ওরেল, শচিনের সঙ্গে দুর্ভাগা রেকর্ডে খাওয়াজা

আউট হয়ে অল্পের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি হাতছাড়ার আক্ষেপে পুড়েছেন অনেকে। তবে আউট না হয়েও খুব কাছে গিয়ে আক্ষেপে পুড়তে হয়েছে খুব কম লোককে।
Usman Khawaja

আউট হয়ে অল্পের জন্য ডাবল সেঞ্চুরি হাতছাড়ার আক্ষেপে পুড়েছেন অনেকে। তবে আউট না হয়েও খুব কাছে গিয়ে আক্ষেপে পুড়তে হয়েছে খুব কম লোককে। সঙ্গীর অভাবে ১৯০ পার হয়ে ডাবল সেঞ্চুরি করতে না পারার ঘটনা যেমন তিনটি, আবার কোন ব্যাটসম্যান ১৯০ পার হয়ে যাওয়ার পর দলের ইনিংস ঘোষণার ঘটনাও ইতিহাসে ঘটল মাত্র তৃতীয়বার। 

এবার এই দুর্ভাগাদের দলে নাম উঠল অস্ট্রেলিয়ার উসমান খাওয়াজার। যেখানে আগে থেকে ছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ফ্র্যাঙ্ক ওরেল ও ভারতের কিংবদন্তি শচিন টেন্ডুলকার।

শচিন ও ওরেলের নিজ দলের অধিনায়কদের দোষারোপ করার যুক্তি ছিল। খাওয়াজার সেটা থাকছে না। তাকে ডাবল সেঞ্চুরি পাওয়াতে প্যাট কামিন্স তো যথেষ্ট চেষ্টাই করেছিলেন। প্রকৃতি অমন বেরসিক হলে কি আর করা!

শনিবার খাওয়াজাকে ১৯৫ রানে রেখেই ৪৭৫ রানে ইনিংস ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে সিডনি টেস্টে দ্বিতীয় দিন শেষে ছিল এই পুঁজিই। তৃতীয় দিনে খেলা হয়নি এক বলও। দিন শেষে খাওয়াজা জানিয়েছিলেন এই রানে ইনিংস ঘোষণা হলে সেটা তার জন্য হবে নির্মম ব্যাপার।

চতুর্থ দিনে নেমে শুরুতে ব্যাট করার ইচ্ছা ছিল অজিদের। কিন্তু চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনও ভেসে যায় বৃষ্টিতে। দ্বিতীয় সেশনে আর অপেক্ষা করেননি কামিন্স, ঘোষণা করে দেন ইনিংস। মাত্র ৫ রানের জন্য হাহাকারে পুড়তে হয় খাওয়াজাকে। কামিন্সকে অবশ্য দায় দেওয়ার অবস্থা নেই তার।  একজন অধিনায়ক তো জেতার রাস্তা বের করতে প্রথম চেষ্টাটা চালাবেন।

কোন ব্যাটারের ১৯০ ছাড়ানোর পর ইনিংস ঘোষণার প্রথম নজির ১৯৬০ সালে। সেবার ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্রিজটাউন টেস্টে ওরেলকে ১৯৭ রানে রেখে ইনিংস ছেড়ে দেন তখনকার ক্যারিবিয়ান কাপ্তান জেরি আলেক্সজেন্ডার। নিশ্চিতভাবে ড্রয়ের দিকে ছুটে যাওয়া ম্যাচে আরও অল্প কিছু সময় পেতেই পারতেন ওরেল।

অল্প সময় পেতে পারতেন শচিনও। ২০০৪ সালে মুলতানে পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ১৯৪ রানে অপরাজিত ছিলেন ভারতের ইতিহাস সেরা ব্যাটার। কিন্তু তাকে ওই রানে রেখেই দলের ৬৭৫ রানে ইনিংস ছেড়ে দেন রাহুল দ্রাবিড়। দ্রাবিড়ের সিদ্ধান্তে বিস্মিত হন শচিন, পরেও নানা সময়ে এই সিদ্ধান্তের প্রতি হতাশা জানাতে দেখা গেছে তাকে।

ভারত সেই টেস্ট পঞ্চম দিন সকালের মধ্যে ইনিংস ও ৫২ রানে জিতলে শচিনকে আরেকটু সময় না দেওয়া আলোচিত হয়েছিল তুমুল।

১৯০ ছাড়িয়ে অপরাজিত থাকার ঘটনা অবশ্য আছে আরও। সঙ্গী আউট হয়ে যাওয়ায় আক্ষেপে পুড়তে হয়েছিল ভিভ রিচার্ডস (১৯২), অ্যান্ডি ফ্লাওয়ার (১৯৯) ও কুমার সাঙ্গাকারাকে(১৯৯)।

খাওয়াজার আক্ষেপের পর ম্যাচে কিছুটা রোমাঞ্চ তৈরি করেছে অস্ট্রেলিয়া। একশো রানের ভেতর দক্ষিণ আফ্রিকার চার উইকেট তুলে নেয় তারা। দিনশেষে প্রোটিয়াদের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ১৪৯ রান।  যদিও আর কেবল একদিন বাকি থাকায় এই টেস্টে ফল বের করা ভীষণ কঠিন হবে অজিদের।

Comments

The Daily Star  | English

Big Tobacco Push drives up per hectare production

Bangladesh’s tobacco production per hectare has grown by nearly 21 percent over the last five years, indicating a hard push by big tobacco companies for more profit from a product known to be a serious health and environmental concern.

3h ago