ক্রিকেট

বিশাল অঙ্কে বেতন বাড়ছে বাবর-শাহিন-রিজওয়ানদের

এক ধাক্কায় চার থেকে পাঁচ গুণ বেতন বাড়তে যাচ্ছে পাকিস্তানি ক্রিকেটারদের।
ফাইল ছবি

খেলোয়াড়দের বেতন বৃদ্ধি করতে যাচ্ছেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। তবে তা নির্ভর করবে খেলোয়াড়দের প্রতিভা এবং খেলার প্রতি নিবেদনের উপর ভিত্তি করে। সম্প্রতি ক্রিকেট পাকিস্তানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন পিসিবির পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান জাকা আশরাফ।

পিসিবির সঙ্গে ক্রিকেটারদের ২০২২-২৩ মৌসুমে চুক্তি শেষ হয়ে গেছে জুনের শেষে। এরপর ২০২৩-২৪ মৌসুমের চুক্তিতে এখনও স্বাক্ষর করেননি বাবর আজম, শাহিন শাহ আফ্রিদিরা। কারণ বেতন বাড়লেও, সেই অঙ্কে খুশি ছিলেন না ক্রিকেটাররা। তাই বেতনের পরিমাণ আরও বাড়ানোর দাবি করে তারা। আর তাদের দাবি মেনে নিয়েছে পিসিবি। জাকা আশরাফ বিশ্বাস করেন যে ক্রিকেটারদের কারণেই বোর্ড চলে।

পুরো কেন্দ্রীয় চুক্তিকেই ঢেলে সাজানোর দাবি ছিল খেলোয়াড়দের। যেখানে বেতন বৃদ্ধির পাশাপাশি বিমা সুবিধা, ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে অংশগ্রহণের নিয়ম পরিবর্তন এবং লভ্যাংশ বণ্টনের মতো বিষয়গুলো অন্তর্ভুক্ত করার দাবি ছিল ক্রিকেটারদের। আর ফ্র্যাঞ্চাইজি টুর্নামেন্টে এনওসি না পেলে তার ক্ষতিপূরণও পেয়েছে তারা।

অধিনায়ক বাবর আজম, মোহাম্মদ রিজওয়ান এবং শাহিন শাহ আফ্রিদি সহ তিন সংস্করণের শীর্ষ ক্রিকেটারদের প্রত্যেককে মাসিক ৪৫ লাখ রুপির বেতনের প্রস্তাব করা হয়েছে। আগের চুক্তির থেকে বিশাল অঙ্কেই তা বাড়ানো হয়েছে। এর আগে লাল বলের খেলোয়াড়রা প্রতি মাসে ১১ লাখ রুপি এবং সাদা বলের খেলোয়াড়রা সাড়ে ৯ লাখ রুপি পেতেন।

খেলোয়াড়দের দাবি বিবেচনায় নিয়ে অন্যান্য খাতেও আয় বাড়ানোর কথা ভাবছে পিসিবি। বোর্ডের লক্ষ্য ক্রিকেটাররা যেন তাদের দক্ষতা এবং প্রচেষ্টার জন্য ভালোভাবে পুরস্কৃত হয়, তাতে জাতীয় দলের প্রতি কর্মক্ষমতা এবং নিবেদন আরও বাড়বে বলে বিশ্বাস তাদের। পাশাপাশি, আন্তর্জাতিক লিগে অংশগ্রহণের জন্য খেলোয়াড়দের আরও নমনীয়তাও দিচ্ছে পিসিবি।

এ-ক্যাটাগরির ক্রিকেটাররা বছরে একটি টি-টোয়েন্টি লিগে যোগ দিতে পারবেন। আর বি-ক্যাটাগরির ক্রিকেটাররা বছরে দুটি লিগে এবং সি ক্যাটাগরির ক্রিকেটাররা বছরে তিনটি লিগে অংশ নেওয়ার সুযোগ পাবেন। তবে আইসিসি বা পিসিবি চুক্তি থেকে রাজস্ব ভাগাভাগির দাবিটি মেনে নেয়নি তারা।

সাবেক তিন অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক, ইনজামাম-উল-হক ও মোহাম্মদ হাফিজকে নিয়ে গড়া ক্রিকেট টেকনিক্যাল কমিটির সহায়তায় চুক্তির পুরো বিষয়টি করা হয়েছে। মিসবাহর নেতৃত্বে এই কমিটি ক্রিকেটারদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। তাই চুক্তি হওয়া নিয়ে আশাবাদী পিসিবি।

Comments

The Daily Star  | English

All animal waste cleared in Dhaka south in 10 hrs: DSCC

Dhaka South City Corporation (DSCC) has claimed that 100 percent sacrificial animal waste has been disposed of within approximately 10 hours

46m ago