আন্তর্জাতিক

জিজ্ঞাসাবাদের সময় খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে, স্বীকার করবে সৌদি আরব

যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনসুলেটের ভেতর হত্যা করা হয়েছে, অবশেষে তা স্বীকার করতে যাচ্ছে সৌদি আরব। আজ মঙ্গলবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।
জামাল খাশোগির সন্ধান দাবিতে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনসুলেটের সামনে বিক্ষোভ। ছবি: রয়টার্স

যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের সমালোচক হিসেবে পরিচিত সাংবাদিক জামাল খাশোগিকে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনসুলেটের ভেতর হত্যা করা হয়েছে, অবশেষে তা স্বীকার করতে যাচ্ছে সৌদি আরব। আজ মঙ্গলবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক প্রতিবেদনে একথা বলা হয়েছে।

সৌদি সূত্রের বরাতে সিএনএন বলছে, কনসুলেট ভবনের ভেতরে জিজ্ঞাসাবাদের সময় খাশোগিকে হত্যা করার বিষয়টি স্বীকার করার কথা বিবেচনা করছে সৌদি আরব। এর আগে, খাশোগির নিখোঁজ হওয়ার ব্যাপারে আন্তর্জাতিক তদন্তের আহ্বান জানায় তার পরিবার।

গত ২ অক্টোবর তুরস্কের ইস্তাম্বুলে অবস্থিত সৌদি কনসুলেটে ব্যক্তিগত কাজে ঢোকার পর ‘নিখোঁজ’ হন দেশটির প্রথিতযশা সাংবাদিক জামাল খাশোগি। সে সময় সৌদি কর্তৃপক্ষ জানায় যে, কাজ শেষ করে ওইদিন বিকেলেই কনসুলেট ত্যাগ করেন খাশোগি। কিন্তু এর প্রেক্ষিতে তারা কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেনি। কিন্তু তুর্কি কর্তৃপক্ষ বলছে খাগোশিকে হত্যা কারা হয়েছে এমন অকাট্য প্রমাণ আছে তাদের কাছে।

এর মধ্যেই খাশোগি নিখোঁজের ব্যাপারে যৌক্তিক ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য রিয়াদের ওপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়তে থাকে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এক বিবৃতিতে বলেন, ‘খাশোগিকে খুন করানো হয়ে থাকতে পারে।’

ট্রাম্পের এমন মন্তব্যই খাশোগি হত্যাকাণ্ডে রিয়াদের জড়িত থাকার সম্ভাবনা আরও পোক্ত হয়। এমনকি বিষয়টি নিয়ে দ্রুত সমাধানে আসতে সৌদি যুবরাজ সালমানের সঙ্গে আলোচনা করতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে পাঠিয়েছেন ট্রাম্প।

সূত্রের বরাতে সিএনএন আরও জানিয়েছে, সৌদি আরব খাশোগির পরিণতির ব্যাখ্যায় বলবে, খাশোগিকে সৌদি আরবে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশনা ছিল। কিন্তু তা না করে কনসুলেটের ভেতরই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ ও নির্যাতন চালানো হয়, যা শেষ পর্যন্ত ভুল পথে পরিচালিত হয়।

এক সূত্র জানিয়েছে, খাশোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে সৌদি আরব যে স্বীকারোক্তিমূলক প্রতিবেদনে প্রকাশ করতে যাচ্ছে, সেখানে বলা হয়েছে- হত্যাকাণ্ডের উদ্দেশ্য পরিষ্কার নয় এবং কোনো স্বচ্ছতা ছাড়াই এটি ঘটানো হয়েছে। এক্ষেত্রে দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তির মুখোমুখি করা হবে। 

সূত্র বলছে, প্রতিবেদনটিতে এখনও ঘষামাজা চলছে এবং এর কোনো অংশ পরিবর্তন করা হবে কি না সে ব্যাপারে সতর্কতা অবলম্বন করা হচ্ছে।

ওয়াশিংটন পোস্টের এই কলামিস্টের হত্যাকাণ্ড নিয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর সঙ্গে রিয়াদের সম্পর্কে নতুন টানাপড়েন শুরু হয়েছে। খাশোগিকে হত্যা করা হয়েছে বিষয়টি নিশ্চিত হলে সৌদি আরবকে ‘কঠিন শাস্তি’ দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। 

এরই মধ্যে চলতি মাসে রিয়াদে অনুষ্ঠিতব্য ‘মরুভূমির দাভোস’ খ্যাত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন থেকে নিজেদের সরিয়ে নিয়েছে অনেক স্পন্সর প্রতিষ্ঠান ও গণমাধ্যম।

Comments

The Daily Star  | English

Law and order disruption won't be tolerated, DMP commissioner says about quota protests

Addressing the quota reform protesters, Dhaka Metropolitan Police (DMP) Commissioner Habibur Rahman said any attempts to disrupt law and order would not be tolerated

43m ago