মোহামেডানের জয়ে নায়ক লিন্টট, প্বার্শনায়ক সাকিব

বুধবার ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ১০ রানে হারায় মোহামেডান। আগে ব্যাট করে মোহামেডানের করা ১৯০ রানের পুঁজি টপকাতে এক পর্যায়ে ২ উইকেটে ১০৫ রানে ছিল ব্রাদার্স। এরপর আচমকা ব্যাটিং ধসে শেষ পর্যন্ত ১৮০ রানে থেমে যায় তারা।
Shakib Al Hasan
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

ম্যাচটা হারলে পরের পর্বে যাওয়ার আশা প্রায় মিইয়ে যেত মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের। ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে সেরা তারকাদের নিয়েও অবশ্য হারতে  বসেছিল তারা। শেষ পর্যন্ত মোহামেডানের জয়ের নায়ক ইংলিশ স্পিনার জ্যাক লিন্টট। ব্যাটে বলে অবদান রেখে প্বার্শনায়কের ভূমিকায় ছিলেন দলের সবচেয়ে বড় তারকা সাকিব আল হাসানও।

বুধবার ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলি স্টেডিয়ামে ব্রাদার্স ইউনিয়নকে ১০ রানে হারায় মোহামেডান। আগে ব্যাট করে মোহামেডানের করা ১৯০ রানের পুঁজি টপকাতে এক পর্যায়ে ২ উইকেটে ১০৫ রানে ছিল ব্রাদার্স। এরপর আচমকা ব্যাটিং ধসে শেষ পর্যন্ত ১৮০ রানে থেমে যায় তারা।

Jake Lintott
৫ উইকেট নেন জ্যাক লিন্টট। ছবি: ফিরোজ আহমেদ

মোহামেডানকে জেতাতে ৩৭ রানে ৫ উইকেট নিয়েছেন রিস্ট স্পিনার লিন্টট, ব্যাট হাতেও তিনি করেন ২৮ রান।  সাকিব ৩০ রানে পেয়েছেন ২ উইকেট। এর আগে দলের বিপর্যয়ে ৩৭ রানের ইনিংস খেলেন সাকিব। দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দিতে অবশ্য সর্বোচ্চ ৫৮ রান এসেছে মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে।

১৯০ রানের ভেতর প্রতিপক্ষকে আটকাতে প্রথম ব্রেক থ্রো আনেন সাকিবই। তৃতীয় ওভারে তানজিদ হাসান তামিমকে তুলে নেন তিনি। সপ্তম ওভারে ফের সাকিবের আঘাত। এবার ছন্দে থাকা ব্রাদার্সের ব্যাটার সাব্বির হোসেনকে শিকার ধরেন শীর্ষ তারকা।

এরপরই আনিসুল ইসলাম ইমন আর জাহিদুজ্জামানের জুটিতে দাঁড়িয়ে যায় ব্রাদার্স। ছোট রান তাড়ায় সাদা-কালো শিবিরে ভয় ধরিয়ে দিতে থাকেন তারা। ৭১ রানের জুটির পর ছোবল হানা শুরু লিন্টটের। ৪৭ বলে ৪০ করা আনিসুল ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তার বলে।

আনিসুলের বিদায়ের পর তাসের ঘরের মতো ধসে যেতে থাকে ব্রাদার্স। এক রানের ভেতর ৪ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। ১৫২ রানে ৮ উইকেট পড়ার পর খেলা হেলে যায় মোহামেডানের দিকে। তবে মিনহাজুল আবেদিন সাব্বির টেল এন্ডারদের নিয়ে জিইয়ে রাখেন ব্রাদার্সের আশা। ৬৯ বলে ৩৬ করা মিনহাজুলকে দলের ১৭০ রানে ফেরান শুভাগত হোম চৌধুরী। শেষ উইকেটেও জেতার আশা ছিল। ১০ রান দূরে থাকতে আব্দুল গাফফার রনিকে থামিয়ে উৎসবে মাতেন লিটন্ট।

সকালে টস হেরে ব্যাট করতে গিয়ে মোহামেডান ছিল বিপর্যস্ত। মোহর শেখ অন্তরের তোপে ৫৯ রানে ইমরুল কায়েস,  মাইদুল ইসলাম, সৌম্য সরকার আর মেহেদী হাসান মিরাজকে হারিয়ে ফেলে তারা।

পঞ্চম উইকেটে দুই অভিজ্ঞ সাকিব ও মাহমুদউল্লাহ যোগ করেন ৫৩ রান। সাকিব ৩৭ করে আনিসুলের শিকার হলেও মাহমুদউল্লাহ তুলে নেন ফিফটি। অবশ্য দলকে বড় পুঁজিই পাইয়ে দেওয়ার আগে বিদায় নেন তিনিও। শেষ দিকে লিন্টট ২৮ রান করলে দুশোর কাছে যেতে পারে মোহামেডান। ওই পুঁজি নিয়ে দলকে জেতাতেও মূল ভূমিকায় ছিলেন লিন্টট।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এদিন মিরপুরে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ৫ উইকেটে হারিয়েছে সিটি ক্লাবকে। বিকেএসপিতে ঢাকা লেপার্ডের বিপক্ষে ৭৬ রানে জিতেছে শাইনপুকুর।

Comments

The Daily Star  | English

Death came draped in smoke

Around 11:30, there were murmurs of one death. By then, the fire, which had begun at 9:50, had been burning for over an hour.

22m ago