ক্রিকেট

টেস্টের ১৪৬ বছরের ইতিহাসে মার্করামই ‘প্রথম’

দল অলআউট হয়েছে এবং ১১ জনের ১০ জনই ১৩ রানের নিচে সাজঘরে ফিরেছেন— এমন টেস্ট ইনিংসে সেঞ্চুরি হাঁকানো ইতিহাসের একমাত্র ব্যাটার মার্করাম।
ছবি: এএফপি

দলের আর কোনো ব্যাটার ১২ রানের বেশি করতে পারেননি। ব্যাটিংয়ের জন্য ভীষণ দুরূহ এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে যান এইডেন মার্করাম। ভারতের বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার তারকা তুলে নেন ক্যারিয়ারের সপ্তম টেস্ট সেঞ্চুরি। এতে তৈরি হয়েছে নতুন একটি রেকর্ড। টেস্ট ক্রিকেটের ১৪৬ বছরের ইতিহাসে আগে দেখা যায়নি এমন কীর্তি।

বৃহস্পতিবার কেপটাউন টেস্টের ফয়সালা হয়েছে দুই দিনেরও কম সময়ে। ফল এসেছে— এই বিবেচনায় এটিই সর্বকালের সংক্ষিপ্ততম টেস্ট। চার ইনিংস মিলিয়ে খেলা হয়েছে স্রেফ ১০৭ ওভার। সেখানে ভারত ৭ উইকেটে জিতে দক্ষিণ আফ্রিকার মাটিতে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ ড্র করেছে। রোহিত শর্মার দল ইতিহাস গড়ার আগে রেকর্ডের পাতায় ঠাঁই নিয়েছেন মার্করামও।

ভারতের পেসার জাসপ্রিত বুমরাহ ৬১ রানে ৬ উইকেট নেওয়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা দ্বিতীয় ইনিংসে অলআউট হয়েছে ১৭৬ রানে। মার্করাম ছাড়া দুই অঙ্কে যান কেবল তিনজন। অধিনায়ক ডিন এলগার ১২ এবং ডেভিড বেডিংহ্যাম ও মার্কো ইয়ানসেন সমান ১১ রান করেন। দল অলআউট হয়েছে এবং ১১ জনের ১০ জনই ১৩ রানের নিচে সাজঘরে ফিরেছেন— এমন টেস্ট ইনিংসে সেঞ্চুরি হাঁকানো ইতিহাসের একমাত্র ব্যাটার মার্করাম। অর্থাৎ দলের এমন ইনিংসে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত সংগ্রহের মালিক এখন তিনি। মার্করাম ভেঙে দিয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকারই সাবেক ক্রিকেটার গর্ডন হোয়াইটের কীর্তি।

১৯০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়েছিল ইংল্যান্ড। পাঁচ ম্যাচ সিরিজের চতুর্থ টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৩৮ রানে অলআউট হয়েছিল স্বাগতিকরা। ওই ইনিংসে হোয়াইটের ব্যক্তিগত অবদান ছিল ৭৩ রান। বাকি ১০ ব্যাটারের সবাই ১২ রানের মধ্যে আটকে গিয়েছিলেন। চমকপ্রদ ব্যাপার হলো, ওই টেস্টও হয়েছিল কেপটাউনের নিউল্যান্ডস স্টেডিয়ামে।

দ্বিতীয় ইনিংসে ৩ উইকেটে ৬২ রান তুলে প্রথম দিনের খেলা শেষ করেছিল প্রোটিয়ারা। মার্করাম অপরাজিত ছিলেন ৩৬ রানে। অন্যপ্রান্তে সতীর্থদের আসা-যাওয়া জারি থাকলেও একমাত্র তিনিই প্রতিপক্ষের বোলারদের পাল্টা জবাব দেন। ৬৮ বলে ফিফটি পূরণের পর চালিয়ে খেলে ৯৯ বলেই তুলে নেন সেঞ্চুরি। অষ্টম ব্যাটার হিসেবে আউট হওয়ার আগে ১০৩ বলে ১০৬ রানের ইনিংস খেলেন মার্করাম। তার ব্যাট থেকে আসে ১৭ চার ও ২ ছক্কা।

Comments