়েলস। বা দিকে ঝাঁপিয়েও আটকাতে পারেননি আশরাফুল রানা।

পিছিয়ে পড়ার পর বাংলাদেশও চালিয়েছে আক্রমণ। তবে বিরতির পর বাংলাদেশই তুলনামূলক ভাল ফুটবল উপহার দিয়েছে। প্রতিপক্ষের গোলমুখে বাংলাদেশের ৭ শটের বিপরীতে ফিলিপিন্সের শট একটি।

র‍্যাঙ্কিংয়ে অনেকখানি এগিয়ে থাকা ফিলিপিন্সকে রুখে দেওয়ার একাধিক সুযোগ পেয়েছিলেন বিপলু আহমেদ, নাবীন নেওয়াজ জীবনরা। কখনো প্রতিপক্ষের রক্ষণের দৃঢ়তায় আবার কখনো নিজেদের ভুলে তারা হারান দিশা।

৬৯ মিনিটেই বাংলাদেশ তৈরি করেছিল গোল শোধের সহজ সুযোগ। সুবজের মাপা ক্রস থেকে ক্ষিপ্র গতিতে হেড করেছিলেন বটে জীবন, তবে তার হেড যায় বক্সের অনেকখানি বাইরে দিয়ে।

৮১ মিনিটে বদলি নামা মতিন মিয়ে ডানদিক থেকে গতিতে প্রতিপক্ষের ডিফেন্স ভেদ করে ঢুকে পড়েছিলেন। কিন্তু তার ক্রস ধরার মত কেউ ছিলেন না বক্সে।

শনিবার ফিলিস্তিন-নেপাল ম্যাচের জয়ীদের দল সেমিফাইনাল হবে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ। শক্তির বিচারে অনেক এগিয়ে থাকা ফিলিস্তিনিরাই পরিষ্কার ফেভারিট। আগেভাগেই গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন ধরে নেওয়া হচ্ছে তাদের। বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের ফাইনালে উঠা তাই বাংলাদেশের জন্য কঠিন পরীক্ষাই।

 

Comments

The Daily Star  | English

Mangoes and litchis taking a hit from the heat

It’s painful for Tajul Islam to see what has happened to his beloved mango orchard in Rajshahi city’s Borobongram Namopara.

14h ago