ব্যাটিং বিপর্যয়ও যখন আশীর্বাদ

‘দাগ থেকে যদি ভালো কিছু হয় তবে দাগই ভালো’, বিজ্ঞাপনের এই লাইনই যেন মাশরাফি মর্তুজার কথার অনুরণন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে দুবার ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ল বাংলাদেশ, আর অধিনায়ক এই পরিস্থিতিকে বলছেন, ভালোই তো হয়েছে। কেন ভালো, তার ব্যাখ্যা অবশ্য বেশ যুক্তিসঙ্গত।
Mashrafee Mortaza
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

‘দাগ থেকে যদি ভালো কিছু হয় তবে দাগই ভালো’, বিজ্ঞাপনের এই লাইনই যেন মাশরাফি মর্তুজার কথার অনুরণন। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডেতে দুবার ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ল বাংলাদেশ, আর অধিনায়ক এই পরিস্থিতিকে বলছেন, ভালোই তো হয়েছে। কেন ভালো, তার ব্যাখ্যা অবশ্য বেশ যুক্তিসঙ্গত।

টস জিতে ব্যাট করতে নেমে  এক পর্যায়ে বেশ বড় চিন্তার ভাঁজ পড়েছিল বাংলাদেশের। শুরুতে ১৭ রানে ২ উইকেট নেই। সামলে উঠে এগুনোর পর ১৩৭ রানে গিয়ে ফের বিপর্যয়। ২ রানের মধ্যেই নেই আরও ৩ উইকেট। তারপরই ইমরুল কায়েসের সঙ্গে মোহাম্মদ সাইফুদ্দিনের ১২৭ রানের জুটি। তাতে দলের নিরাপদ জায়গায় পৌঁছে যাওয়া। মাশরাফি পুরো পরিস্থিতিকে দেখছেন ইতিবাচক হিসেবে, ‘আমার দিক থেকে খুশি হয়েছি যে সাইফউদ্দিনের রান করাটা। এই পজিশন গুলো দেখা। আমি আগেও বলেছি হয়তো আইডল পরিস্থিতি না। কিন্তু এ সমস্ত সুযোগ গুলো যদি না আসতো তাহলে কিন্ত ওদেরও আত্মবিশ্বাস বাড়ত না। আমাদেরও আত্মবিশ্বাসের লেভেল বাড়ত না।’

গত কদিন থেকেই বাংলাদেশ দলের নিয়মিত দৃশ্য ছিল টপ অর্ডারের ব্যর্থতার পর মিডল অর্ডারের রান পাওয়া। শেষ দিকে আবার লেট মিডল অর্ডারে ধস। আবার তার ব্যতিক্রম হওয়ায় তৃপ্ত অধিনায়ক, ‘অনেক সময় যেটা হয় অন্যান্য দলে, টপ অর্ডারে রান হলে মিডল অর্ডারে এক্সপোজ হয় না। আমাদের ক্ষেত্রে লেট মিডল অর্ডারও এক্সপোজ হয়ে যায়। এবার সেখান থেকে ফিরে আসতে পেরেছি। এটা কিন্তু আমাদের  উপরে যেতে সহায়তা করবে।’

‘সব সময় যদি আপনি মুশফিক-রিয়াদ পর্যন্ত গিয়ে খেলা শেষ করেন এবং বড় স্টেজে গিয়ে যখন এটা হবে না তখন কিন্তু দল দমে যাবে। এটা একদিক থেকে ভালো। মিডল অর্ডারের পরও যে লেট মিডল অর্ডার এক্সপোজ হয়েছে সেটা ভালো। ’

টপ আর মিডল অর্ডারে যারা প্রথম ম্যাচে রান পাননি তাদের নিয়ে বেশি চিন্তিত নন মাশরাফি। ছন্দে থাকা ব্যাটসম্যানরা শিগগিরই রান পাবেন বলে বিশ্বাস তার, ‘পরপর তিন উইকেট পড়াটা অবশ্য আদর্শ না। তবে সবাই রানে আছে। ওদের রানে ফেরাটা সময়ের ব্যাপার। আরেকটা ইতিবাচক দিক আছে। পরপর দুই ম্যাচে ব্যাক টু ব্যাক ওপেনারদের সেঞ্চুরি পাওয়া, তামিম না থেকেও। এটা অনেক বড় পাওয়া। কারণ এখানটায় আমরা অনেক দিন থেকে স্ট্রাগল করছিলাম।’

 

Comments

The Daily Star  | English
Civil society in Bangladesh

Our civil society needs to do more to challenge power structures

Over the last year, human rights defenders, demonstrators, and dissenters have been met with harassment, physical aggression, detainment, and maltreatment by the authorities.

8h ago