ক্রিকেট

বিশ্বকাপ জিতে দেশে ফিরে সমর্থকদের ভিড় পেলেন না কামিন্সরা

বুধবার বিশ্বকাপ নিয়ে দেশে ফেরে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের একটি বহর। কিন্তু হাতেগোনা কয়েকটি গণমাধ্যম ক্যামেরা ছাড়া তাদের স্বাগত জানাতে সেভাবে কোন ভিড় হয়নি।

বিশ্বকাপ জিতে দেশে ফিরে সমর্থকদের ভিড় পেলেন না কামিন্সরা

বুধবার বিশ্বকাপ নিয়ে দেশে ফেরে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের একটি বহর। কিন্তু হাতেগোনা কয়েকটি গণমাধ্যম ক্যামেরা ছাড়া তাদের স্বাগত জানাতে সেভাবে কোন ভিড় হয়নি।
প্যাট কামিন্স

উপমহাদেশ হলে হয়ত দেখা যেত ভিন্ন চিত্র। বিশ্বকাপ জেতা কোন দলকে নিয়ে বিপুল আয়োজনই স্বাভাবিক এসব অঞ্চলে। অস্ট্রেলিয়ার বাস্তবতা ভিন্ন। ৬ষ্ঠ বারের মতোন বিশ্বকাপ জিতে ঘরে ফিরে খুব আড়ম্বরপূর্ণ কিছু পেলেন না প্যাট কামিন্স।

বুধবার বিশ্বকাপ নিয়ে দেশে ফেরে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটারদের একটি বহর। কিন্তু হাতেগোনা কয়েকটি গণমাধ্যম ক্যামেরা ছাড়া তাদের স্বাগত জানাতে সেভাবে কোন ভিড় হয়নি।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ায় জনপ্রিয় খেলা না, বিশ্বকাপ জেতাও তাদের কাছে নতুন কোন ঘটনা না। হয়ত সে কারণেই আসেনি বিশাল উৎসবের কোন আমেজ।

বিমানবন্দরে নেমে বেরিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকটি গণমাধ্যম ঘিরে ধরে কামিন্সকে। বিশ্বকাপ জেতা অধিনায়ক তাদের সঙ্গে সংক্ষিপ্ত আলাপে জানান, চারদিন হয়ে গেলেও এখনো ঘোর কাটছে না তার, 'আরও কয়েকদিন হাসিমুখেই দেখবেন। এখনো তো ঘোরের মাঝেই আছি। মনে হচ্ছে আধঘণ্টা আগে বিশ্বকাপ জিতলাম। চার বছর পর পর একটা বিশ্বকাপ আসে। সেটা জেতা, ভারতের মতন জায়গায় জেতা খুব কঠিন ছিলো।'

কামিন্স, জশ হ্যাজেলউডরা আপাতত কদিন পাচ্ছেন বিশ্রাম। তবে ভারতেই রয়ে গেছেন গ্লেন ম্যাক্সওয়েলসহ কয়েকজন। ভারতের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের একটা টি-টোয়েন্টি সিরিজ আছে তাদের।

কামিন্সরা মাঠে নামবেন আগামী ১৪ ডিসেম্বর। পার্থে সেদিন পাকিস্তানের বিপক্ষে শুরু হবে তাদের টেস্ট সিরিজ। সতীর্থদের সঙ্গে তাই শিগগিরই আবার দেখা হবে, 'গ্রীষ্ম (অস্ট্রেলিয়ান সামার) মৌসুমে তো অনেক খেলা থাকে। দুই সপ্তাহ বিশ্রাম নিয়েই নেমে পড়ব। ওয়ানডে ও টেস্ট দল প্রায় একই। সবার সঙ্গে আবার দেখা হয়ে যাবে।'

Comments

The Daily Star  | English
Sheikh Hasina's Sylhet rally on December 20 | Hasina doubts if JP will stay in the race

President, PM express shock over Bailey Road blaze

President Mohammed Sahabuddin and Prime Minister Sheikh Hasina today expressed deep shock and sorrow over the fire incident at a commercial-cum-residential building on Bailey Road in Dhaka that claimed dozens of lives

42m ago