কামিন্স-স্টার্কের তোপে জিতল অস্ট্রেলিয়া

পাকিস্তানের বিপক্ষে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া

মোহাম্মদ রিজওয়ান যতক্ষণ উইকেটে ছিলেন ততক্ষণ লড়াইয়েই ছিল পাকিস্তান। কিন্তু এই উইকেটরক্ষক ব্যাটারের বিতর্কিত আউটের পরই ধস নামে তাদের ব্যাটিং লাইনআপে। শেষ পর্যন্ত বড় হারই মানতে হয় পাকিস্তানকে। এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করল অস্ট্রেলিয়া।

শুক্রবার মেলবোর্ন টেস্টের চতুর্থ দিনে এসে পাকিস্তানকে ৭৯ রানে হারিয়েছে অজিরা। তাদের দেওয়া ৩১৭ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ২৩৭ রানে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান। এর আগে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ২৬২ রানে অলআউট প্যাট কামিন্সের দল।

তবে জয় ছাপিয়েই এই ম্যাচে বড় আলোচনার বিষয় মোহাম্মদ রিজওয়ানের আউট। হটস্পটে কোনো কিছুই ধরা পড়েনি। ব্যাট এবং বলের মধ্যে ফাঁকও ছিল স্পষ্ট। কিন্তু স্নিকো দেখে তাকে আউটের ঘোষণা দেন তৃতীয় আম্পায়ার। আর রিজওয়ান আউট হতেই ১৮ রানের ব্যবধানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে গুটিয়ে যায় পাকিস্তান।

লক্ষ্য তাড়ায় অবশ্য শুরুটা ভালো ছিল না সফরকারীদের। ব্যক্তিগত ৪ রানেই স্টার্কের শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন আবদুল্লাহ শফিক। কামিন্সের শিকার হওয়ার আগে আরেক ওপেনার ইমাম-উল-হক করতে পারেন ১২ রান। এরপর বাবর আজমকে নিয়ে ৬১ রানের জুটি গড়ে প্রতিরোধ গড়ার চালান অধিনায়ক শান মাসুদ। তবে পাক অধিনায়ককে নিজের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত করে ফের চাপ বাড়ান অজি অধিনায়ক কামিন্স। ৭১ বলে ৬০ রান করেন মাসুদ। যা ইনিংসের সর্বোচ্চ।

এরপর খুব বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সাবেক অধিনায়ক বাবরও। তাকে বোল্ড করে দেন জস হ্যাজলউড। ৭৯ বলে ৪১ রান করেন তিনি। উইকেট সেট হয়ে ইনিংস লম্বা করতে পারেননি সাউদ শাকিলও। ৫৫ বলে ২৪ রান করে স্টার্কের দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন এই মিডল অর্ডার ব্যাটার। ফলে বেশ চাপে পড়ে পাকিস্তান।

এরপর আঘা আলমানের সঙ্গে দলের হাল ধরেন রিজওয়ান। ৫৭ রানের জুটিতে পাকিস্তানিদের স্বপ্ন দেখাচ্ছিলেন এই দুই ব্যাটার। কিন্তু রিজওয়ানের বিতর্কিত আউটের পরই চিত্র বদলে যায় মুহূর্তেই। ৫ উইকেটে ২১৯ রান তোলা দলটি অলআউট হয়ে যায় ২৩৭ রানে।

রিজওয়ান ও সালমানের পর আর কোনো ব্যাটার কোনো রান করতে পারেননি। শেষ চার ব্যাটারের পাশেই রয়েছে শূন্য। তবে এরমধ্যে হাসান আলী অবশ্য অপরাজিত রয়েছেন। আমির জামাল, শাহিন আফ্রিদি ও মীর হামজা বিদায় নিয়েছেন খালি হাতে। রিজওয়ান আউট হওয়ার পর এক প্রান্ত আগলে কিছুটা চেষ্টা চালান সালমান। ৬৯ বলে ফিফটিও স্পর্শ করেন। কিন্তু আউট হয়েছেন ঠিক তার পরের বলেই। শেষ পর্যন্ত ৭০ বলে ৬টি চারের সাহায্যে ৫০ রান করেন এই ব্যাটার।

অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে ৪৯ রানের খরচায় ৫ উইকেট নেন ম্যাচ সেরা কামিন্স। প্রথম ইনিংসেও পেয়েছিলেন ৫টি উইকেট। ৫৫ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নেন স্টার্ক।

সকালে আগের দিনের ৬ উইকেটে ১৮৭ রান নিয়ে ব্যাটিংয়ে নামে অস্ট্রেলিয়া। শেষ চারটি উইকেট হারিয়ে আরও ৭৫ রান যোগ করে দলটি। তার মূল কৃতিত্ব অবশ্য আলেক্স ক্যারির। ১০১ বলে ৫৩ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। কামিন্স ১৬, নাথান লায়ন ১১ ও স্টার্ক ৯ রান করে তাকে যোগ্য সঙ্গ দেন।

পাকিস্তানের পক্ষে ৩২ রানের খরচায় ৪টি উইকেট নেন মীর হামজা। ৭৬ রানের বিনিময়ে ৪টি উইকেট নেন শাহিন আফ্রিদিও। ২টি উইকেট পান আমির জামাল।  

Comments

The Daily Star  | English

Hasina writes back to Biden

Prime Minister Sheikh Hasina has written back to US President Joe Biden

53m ago