মিরপুর টেস্ট

স্পিন বিষে ১৫ উইকেট পতনের দিন

বুধবার দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিন পুরোটাই ছিল ঘটনায় ভরপুর। প্রায় প্রতি ওভারেই কোন না কোন কিছু হচ্ছিল। বাংলাদেশের ১৭২ রানের জবাবে ১২.৩ ওভারে ৫৫ রান তুলতেই কিউইরা হারিয়ে ফেলেছে  ৫ উইকেট।
Mehidy Hasan Miraz
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

মিরপুরে টেস্টের প্রথম দিনেই যেন ম্যাচে দ্রুত শেষ হয়ে যাওয়ার আভাস। স্পিনারদের ঘূর্ণিতে বাংলাদেশ অলআউট হয়ে যাওয়ার পর নিউজিল্যান্ডও যেন আছে গুটিয়ে যাওয়ার পথে। এমন উইকেটে মাত্র ১৭২ রান করেও বেশ শক্ত অবস্থায় বাংলাদেশ দল।

বুধবার দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দিন পুরোটাই ছিল ঘটনায় ভরপুর। প্রায় প্রতি ওভারেই কোন না কোন কিছু হচ্ছিল। বাংলাদেশের ১৭২ রানের জবাবে ১২.৩ ওভারে ৫৫ রান তুলতেই কিউইরা হারিয়ে ফেলেছে  ৫ উইকেট। এখনো ১১৭ রানে এগিয়ে থাকা নাজমুল হোসেন শান্তদের অবস্থায় বেশ ভালোই বলা যায় এখন। 

দিনভর স্পিনারদের বল ছোবল হানল বারবার। বল শার্প টার্ন করতে থাকল, বেকায়দায় বাউন্স দেখা দিল। একই জায়গায় পড়ে কোন বল আবার সোজা গিয়ে করল বিভ্রান্ত। ব্যাটারদের জন্য ভীষণ কঠিন পরিস্থিতিতে রাজত্ব করলেন দুই দলের স্পিনাররা।

সকাল থেকেই এদিন আকাশ ছিলো কুয়াশায় ঢাকা,  সূর্যের দেখা পাওয়া যায়নি একবারও। এমন পরিস্থিতিতে টস জিতে ব্যাটিং বেছে নেওয়ার সাহস দেখান নাজমুল হোসেন শান্ত। অবশ্যই র‍্যাঙ্ক টার্নারে রান তাড়া হতো আরও দুঃসাহস।

ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই নড়বড়ে দেখাল বাংলাদেশের ব্যাটিং। পেসাররা বল করলেন প্রথম পাঁচ ওভার। এরপর স্পিনাররা আক্রমণে আসতেই তুলতে থাকলেন একের পর এক উইকেট। প্রথম সেশনে ৮০ রানে পড়ল ৪ উইকেট, দ্বিতীয় সেশনে মুশফিকুর রহিমের 'অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ডের'  আউটসহ ৬৯ রানে পড়ল আরও ৪ উইকেট। শেষ সেশনের শুরুতে গুটিয়ে গেল দল।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৩৫ রান করেন মুশফিক, সবচেয়ে বড় ভুলও করেন তিনি। কাইল জেমিসনের বল ডিফেন্ড করার পর হাত দিয়ে আটকে দিয়ে অদ্ভুতভাবে 'অবস্ট্রাক্টিং দ্য ফিল্ডের' আউটের শিকার হন তিনি। মুশফিক ছাড়া পরিস্থিতি বুঝে খেলছিলেন আরও একজন, সেই শাহাদাত হোসেন দিপু করলেন ৩২ রান। এছাড়া মেহেদী হাসান মিরাজ ২০ আর নাঈম হাসান করেন ১৩ রান। শুরুতে বারবার সুযোগ দেওয়া মাহমুদুল হাসান জয় করেছিলেন ১৪। বাকি আর কেউ দুই অঙ্কের দেখা পাননি।

বাংলাদেশের ব্যাটাদের কঠিন সময় দিয়ে মিচেল স্যান্টনার ৬৫ রানে ৩ ও গ্লেন ফিলিপস ৩১ রানে পান ৩ উইকেট।

বাংলাদেশকে ১৭২ রানে গুটিয়ে শেষ বিকেলে নেমে প্রথম পাঁচ ওভার পার করে দিলেও ধস নামে কিউই ইনিংসে। মিরাজের স্টাম্প বরাবর বল ছেড়ে বোল্ড হন ডেভন কনওয়ে। টম ল্যাথাম তাইজুল ইসলামের বলে ক্যাচ দেন কিপারের হাতে। হেনরো নিকোলস তাইজুলের বলে ছুঁড়ে দেন উইকেট।

মিরাজের বলে কেইন উইলিয়ামসন শর্ট লেগে শকার হন শাহাদাতের দারুণ ক্যাচের। কিপার ব্যাটার টম ব্ল্যান্ডেল এসেই ফেরেন এলবিডব্লিউতে।  আলো কমে যাওয়ায় এরপর যেন হাঁফ ছেড়ে বাঁচে কিউইরা। দিনের খেলা শেষের প্রায় ৮ ওভার আগে ৪টা ১৬ মিনিটে খেলা বন্ধ করে দিতে বাধ্য হন আম্পায়াররা।

মিরপুরের উইকেটের আচরণ আভাস দিচ্ছে দ্বিতীয় দিনে আরও নাটকীয় পরিস্থিতির। বৈরি আবহাওয়া ছাড়া এই ম্যাচের আয়ু বেশিদূর এগুনো মুশকিল।

Comments

The Daily Star  | English

BCL to hold protest rally at DU this afternoon

Bangladesh Chhatra League (BCL) will hold a protest rally today in response to recent attacks on students and activists

29m ago