শেখ হাসিনা স্টেডিয়াম তৈরিতে ৪৮ মাসের চুক্তি

অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হতে যাচ্ছে শেখ হাসিনা স্টেডিয়াম তৈরির কাজ। এর জন্য নির্মাণ প্রতিষ্ঠান আর্কিটেকচারের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। অস্ট্রেলিয়ান প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে মোট ৪৮ মাসের চুক্তি করেছে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

অবশেষে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হতে যাচ্ছে শেখ হাসিনা স্টেডিয়াম তৈরির কাজ। এর জন্য নির্মাণ প্রতিষ্ঠান পপুলাস আর্কিটেকচারের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। অস্ট্রেলিয়ান প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে মোট ৪৮ মাসের চুক্তি করেছে দেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি।

বুধবার রাজধানীর একটি অভিজাত হোটেলে পপুলাস আর্কিটেকচারের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে বিসিবি। পপুলাসের পক্ষে পরিচালক অ্যান্ড্রু জেমস এবং বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন ৩৪৭ পাতার এ চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন। তবে স্টেডিয়াম বানানোর জন্য স্থানীয় একটি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করবে পপুলাস।

কাজ শুরু হওয়ার ৩০ মাসের মধ্যে শেষ হবে পূর্বাচলে অবস্থিত শেখ হাসিনা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নির্মাণ কাজ। তবে এরপর আরও ১২ মাস স্টেডিয়াম নিজেদের আয়ত্তে রেখে ত্রুটি ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করবে নির্মাণ প্রতিষ্ঠানটি। এর আগে প্রথম ছয় মাসে স্টেডিয়ামটি ডিজাইন তৈরি করবে প্রতিষ্ঠানটি।

বিশ্বের অনেক বড় বড় স্টেডিয়াম তৈরির অভিজ্ঞতা রয়েছে এ প্রতিষ্ঠানটির। তবে বাংলাদেশে কাজ করছে এবারই প্রথম। চুক্তি শেষে নিজাম উদ্দিন বলেন, 'শেখ হাসিনা স্টেডিয়াম নির্মাণের প্রথম ধাপ সম্পন্ন করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। অস্ট্রেলিয়ান প্রতিষ্ঠান পুপলাসের ৩৪৭ পাতার চুক্তিপত্রে ৪৮ মাসের মধ্যে কাজ সম্পন্ন করার সময়সীমা দেওয়া হয়েছে প্রতিষ্ঠানটিকে। প্রথম ৬ মাস ডিজাইনের ওপর কাজ করবে তারা। পরের ৩০ মাসে স্টেডিয়ামের অবকাঠামো তৈরি করতে হবে। শেষ ১২ মাস ছোটখাটো ভুলত্রুটিগুলো সংশোধনের কথা বলা হয়েছে।'

তবে এদিনই খসড়া ডিজাইন প্রেজেন্টেশনে দেখিয়েছে পপুলাস। নৌকার আদলে তৈরি করা হয়েছে এ নকশা। তবে স্টেডিয়ামটি নির্মাণে মোট কত বাজেট করা হয়েছে তা জানায়নি বিসিবি। ডিজাইন চূড়ান্ত হওয়ার পর বাজেট ঠিক হবে বলে জানানো হয়েছে।

Comments