অ্যাশেজ ২০২৩

লর্ডস টেস্টের আগে কথার লড়াইয়ে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটাররা

লর্ডসে দ্বিতীয় টেস্টে নামার আগে সাধারণ ক্রিকেটীয় ভব্যতার বাইরে গিয়ে একে অন্যকে হুঙ্কার দিতে দেখা যাচ্ছে তাদের।

এজভাস্টনে রোমাঞ্চকর প্রথম টেস্টের পর অ্যাশেজের উত্তাপ চড়া। সেই উত্তাপ আরও বাড়িয়ে দিচ্ছেন দুই দলের ক্রিকেটাররা। লর্ডসে দ্বিতীয় টেস্টে নামার আগে সাধারণ ক্রিকেটীয় ভব্যতার বাইরে গিয়ে একে অন্যকে হুঙ্কার দিতে দেখা যাচ্ছে তাদের।

বুধবার থেকে লর্ডসে শুরু হবে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় টেস্ট। তার আগে এজবাস্টনে ২ উইকেটে হারের ক্ষতটা বেশ পোড়াচ্ছে ইংল্যান্ডকে। কথার লড়াইও তারাই বেশি ঝাঁজ দেখাচ্ছেন।

পেসার ওলি রবিনসন ব্রিটিশ এক গণমাধ্যমে কলাম লেখেন, প্রথম টেস্টে রক্ষণাত্মক অস্ট্রেলিয়াকে দেখে অবাক হয়েছিলেন তারা। এটা এজবাস্টনে কাজে দিলেও লর্ডসে দেবে না, কারণ ইংল্যান্ড আরও আক্রমণ করে খেলবে। আরেক পেসার স্টুয়ার্ট ব্রডও বলছেন, আরও অনেক বেশি আগ্রাসী হবেন তারা।

তবে ব্যাটার জ্যাক ক্রলির হুঙ্কারটা বেশি কড়া। লর্ডসে অজিদের ধসিয়ে দেওয়ার আওয়াজ তুলেছেন তিনি,  'আমার মনে হয় আমরা জিতব, এই পিচ আমাদের জন্য বেশি জুতসই হবে। সেজন্য আমরা জিতব…জানি কত রান, ১৫০ রান?'

ইংল্যান্ডের খেলোয়াড়দের কাছ থেকে আপন দাপুটে আওয়াজ শুনে দমে যাওয়ার পাত্র নয় অজিরা।  বাঁহাতি ব্যাটার ট্রেভিস হেড নাইন নিউজ সিডনিকে বলা কথায় তেমন আভাসই দিয়েছেন,  'মনে হচ্ছে লর্ডসে আমরা স্রেফ লাঞ্চ খেতে যাব। হ্যাঁ ইংল্যান্ডের এই ধরণটা (আগ্রাসী) আছে, তারা সেটাই অনুসরণ করছে।' 

হেড বলছেন, বড় বড় কথার আড়ালে আসলে চিন্তায় অস্থির ইংল্যান্ড। প্রথম টেস্ট হেরে যাওয়ার পর চাপে আছে স্বাগতিকরাই, 'কেবল মাঠে নয় (স্লেজিং), মাঠের বাইরেও তারা সুন্দর কথা বলছে। তবে দলটি আসলে চিন্তিত। আমরা দ্বিতীয় টেস্ট জিতে ২-০ তে এগিয়ে গেলে কি হবে সেটা ভাবছে তারা।'

এদিকে 'বাজবল' নিয়ে অনেক সমালোচনা থাকলেও রোমাঞ্চকর ক্রিকেটের ধারা থেকে সরছে না ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় টেস্টেও শুরু থেকে প্রতিপক্ষের উপর চাপ বাড়াতে চায় তারা। অস্ট্রেলিয়া এর জবাব দিতে চায় প্রথাগত ঘরানায়, আস্থা রাখতে চায় নিজেদের শক্তির উপর।

Comments

The Daily Star  | English

New School Curriculum: Implementation limps along

One and a half years after it was launched, implementation of the new curriculum at schools is still in a shambles as the authorities are yet to finalise a method of evaluating the students.

30m ago