'পজিটিভ ক্রিকেট'ই তানজিদের শক্তি

আগ্রাসী মানসিকতার ক্রিকেটার হিসেবেই পরিচিত তানজিদ হাসান তামিম। তিনি এটাকে বলছেন ইতিবাচক মানসিকতার ক্রিকেট।

বর্তমান সময়ে ওয়ানডে ক্রিকেট বদলে গিয়েছে অনেকটাই। তিনশ, সাড়ে তিনশ রান হচ্ছে হরহামেশাই। চারশ রান করাও চমকের কিছু নয়। এরজন্য ওপেনিংয়ে শক্ত ভিত্তি চায় দলগুলো। ঠিক সে কাজটি করে দেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে বাংলাদেশ দলের নতুন মুখ তানজিদ হাসান তামিমের। আগ্রাসী মানসিকতার ক্রিকেটার হিসেবেই পরিচিত তিনি। তবে তানজিদ এটাকে বলছেন ইতিবাচক মানসিকতার ক্রিকেট। আর এটাই তার মূল শক্তি বলে জানান এই তরুণ।

বাংলাদেশের ক্রিকেটে তানজিদের উঠে আসা বয়সভিত্তিক দল থেকে। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়ী দলের সদস্য। বিশ্বকাপের পর অবশ্য অফফর্মে ছিলেন বেশ কিছু দিন। তবে এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে দারুণ খেলে আবার ফোকাসে আসেন। তবে নির্বাচকদের নজর কাড়েন ইমার্জিং এশিয়া কাপে। চার ম্যাচের তিনটিতেই করে ফিফটি। তাও আগ্রাসী ঢঙ্গে। শ্রীলঙ্কা 'এ' দলের বিপক্ষে ৩৯ বলে ৫১, ওমানের বিপক্ষে ৪৯ বলে ৬৮ এবং ভারতের বিপক্ষে ৫৬ বলে ৫১ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। তাতেই তার জায়গা মিলে এশিয়া কাপের ১৭ জনের স্কোয়াডে।

এশিয়া কাপেও এমন আগ্রাসী তানজিদকেই দেখতে চান সবাই। তবে এ ক্রিকেটার ভাবছেন না এমন কিছু। ইতিবাচক থেকে নিজের সামর্থ্য অনুযায়ী খেলার কথাই বললেন তিনি, 'দেখেন আমি এইসব চিন্তা করে ব্যাটিংয়ে নামি না। ব্যাক অব দ্য মাইন্ড এটাই থাকে যে পজিটিভ ক্রিকেট খেলব। অনেকেই বলে আমি অনেক অ্যাগ্রেসিভ ক্রিকেট খেলি। এই রকম না। আমি জাস্ট নরমাল থাকার ট্রাই করি। আমার স্ট্রেন্থের উপর বিলিভ রাখার ট্রাই করি। আমার বিলিভ করি আমার স্ট্রেন্থে এবং পজিটিভ খেলায়।'

ইতিবাচক মানসিকতার ক্রিকেটার বরাবরই পছন্দ বাংলাদেশ দলের কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের। এই লঙ্কান কোচও তাই তাকে তার স্বাভাবিক ক্রিকেটটাই খেলতে বলেছেন বলে জানান তানজিদ,  'ন্যাশনাল টিমে আসার পর কোচ একবার বলছে, তুমি এতো দিন যে ভাবে খেলে আসছো, তোমার ন্যাচারাল ওইটাই খেলবা। উনি বলছে যে, তোমার যদি নিজ থেকে সমস্যা থাকে তাহলে আমার কাছে এসে কথা বলবা। বেশি কিছু চেঞ্জ করার চেষ্টা করো না।'

মূলত সাবেক অধিনায়ক তামিম ইকবালের ইনজুরির কারণে এশিয়া কাপে জায়গা পেয়েছেন তানজিদ। দুই জনের নামের মিলের সঙ্গে খেলার ধরণেও মিল দেখছেন অনেকে। তরুণ অবস্থায় তামিম ইকবাল যেভাবে খেলতেন এখন তানজিদ তামিম সেভাবেই খেলেন বলে জানিয়েছেন তার উঠে আসার অন্যতম কারিগর সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাহমুদ সুজন। সবমিলিয়ে এখনই প্রত্যাশার চাপ অনুভব করছেন এই তরুণ। তবে তা নিয়ে চিন্তিত নন তিনি, 'প্রফেশনালি ক্রিকেট খেলি। এটা প্রেশারের খেলা। গেমে অনেক ধরনের সিচুয়েশন থাকে, জিনিসটা যত তাড়াতাড়ি হ্যান্ডেল করতে পারব, তত তাড়াতাড়ি আমরা বেটার ক্রিকেট খেলতে পারব।'

তবে প্রথমবার সুযোগ পেয়েই তামিম ইকবালের অভাবটা পূরণ করার প্রত্যয় দেখান তানজিদ, ' আমি মনে করি তামিমের ভাই উনি সবার জন্য আইডল। ওনাকে দেখে ছোট থেকে বড় হয়েছি আমি। তো চেষ্টা করব, নিজের বেস্টটা দেওয়ার, জায়গাটা ধরে রাখার।'

Comments

The Daily Star  | English

Sajek accident: Death toll rises to 9

The death toll in the truck accident in Rangamati's Sajek increased to nine tonight

3h ago